বন দফতরের নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে হেমতাবাদ বাহাইল ফরেস্টে চলছে বনভোজন

বন দফতরের নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে হেমতাবাদ বাহাইল ফরেস্টে চলছে বনভোজন

করোনা আবহে উত্তর দিনাজপুর জেলার সমস্ত বন দফতরের বনভোজন নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

করোনা আবহে উত্তর দিনাজপুর জেলার সমস্ত বন দফতরের বনভোজন নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

  • Share this:

#কালিয়াগঞ্জ: হেমতাবাদ বন দফতরের বাধাকে উপেক্ষা করে হেমতাবাদ বাহারাইল ফরেষ্টে চলছে বনভোজন। হেমতাবাদ বিডিও জানিয়েছেন, সরকারি নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করেই বাহাইলে বনভোজন হচ্ছে।বিষয়টি তাদের নজরে এসেছে। আগামীদিনে সেখানে যাতে আর বনভোজন না করা যায় তার ব্যবস্থা করবেন।  বনভোজন করতে আসা কালিয়াগঞ্জের বাসিন্দা নান্টু বর্মন জানান, করোনা আবহের কথা মাথায় রেখে সামজিক দূরত্ব বজায় রেখেই বনভোজন করা হচ্ছে।

করোনা আবহে উত্তর দিনাজপুর জেলার সমস্ত বন দফতরের বনভোজন নিষিদ্ধ করা হয়েছে। রায়গঞ্জ কুলিক পক্ষীনিবাস, শিয়ালমনি এবং হেমতাবাদের বাহারাইল জঙ্গলে পোস্টার দিয়ে সাধারন মানুষকে সচেতন করে বনভোজন নিষিদ্ধ করা হয়েছে। জঙ্গলে প্রবেশদ্বার বাঁশ দিয়ে আটকে দিয়ে দেওয়া হয়েছে। এই নিষেধাজ্ঞার ফলে চরম সমস্যায় পড়েছেন রায়গঞ্জ ব্লকের শিয়ালমনি এলাকার বাসিন্দারা। বড় দিন থেকে শুরু করে নতুন বছর শিয়ালমনি এলাকার দুঃস্থ এবং অসহায় মানুষেরা এই পিকনিক পার্টির উপর নির্ভরশীল। এই সময় বাড়ির কাছে কিছু অতিরিক্ত অর্থ উপার্জন হয়।এবারে সেই উপার্জন বন্ধ হওয়ায় সমস্যায় পড়েছেন।

বন দফতরের সেই সমস্ত বিধিনিষেধকে উপেক্ষা করে রবিবার ছুটির দিনে হেমতাবাদ বাহারাইল জঙ্গলে রায়গঞ্জ, কালিয়াগঞ্জ থেকে অসংখ্য পর্যটক বনভোজন করতে গেছেন। বাঁশের ব্যারিকেড টপকে জঙ্গলে পর্যটকরা বনভোজন করছেন। কালিয়াগঞ্জের বাসিন্দা নান্টু বর্মন জানান,তারা আগে এই নিষেধাজ্ঞার খবর পান নি।আসার পর নিষেধাজ্ঞার খবর জানতে পারলেন। বনকর্মীদের অনুমতি নিয়ে পেছনের রাস্তা দিয়ে তারা ভেতরে প্রবেশ করেছেন।  করোনা সতর্কতা মেনে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে তারা বনভোজন করছেন।

রায়গঞ্জ ব্লকের বামুনগাও পঞ্চায়েত সদস্য মকবুল হোসেন জানান, বনভোজন নিষিদ্ধ হয়েছে এটা তার জানা ছিল না। তিনি শিক্ষকদের এনে এখানে বনভোজন করছেন।রায়গঞ্জ থেকে আসা  রুমা সিনহা জানান, বাহারাইল জঙ্গল বাঁশ দিয়ে প্রবেশ পথ বন্ধ থাকলেও বাঁশের টপকে তারা জঙ্গলে প্রবেশ করে বনভোজন করছেন। বাহারাইলে বনভোজন করতে এসে বিষয়টি জানতে পারেন। গেমতাবাদ বিডিও পৃথ্বীশ দাস জানান, করোনা আবহের কারনে জঙ্গলে বনভোজন নিষিদ্ধ করা হলেও সেই জঙ্গলে বনভোজন করা হচ্ছে তাদের নজরে এসেছে। আগামীতে এই জঙ্গলে বনভোজন না করা করা যায় সেবিষয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহন করবেন।কোনভাবেই সরকারি নির্দেশ অমান্য করে বনভোজন করা যাবে না।

Uttam Paul

Published by:Debalina Datta
First published: