উধাও আস্ত স্কুল ! অনুমতি ছাড়াই সরকারি প্রাথমিক স্কুল ভেঙে ফেলার অভিযোগ মালদহে

ঘটনার তদন্তে নেমেছে ইংরেজবাজার থানা ও মালদা জেলা প্রশাসন।

ঘটনার তদন্তে নেমেছে ইংরেজবাজার থানা ও মালদা জেলা প্রশাসন।

  • Share this:

#মালদহ:  লকডাউনে উধাও আস্ত স্কুলবাড়ি। অনুমতি ছাড়াই সরকারি প্রাথমিক স্কুল ভেঙে ফেলার অভিযোগ মালদহের ইংরেজবাজারে। ইংরেজবাজার থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের মালদহ জেলা প্রাথমিক বিদ্যালয় সংসদের চেয়ারম্যান তথা মালদহের জেলা বিদ্যালয় পরিদর্শকের। ঘটনার তদন্তে নেমেছে ইংরেজবাজার থানা ও মালদা জেলা প্রশাসন।

জেলা বিদ্যালয় পরিদর্শকের অভিযোগ,মালদহের কালিতলা এলাকায় অবস্থিত শহর-১ চক্রের অধীন ছাত্রবন্ধু প্রাথমিক বিদ্যালয়। বিদ্যালয়ের শিক্ষক এবং অবর বিদ্যালয় পরিদর্শকের রিপোর্ট থেকে জানা গিয়েছে, কেউ বা কারা ওই স্কুল ভেঙেছেন। গত ১ ডিসেম্বর বিষয়টি নজরে এসেছে। ১৯৭৩ সাল থেকে ওই এলাকায় স্কুলটি চলছিল।বৃহস্পতিবার ওই এলাকায় পরিদর্শনে যান মালদহের প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিদর্শক। এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, পাশের একটি ফাঁকা জায়গায় বিকল্প স্কুল বাড়ি তৈরি করা হয়েছে। এদিন পরিদর্শকের তদন্তের সময় উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী তথা স্থানীয় ওয়ার্ড কো-অর্ডিনেটর কৃষ্ণেন্দু নারায়ণ চৌধুরী। তিনি অবশ্য পাল্টা বলেন, সরকারি ওই স্কুল নিজে থেকেই ভেঙে পড়েছিল। কার্যত ধ্বংসস্তূপ আর সাপের জঙ্গল হয়ে উঠেছিল। তাই পাশের  একটি জমিতে সহৃদয় ব্যক্তির সহায়তায় বিকল্প স্কুল বাড়ি তৈরি করা হয়েছে।

একসঙ্গে প্রায় ভেঙে পড়া স্কুলের জায়গাটিকে  পরিষ্কার করা হয়েছে। প্রশাসন জানিয়েছে,স্কুলভাঙার বিষয়টি হঠাৎই নজরে আসে। এরজন্য আগাম কোনো অনুমতি নেওয়া হয়নি। স্কুলের জমির কাগজপত্র খতিয়ে দেখা হচ্ছে। পাশাপাশি অভিযোগ পেয়ে তদন্ত শুরু করেছে ইংরেজবাজার থানা।

সেবক দেবশর্মা

Published by:Piya Banerjee
First published: