উত্তরবঙ্গ

?>
corona virus btn
corona virus btn
Loading

বাড়ি ভাড়া দেওয়ার টাকা নেই, ঘর ছেড়ে দিতে বলল মালিক !

বাড়ি ভাড়া দেওয়ার টাকা নেই, ঘর ছেড়ে দিতে বলল মালিক !

একমাসের বাড়ি ভাড়া দিতে না পারার অভিযোগে ভিন রাজ্যের হকারদের বাড়ি ছেড়ে দেওয়ার জন্য চাপ সৃষ্টি করছেন বাড়ির মালিক।

  • Share this:

#উত্তর দিনাজপুর: একমাসের বাড়ি ভাড়া দিতে না পারার অভিযোগে ভিন রাজ্যের হকারদের বাড়ি ছেড়ে দেওয়ার জন্য চাপ সৃষ্টি করছেন বাড়ির মালিক। লকডাউনের মাঝে বাড়ি ছেড়ে দিলে তারা কোথায় গিয়ে দাঁড়াবেন। ভিন রাজ্যের হকারদের বাড়ি ফিরিয়ে দেওয়া, নইলে তাদের থাকার ব্যবস্থা করার দাবিতে সোমবার পরিযায়ী হকাররা উত্তর দিনাজপুর জেলা শাসকের দ্বারস্থ হলেন। জেলা শাসক জানিয়েছেন, ভিনরাজ্যের হকারদের অভিযোগ তিনি পেয়েছেন। বিষয়টি মহকুমা শাসককে দেখার জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। সরকারি নির্দেশ অমান্য করলে বাড়ির মালিকের বিরুদ্ধে আইনত পদক্ষেপ নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন। বাড়ির মালিকের দাবি দীর্ঘ দু’মাস ধরে তিনি বাড়ি ভাড়া পাচ্ছেন না। বাড়ির ভাড়া ছাড়াও মোটা অঙ্কের বিদ্যুতের বিল তাকে মাসে মাসে দিতে হচ্ছে। এই অবস্থার জন্য তাদের বাড়ি ছেড়ে চলে যাবার নির্দেশ দিয়েছেন।

ভিন রাজ্যের কোনও ব্যক্তি অসহায় অবস্থায় থাকলে সরকার তাদের পাশে থাকার আশ্বাস দিয়েছে । সেই নির্দেশের পরই বাড়ি ভাড়া ছেড়ে দেওয়ার জন্য ভিন রাজ্যের সেলসম্যানদের উপর চাপ সৃষ্টি করা হচ্ছে বলে অভিযোগ। রায়গঞ্জের কর্ণজোড়া এলাকায় বিভিন্ন বাড়িতে ৩৬৮ জন ভিন রাজ্যের সেলসম্যান বাড়ি ভাড়া নিয়ে থাকেন। লকডাউনের কারণে এই সমস্ত হকারদের অবস্থা এখন খুব খারাপ। কাজ না থাকার কারণে তাদের আয়ও নেই। ফলে প্রতিদিন খাওয়ারও জুটছিল না। স্থানীয় পঞ্চায়েতের পক্ষ থেকে এই সমস্ত সেলসম্যানদের হাতে খাদ্যসামগ্রী তুলে দেওয়া হয়েছিল।

লকডাউনের পর থেকে তারা বাড়ি ভাড়া দিতে পারেননি। বাড়ি ছাড়ার চাপ দেওয়া হলে সোমবার সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে ভিনরাজ্যের সেলসম্যানরা উত্তর দিনাজপুর জেলা শাসক অরবিন্দ কুমার মীনার দ্বারস্থ হন। অবিলম্বে তাদের থাকার ব্যবস্থা করে দিতে হবে নইলে তাদের বাড়ি ফেরানোর ব্যবস্থা করতে হবে। জেলা শাসক এই অভিযোগ পাওয়ার পরই বিষয়টি রায়গঞ্জ মহকুমা শাসককে খতিয়ে দেখে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেবার নির্দেশ দিয়েছেন।

Published by: Dolon Chattopadhyay
First published: May 4, 2020, 5:45 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर