Home /News /north-bengal /
লকডাউনে জমাট আড্ডা চায়ের দোকানে, হানা দিয়ে আক্রান্ত পুলিশ

লকডাউনে জমাট আড্ডা চায়ের দোকানে, হানা দিয়ে আক্রান্ত পুলিশ

এরপর হরিশ্চন্দ্রপুর থানার আইসি সঞ্জয় দাসের নেতৃত্বে বাড়তি পুলিশ বাহিনী গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

  • Share this:

#মালদহ: লকডাউনে চায়ের দোকান বন্ধ করতে গিয়ে আক্রান্ত পুলিশ। মালদহের হরিশ্চন্দ্রপুর থানার বিজোট এলাকার ঘটনা । পুলিশকে লক্ষ্য করে ইঁট ছুড়তে শুরু করেন বাসিন্দাদের একাংশ। ইটের আঘাতে জখম হন কয়েকজন পুলিশ কর্মী। বাধা পেয়ে প্রথমে সেখান থেকে সরে আসেন পুলিশকর্মীরা।

এরপর হরিশ্চন্দ্রপুর থানার আইসি সঞ্জয় দাসের নেতৃত্বে বাড়তি পুলিশ বাহিনী গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। হামলার ঘটনায় জড়িত সন্দেহে দুজনকে আটক করে পুলিশ।পুলিশ জানিয়েছে, লকডাউনের মধ্যেও হরিশ্চন্দ্রপুর একাধিক জায়গায় সকালের দিকে এবং সন্ধ্যায় চায়ের দোকানে আড্ডা দিচ্ছিলেন এলাকার কিছু যুবক ।

স্থানীয়দের একাংশ প্রতিবাদ করলেও কাজ হয়নি। শেষে এলাকার বাসিন্দাদের কয়েকজন পুলিশকে এনিয়ে খবর দেন। এরপর মঙ্গলবার সকালে হরিশ্চন্দ্রপুর থানার পুলিশের একটি দল ওই এলাকায় গিয়ে জমায়েত সরানোর চেষ্টা করে। কিন্তু পুলিশের সঙ্গে বচসায় জড়িয়ে পড়ে চায়ের ঠেকে হাজির একদল যুবক। পুলিশ প্রথমে বুঝিয়ে সরানোর চেষ্টা করে । এতে কাজ না হওয়ায় বল প্রয়োগের চেষ্টা করে পুলিশ। এর পরেই পুলিশের ওপর চড়াও হয় বাসিন্দাদের একাংশ ।পুলিশকে লক্ষ্য করে তারা ইট, পাথর ছুঁড়তে শুরু করে। বেশ কয়েকজন পুলিশকর্মীর গায়ে ইটের আঘাত লাগে। প্রাথমিকভাবে পুলিশকর্মীরা কম থাকায় বেগতিক দেখে তাঁরা এলাকা ছেড়ে সরে পড়েন। পরে হরিশ্চন্দ্রপুর থানার আইসি সঞ্জয় দাসের নেতৃত্বে বাড়তি পুলিশ বাহিনী এলাকায় যায় । মালদহের পুলিশ সুপার অলোক রাজোরিয়া জানিয়েছেন, লকডাউন পরিস্থিতিতে মানুষের জন্য পুলিশকর্মীরা পরিবার পরিজন ছেড়ে ঝুঁকি নিয়ে কাজ করছেন। এরপরেও যারা পুলিশকে হেনস্থার চেষ্টা করবে তাঁদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

Published by:Dolon Chattopadhyay
First published:

Tags: Corona Virus, COVID-19, Social Distancing

পরবর্তী খবর