উত্তরবঙ্গ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

পাহাড়ী প্রত্যন্ত এলাকায় অভুক্তদের মুখে ফুটলো হাসি, পেলেন রেশন সামগ্রী

পাহাড়ী প্রত্যন্ত এলাকায় অভুক্তদের মুখে ফুটলো হাসি, পেলেন রেশন সামগ্রী
  • Share this:

Partha Sarkar

#শিলিগুড়ি: ক্রমেই দাপট বাড়াচ্ছে মারণ করোনা ভাইরাস। দেশে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। সুস্থ হয়েও একটা বড় অংশ বাড়ি ফিরছে। তবুও করোনা নিয়ে আতঙ্ক কাটছে না। বার বার করে নির্দেশের পরও সার্বিকভাবে লকডাউন মানা হচ্ছে না বলে অভিযোগ উঠছে। এই অবস্থায় করোনা মোকাবিলায় লকডাউন অস্ত্রকেই কাজে লাগাতে চায় বিভিন্ন রাজ্য।

গতকাল প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বিভিন্ন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের ভিডিও কনফারেন্সে লকডাউনের মেয়াদ বাড়ানোর দাবী উঠেছে। শীঘ্রই প্রধানমন্ত্রী জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণ দেবেন। সম্ভবত বাড়তে চলেছে লকডাউনের সময়সীমা। আর এর জেরে অসহায় হয়ে পড়ছেন চা শ্রমিক থেকে দিন আনি দিন খাই পরিবারেরা। চা বাগানেও ২৫ শতাংশ শ্রমিক দিয়ে কাজ করানো হচ্ছে। স্বাভাবিকভাবেই শ্রমিক পরিবারের লোকেরাও আজ ক্ষুধার্ত। অত্যন্ত সংকটে প্রত্যন্ত পাহাড়ী গ্রামের বাসিন্দারা। এর মোকাবিলায় ইতিমধ্যেই পাহাড়ে কমিউনিটি কিচেন চালু করা হয়েছে। কালিম্পংয়ের পর দার্জিলিংয়ে চালু করা হয়েছে কমিউনিটি কিচেন। কার্শিয়ংয়েও চালু করা হয়েছে কমিউনিটি কিচেন। বিভিন্ন বেসরকারী প্রতিষ্ঠান ত্রান সামগ্রী নিয়ে নেমেছে পাহাড়ের রাস্তায়। এবারে পথে নামলো তৃণমূলের পার্বত্য শাখাও। যাঁরা এই কঠিন সময়ে খাদ্যের অভাবে ভুগছেন। তাঁদের পাশে দাঁড়িয়েছেন ওঁরা। পরিবার পিছু তুলে দিচ্ছেন রেশন সামগ্রী। প্রথম দফায় চা বাগানের শ্রমিক পরিবারকেই বেছে নিয়েছেন ওঁরা।

আজ তাঁরা যান কার্শিয়ং মহকুমার তিনধরিয়ার সেলিম হিল চা বাগানে। বাগানের অভুক্ত ৪০০ পরিবারের হাতে তুলে দেন খাদ্য সামগ্রী। কী থাকছে ওই খাদ্য তালিকায়? পরিমাণ মতো চাল, মুসুর ডাল, আলু, সোয়াবিন, সরষের তেল, পেঁয়াজ সহ অন্য নিত্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী। রীতিমতো পারস্পরিক দূরত্ব মেনেই চলছে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ। দলের সভাপতি লাল বাহাদুর রাই জানান, প্রতিটি প্রত্যন্ত এলাকায় পৌঁছব আমরা। প্রয়োজনীয় খাদ্য রসদ তুলে দেওয়া হবে। মিরিক সহ লাগোয়া এলাকায় বিলি করা হবে। খাদ্য সংকটে থাকা চা শ্রমিক সহ দুঃস্থদের মুখে অবশেষে হাসি ফুটেছে।

Published by: Simli Raha
First published: April 28, 2020, 8:29 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर