হায়দরাবাদের ঘটনার পুনরাবৃত্তি মালদহে, ধর্ষণ করে পুড়িয়ে খুন যুবতীকে, দাবি স্থানীয়দের

হায়দরাবাদের ঘটনার পুনরাবৃত্তি মালদহে, ধর্ষণ করে পুড়িয়ে খুন যুবতীকে, দাবি স্থানীয়দের
Representative Image

ধানতলা এলাকায় আম বাগানের মধ্যে উদ্ধার হয় যুবতীর পোড়া দেহ।

  • Share this:

SEBAK DEBSARMA

#মালদহ: মালদহের ইংলিশবাজারে  উদ্ধার হল এক যুবতীর দগ্ধ দেহ । শরীরে একাধিক আঘাতের চিহ্ন মিলেছে । ধর্ষণ করে পুড়িয়ে খুন ,দাবি স্থানীয়দের । বৃহস্পতিবার সকালে মালদহের ইংলিশ বাজারের কোতোয়ালি গ্রাম পঞ্চায়েতের , ধানতলা এলাকায় আম বাগানের মধ্যে উদ্ধার হয় যুবতীর পোড়া দেহ। আনুমানিক বছর পঁচিশের ওই মহিলার পরিচয় জানা যায়নি। ইংরেজবাজার থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে দেহ উদ্ধার করতে গেলে বাঁধা দেন স্থানীয় বাসিন্দারা । হায়দরাবাদের ঘটনার সঙ্গে এই ঘটনার মিল রয়েছে বলে দাবি করেন স্থানীয়রা। পুলিশকে ঘিরে চলে বিক্ষোভ। এলাকায় পৌঁছান জেলা পুলিশ সুপার অলোক রাজোরিয়া । ঘটনাস্থল পরীক্ষা করে দেখেন জেলা পুলিশের কর্তারা।  এরপর মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মালদা মেডিকেল কলেজে পাঠায় পুলিশ।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, আমবাগানে ঘেরা ওই এলাকায় সন্ধ্যার পর লোকজন বিশেষ যাতায়াত করেন না। আশপাশ এলাকায় কোন মহিলা নিখোঁজ এমন কোন ঘটনা জানাতে পারেননি কেউই। পুলিশ ও স্থানীয়দের অনুমান, মৃত যুবতী এলাকার বাসিন্দা নন । ফলে প্রশ্ন উঠছে নির্জন এলাকায় রাতের অন্ধকারে বহিরাগতরা গেলেন কি করে ?  এদিন ঘটনাস্থল থেকে দেশলাইয়ের বাক্স,  একজোড়া জুতোও উদ্ধার করে পুলিশ। পোশাকের পোড়া অংশ ছাড়াও আরো বেশ কিছু নমুনা সংগ্রহ করা হয়।

ওই মহিলার সঙ্গে মৃত্যুর আগে কোন শারিরীক নির্যাতন হয়েছিল কিনা তা স্পষ্ট নয়। এজন্য ময়নাতদন্তের রিপোর্টের অপেক্ষা করা হবে । মৃত্যুর পর দেহ পোড়ানো হয় কিনা সেই সম্ভাবনা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। প্রাথমিকভাবে পুলিশের অনুমান ঘটনার সঙ্গে একাধিক দুষ্কৃতী যুক্ত থাকতে পারে ।

তবে মহিলার পরিচয় জানা সম্ভব না হওয়ায় তদন্তের ক্ষেত্রে এদিন খুব বেশি এগোতে পারেননি পুলিশ। জেলা পুলিশ সুপার অলোক রাজোরিয়া জানিয়েছেন, বিভিন্ন থানার মাধ্যমে বার্তা পাঠিয়ে মৃত যুবতীর পরিচয় জানার চেষ্টা করা হবে ।

এদিকে ঘটনার জেরে এদিন এলাকার নিরাপত্তা নিয়ে সরব হন স্থানীয়দের একাংশ । পুলিশকে ঘিরেও বিক্ষোভ দেখানো হয়। সন্ধ্যের পর এলাকায় আলোর বন্দোবস্ত না থাকায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন স্থানীয়রা । জরুরী প্রয়োজনে অনেক মহিলা এমনকি ছাত্রীদের ওই রাস্তা ব্যবহার করতে হয় ।এই অবস্থায় এলাকার নিরাপত্তা বাড়ানোর দাবি তাঁরা । স্থানীয়দের দাবি খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে তাঁদের আশ্বস্ত করে ক্ষোভ সামাল দেন পুলিশ সুপার।​

First published: 09:32:06 PM Dec 05, 2019
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर