অসময়ে ভয়াবহ ভাঙন মালদহের টাঙ্গন নদীতে, তলিয়ে গেল জমি-বাড়ি

অসময়ে ভয়াবহ ভাঙন মালদহের টাঙ্গন নদীতে, তলিয়ে গেল জমি-বাড়ি
গঙ্গা ভাঙন

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, এখন নদীতে জল প্রায় নেই বললেই চলে। সাধারনত বছরের এই সময়ে ভাঙন হয় না। এবারও উপর থেকে কিছুই বোঝা যাচ্ছে না। কিন্তু, ভেতরে ভেতরে এলাকার মাটি আলগা হয়ে যাচ্ছে।

  • Share this:

#মালদহ: টাঙ্গন নদীতে ভয়াবহ ভাঙন শুরু হয়েছে মালদহের আইহোতে। ইতিমধ্যেই নদী গর্ভে তলিয়ে গিয়েছে ভাঙন রোধের কাজ। জমিজমা তলিয়ে যাওয়ার পর এখন বাড়িঘরের গা ঘেঁষে শুরু হয়েছে ভাঙন। একাধিক বাড়ির ভেতরের অংশেও ফাটল ধরেছে। পরিস্থিতি যা তাতে একটি পাড়া বিলীন হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা।  ভাঙন আতঙ্কে দুই চোখের পাতা এক করতে পারছেন না মালদহের হবিবপুরের আইহো পঞ্চায়েতের বাড়ুইপাড়া এলাকায় মানুষ। গত কয়েকদিন ধরেই টাঙ্গন নদীর ভাঙন ভয়াবহ আকার নিয়েছে। ২০১৪ এবং ২০১৭ সাল ওই এলাকায় ভাঙন রোধের কাজ করেছিল সেচ দপ্তর। সেইসব ভাঙন প্রতিরোধের কাজ গত কয়েকদিনে ধ্বসে পড়েছে নদীগর্ভে। এবার ভাঙনের থাবা সরাসরি একের পর এক ঘরবাড়িতে।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, এখন নদীতে জল প্রায় নেই বললেই চলে। সাধারনত বছরের এই সময়ে ভাঙন হয় না। এবারও উপর থেকে কিছুই বোঝা যাচ্ছে না। কিন্তু, ভেতরে ভেতরে এলাকার মাটি আলগা হয়ে যাচ্ছে। এরপর জমি ধ্বসে পড়ছে নদী গর্ভে। এলাকায় বসতি রয়েছে নদীর জলস্তরের তুলনায় প্রায় ২০ ফুট উঁচুতে। ভাঙন আতঙ্কে অনেকেই নিজেদের ঘরবাড়ি ছেড়ে অন্যের বাড়িতে আশ্রয় নিয়েছেন।   স্থানীয় আইহো পঞ্চায়েতের তৃনমূল সদস্যের দাবি ২০১৪ এবং ২০১৭ সালে এলাকায় প্রায় দেড় কিলোমিটার জুড়ে ভাঙন রোধের কাজহয়। কিন্তু কয়েক কোটি টাকা খরচ হলেও বাড়ুইপাড়া এলাকায় কাজ সঠিক ভাবে হয়নি। সময় মতো সেচ দপ্তর ব্যবস্থা নিলে ভাঙন এমন চেহারা নিতে পারত না।

ইতিমধ্যেই আইহো ভাঙন কবলিত এলাকা পরিদর্শন করেছেন হবিবপুরের বিডিও এবং জেলা সেচ দপ্তরের কর্তারা। হবিবপুরে বিডিও শুভজিৎ জানা জানিয়েছেন,আইহোর ওই এলাকায় ভাঙনে প্রায় ২৫ টি বাড়ি ক্ষতির মুখে রয়েছে। সমস্যার কথা উচ্চ পর্যায়ে জানানো হয়েছে। ওই এলাকায় ভাঙন ঠেকাতে জরুরি ভিত্তিতে পরিকল্পনা তৈরি করা হচ্ছে।

SEBAK DEB SARMA

First published: February 6, 2020, 8:38 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर