কীর্ত্তন শোনাতে নিয়ে গিয়ে বন্ধুরা খাইয়েছিল মদ, তারপর মারধর...কী করে হল খুন

কীর্ত্তন শোনাতে নিয়ে গিয়ে বন্ধুরা খাইয়েছিল মদ, তারপর মারধর...কী করে হল খুন

রায়গঞ্জ থানার মহারাজা গ্রামে যুবক খুন, পুলিশ কুকুর এনে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে রায়গঞ্জ থানার পুলিশ৷

রায়গঞ্জ থানার মহারাজা গ্রামে যুবক খুন, পুলিশ কুকুর এনে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে রায়গঞ্জ থানার পুলিশ৷

  • Share this:

#রায়গঞ্জ:  সাত সকালে যুবক খুনের ঘটনায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে রায়গঞ্জ থানা মহারাজা গ্রামে।  খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌছায় রায়গঞ্জ থানার পুলিশ। খুনের তদন্তে পুলিশ কুকুরের সাহায্য নেওয়া হয়। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ একজনকে আটক করেছে।  মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রায়গঞ্জ হাসপাতাল মর্গে নিয়ে এসেছে। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে রায়গঞ্জ থানার পুলিশ।

জানা গেছে, রায়গঞ্জ থানার মহারাজা গ্রামের বাসিন্দা দেবাশিষ গুপ্ত। পেশায় রঙ মিস্ত্রী।  মহারাজা এলাকা গত দুইদিন কীর্তন গান চলছে।গত বৃহস্পতিবার বন্ধুরা তাকে কীর্তনে নিয়ে গিয়ে মদ্যপান করিয়ে বেধড়ক মারধর করে বলে অভিযোগ। কি কারনে তাকে মারধোর করা হল সে ব্যাপারে পরিবারের লোকেরা অন্ধকারেই ছিল। গতকাল সে অসুস্থ বোধ করায় তাকে মহারাজা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ভর্তি করা হয়েছিল। চিকিৎসার পর সে শুক্রবারই বাড়ি ফিরে আসে। অধিকরাত পর্যন্ত সে বাড়ি ফিরে না আসায় পরিবারের লোকেরা তার খোঁজাখুজি করেও তার হদিশ পাননি।  রাতে বাড়িতে ফিরে ঘরে শুয়েছিল বলে দাবি তাঁর মার । রাতে  ঘরের তালা ভেঙ্গে কেউ বা কারা তাকে তুলে নিয়ে গিয়ে খুন করে রাস্তায় ফেলে রেখে যায়।

শনিবার সকালে প্রতিবেশীরা দেবাশিষের মৃতদেহ দেখতে পেয়ে পরিবারকে খবর দেন।খবর পেয়ে খবর ঘটনাস্থলে পৌছায় রায়গঞ্জ থানার পুলিশ। খুনের তদন্তে পুলিশ কুকুর আনা হয়। মৃত যুবকের মা সতী গুপ্ত জানান,ঘরের তালা ভেঙে তার বন্ধুরা তুলে নিয়ে খুন করে ফেলে রেখে গেছে। গত দুই দিন যাবদ ছেলেকে তার বন্ধুকে বেধড়ক মারধর করছিল।মারের ভয়ে দেবাশিষ আতঙ্কিত হয়ে পড়েছিল। সুস্থ করে তোলার জন্য তাকে হাসপাতালেও ভর্তি করা হয়েছিল। এলাকার চার বন্ধু তাকে মারধর করেছে বলে তাকে জানিয়েছিল।গতকাল রাতে সে ঘরে ঘুমিয়ে ছিল।আজ সকালে সে পরিচারিকার কাজ করতে অন্যবাড়িতে গিয়েছিলেন। সেখানেই তাকে ছেলের মৃত্যুর খবর দেওয়া হয়।সেখান থেকে সোজা এখানে এসে ছেলের মৃতদেহ দেখতে পান।

যারা তার ছেলেকে খুন করেছে তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেছেন মৃত যুবকের মা সতীদেবী। মৃত যুবকের দাদা রিপন গুপ্ত জানান, তার ভাইকে সবাই ভাল ছেলে হিসেবেই চেনে। কীর্ত্তন উপলক্ষে বন্ধুরা ভাইকে মদ্যপান করায়। মদ্যপান করানোর পর তাকে বেধরক মারধর করে। কেন তাকে নৃশংসভাবে মারা হল এব্যাপারে তারা অন্ধকারেই আছেন।পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে।

 Uttam Paul

Published by:Debalina Datta
First published: