corona virus btn
corona virus btn
Loading

রাতের অন্ধকারে রেশনের ডিলারের বিরুদ্ধে চাল পাচারের অভিযোগ, ১৬ বস্তা চাল আটক গ্রামবাসীদের

রাতের অন্ধকারে রেশনের ডিলারের বিরুদ্ধে চাল পাচারের অভিযোগ, ১৬ বস্তা চাল আটক গ্রামবাসীদের
Representative Image

রেশনে গেলে ডিলার গ্রামবাসীদের জিনিসপত্র দেন না, এই অভিযোগ তুলেছেন গ্রামবাসীরা। এই ঘটনায় গ্রামবাসীরা রেশনের সামনে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন। ঘটনার পর ডিলার এলাকা ছেড়ে পালিয়ে যান।

  • Share this:

#রায়গঞ্জ: রাতের অন্ধকারে রেশনের ডিলারের বিরুদ্ধে চাল পাচারের অভিযোগ। ১৬ বস্তা চাল আটক করল গ্রামবাসীরা৷ রায়গঞ্জ রাতের অন্ধকারে  রেশনের চাল পাচারের অভিযোগ রেশন ডিলারের বিরুদ্ধে।খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌছায় রায়গঞ্জ থানার পুলিশ।পুলিশ চালের বস্তাগুলি থানায় নিয়ে এসেছে। অভিযুক্ত ডিলারের লাইসেন্স বাতিলের দাবিতে সরব হয়েছেন গ্রাহকরা। তবে জেলা খাদ্য নিয়ামক আধিকারিক জানিয়েছেন,আটক চাল রেশনের নয়। অন্যদিকে অভিযুক্ত ডিলার পলাতক। ঘটনাটি রায়গঞ্জ ব্লকের কান্তর গ্রামে।

জানা গিয়েছে, সোমবার রাতে রায়গঞ্জ ব্লকের মহীপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের কান্তর গ্রামের রেশন ডিলার ১৬ বস্তা চাল নিয়ে যাবার সময় গ্রামবাসীরা হাতেনাতে ধরে ফেলেন তাকে। গ্রাহকদের অভিযোগ  স্থানীয় রেশন ডিলার সুকুমার বর্মন ও অজয় রায়ের বিরুদ্ধে। ঘটনার জেরে এলাকায় উত্তেজনা ছড়ায়। গ্রামবাসীদের অভিযোগ, রাতের অন্ধকারে গাড়ি করে ডিলার রেশনের চাল বাইরে পাচার করছিলেন। সেই সময় তারাই একটি চাল বোঝাই গাড়িকে আটক করেন। গাড়িতে ১৬ বস্তা চাল মজুত করা ছিল। গ্রামবাসীদের আরও অভিযোগ, এর আগেও রাতের অন্ধকারে বেশ কয়েক গাড়ি রেশনের চাল পাচার হয়েছে।

রেশনে গেলে ডিলার গ্রামবাসীদের জিনিসপত্র দেন না, এই অভিযোগ তুলেছেন গ্রামবাসীরা। এই ঘটনায় গ্রামবাসীরা রেশনের সামনে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন। ঘটনার পর  ডিলার এলাকা ছেড়ে পালিয়ে যান।  দূর্নীতিগ্রস্থ রেশন ডিলারের লাইসেন্স বাতিলের দাবি জানান গ্রামবাসিরা। ঘটনার খবর পেয়ে ছুটে আসে রায়গঞ্জ থানার পুলিশ। পরে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আসে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে তদন্তে যান জেলা খাদ্য দফতরের আধিকারিক।জেলা খাদ্য নিয়ামক জানিয়েছেন, আটক করা চাল রেশনের নয়। পুলিশ চালের বস্তাগুলি থানায় নিয়ে এসেছে। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে রায়গঞ্জ থানার পুলিশ।

রামকৃষ্ণ মাহাতো নামে গ্রাহক জানিয়েছেন যে, দীর্ঘদিন রেশন ডিলার গ্রাহকদের কম সামগ্রী দিয়ে রাতের অন্ধকারে সেই সমস্ত সামগ্রী খোলা বাজারে বিক্রি করে দিচ্ছেন। বিষয়টি তাদের নজরে এলেও গ্রামবাসিরা তার বিরুদ্ধে কোন পদক্ষেপ নেননি। এবার হাতে নাতে চাল পাচারের সময় তাকে ধরে ফেলে তার ডিলারশিপ বাতিলের দাবি করেছেন।

Published by: Pooja Basu
First published: May 27, 2020, 12:36 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर