ডাক্তার নেই, ডিউটি রোস্টারও নেই! মালদহ হাসপাতালে আচমকা পরিদর্শনে দেখলেন ডিএম

মালদহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল

পরে জানা যায় ছুটিতে রয়েছেন এমএসভিপি অমিতকুমার দাঁ। এরপর হাসপাতালের অর্ন্তবিভাগে যান তিনি। নিরাপত্তা রক্ষীদের অনেককেই 'ইউনিফর্মে' পাওয়া যায়নি।

  • Share this:

#মালদহ : বির্তকেই আছে মালদহ মেডিক্য়াল কলেজ। 

এবার হাসপাতালে আচমকা পরিদর্শনে গিয়ে প্রায় কোনও চিকিৎসকের দেখা পেলেন না জেলাশাসক। এমনকি উধাও ডাক্তারদের ডিউটি রোস্টারও।

বেলা পর্যন্ত কোনও ওয়ার্ডেই চিকিৎসকরা রোগী দেখতে না আসায় অধ্যক্ষকে ধমক জেলাশাসকের। পরিষেবা নিয়ে রোগীদের ক্ষোভ আঁচ পেয়ে কর্তৃপক্ষকে তলব জেলাশাসকের। প্রকাশ্যে নিজের বিরক্তিও চেপে রাখেননি মালদহের জেলাশাসক ও রোগী কল্যান সমিতির চেয়ারম্যান রাজর্ষি মিত্র।

বুধবার সকাল ১১ টা নাগাদ আচমকা মালদহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে হাজির হন জেলাশাসক রাজর্ষি মিত্র। আচমকা পরিদর্শনে গিয়ে মালদা মেডিক্যাল কলেজের 'ডামাডোল' দেখে ক্ষুব্ধ জেলাশাসক। অতিরিক্ত জেলাশাসককে সঙ্গে নিয়ে হাসপাতালে হাজির হন তিনি। প্রথমে প্রশাসনিক ভবনে গিয়ে এমএসভিপি-সহ একাধিক আধিকারিকে পাননি তিনি।

পরে জানা যায় ছুটিতে রয়েছেন এমএসভিপি অমিতকুমার দাঁ। এরপর হাসপাতালের অর্ন্তবিভাগে যান তিনি। নিরাপত্তা রক্ষীদের অনেককেই  'ইউনিফর্মে' পাওয়া যায়নি। এরপর একের পর এক ওয়ার্ডে যান জেলাশাসক। প্রায় দেড় ঘন্টা ধরে পরিদর্শন চলাকালীন অধিকাংশ ওয়ার্ডেই চিকিৎসকের দেখা না পেয়ে বেজায় চটে যান তিনি।

কোন ওয়ার্ডে, কোন চিকিৎসকের থাকার কথা এই সংক্রান্ত ‘ডিউটি রোস্টার’ দেখতে চান জেলাশাসক। কিন্তু, কর্তৃপক্ষ তা দেখাতে পারেনি। এরপরেই জেলাশাসক প্রশ্ন তোলেন। অভিযোগ করেন, এ ভাবে চললে কী ভাবে চিহ্নিত করা যাবে কোন চিকিৎসক দায়িত্ব অবহেলা করছেন ?

ক্ষুব্ধ জেলাশাসক মেডিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষকে জানিয়ে দেন বিভিন্ন ওয়ার্ডে চিকিৎ‍সকদের নামের তালিকা প্রকাশ্যে ঝোলাতে হবে।  এদিকে প্রকাশ্যেই জেলাশাসক ক্ষোভ প্রকাশ করায় অস্বস্তিতে মালদহ মেডিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষ পার্থপ্রতীম মুখোপাধ্যায়। কেন চিকিৎসকদের ডিউটি রোস্টার মেলেনি তা নিয়েও সদুত্তর দিতে পারেননি তিনি।

মালদহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে বর্তমানে প্রায় ২৪টি বিভাগ রয়েছে। চিকিৎসকের সংখ্যা প্রায় ২০০। এছাড়াও রয়েছেন শতাধিক হাউস স্টাফ ও ইনটার্ন চিকিৎসক। এদিন জেলাশাসকের পরিদর্শনের পর রোগীর আত্মীয়দের অনেকেই পরিষেবা নিয়ে সরব হন।

Sebak DebSarma

Published by:file 18 user
First published: