• Home
  • »
  • News
  • »
  • north-bengal
  • »
  • সাফাই কর্মী ছাঁটাই নিয়ে বিক্ষোভ, উত্তেজনা মালদা মেডিক্যাল কলেজে

সাফাই কর্মী ছাঁটাই নিয়ে বিক্ষোভ, উত্তেজনা মালদা মেডিক্যাল কলেজে

আন্দোলনকারীদের অভিযোগ, করোনা পরিস্থিতির মধ্যে এইসব সাফাই কর্মীরাই নিজেদের জীবন বাজি রেখে হাসপাতাল সাফাইয়ের কাজ করেছেন।

আন্দোলনকারীদের অভিযোগ, করোনা পরিস্থিতির মধ্যে এইসব সাফাই কর্মীরাই নিজেদের জীবন বাজি রেখে হাসপাতাল সাফাইয়ের কাজ করেছেন।

আন্দোলনকারীদের অভিযোগ, করোনা পরিস্থিতির মধ্যে এইসব সাফাই কর্মীরাই নিজেদের জীবন বাজি রেখে হাসপাতাল সাফাইয়ের কাজ করেছেন।

  • Share this:

#মালদহ: মালদহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে কর্মবিরতি ও বিক্ষোভ সাফাই কর্মীদের। ৫০ জন সাফাই কর্মীকে কোনরকম আগাম নোটিশ ছাড়াই ছাঁটাই করা হয়েছে বলে অভিযোগ। অবিলম্বে তাঁদের কাজে বহাল করার দাবি তুলে শনিবার সকাল থেকে আন্দোলনের নামে মালদা বাশফোর ও হরিজন' ওয়েলফেয়ার অর্গানাইজেশন।

আন্দোলনকারীদের অভিযোগ, করোনা পরিস্থিতির মধ্যে এইসব সাফাই কর্মীরাই নিজেদের জীবন বাজি রেখে হাসপাতাল সাফাইয়ের কাজ করেছেন। অথচ, নতুন সাফাই এজেন্সি দায়িত্বে আসার পরেই মালদা মেডিকেল কলেজের ২৭৭ জন সাফাই কর্মীর মধ্যে ৫০ জনকে বাদ দিয়ে দেওয়া হয়েছে। এদিন মালদা মেডিকেল কলেজের সুপার- এর কাছে একটি স্মারকলিপিও দেয় আন্দোলনকারীরা। অবিলম্বে সমস্ত সাফাই কর্মীকে কাজে ফেরানো না হলে বৃহত্তর আন্দোলনের হুমকি দেওয়া হয়েছে। এদিকে সাফাই কর্মীদের আন্দোলনের জেরে এদিন বিঘ্নিত হয় হাসপাতালে সাফাইয়ের পরিষেবা। মালদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রায় ২০ টি ওয়ার্ড রয়েছে। গত কয়েক বছরে তৈরি হয়েছে ট্রমা কেয়ার সেন্টার সহ একাধিক নতুন ব্লক। দৈনিক মালদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আউটডোরে চিকিৎসা নেন আড়াই হাজারেরও বেশি রোগী। এছাড়া বিভিন্ন অন্তঃবিভাগে চিকিৎসা পান আরো হাজারেরও বেশি রোগী। আগের তুলনায় পরিছন্নতা খানিকটা হলেও বেড়েছে। কিন্তু, যেভাবে সাফাই কর্মী ছাঁটাই নিয়ে গোলমাল বেঁধেছে তাতে ফের পরিছন্নতা ব্যাহত হতে পারে। আন্দোলনকারীরা ইতিমধ্যেই লাগাতার বিক্ষোভ চালিয়ে যাওয়ার হুমকি দিয়েছেন। অন্যদিকে মালদা মেডিকেল কলেজের সহ অধ্যক্ষ তথা মেডিকেল সুপার অমিত কুমার দাঁ বলেন, সাফাই কর্মীরা দাবি-দাওয়া নিয়ে গত কয়েকদিন ধরেই মাঝেমধ্যে আন্দোলন করছেন। তবে সাফাই পরিষেবা যাতে ব্যাহত না হয় সেই চেষ্টা করা হচ্ছে। সমস্যার কথা স্বাস্থ্য দপ্তরের জানানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

Sebak DebSarma

Published by:Debalina Datta
First published: