পুরসভার কাউন্সিলর এ কী লিখেছেন সোশ্যাল মিডিয়া পোস্টে, রায়গঞ্জে বিরোধীদের দাবিতে চাঞ্চল্য

Photo-File

বিজেপি ভোট দেওয়ার অভিযোগে বিজেপি সমর্থিত নাগরিকদের পৌর পরিষেবা বন্ধ করে দিল রায়গঞ্জ পৌরসভার কাউন্সিলররা!

  • Share this:

#রায়গঞ্জ:  রায়গঞ্জ পৌরসভা যে সমস্ত মানুষ বিজেপি কে ভোট দিয়েছেন রায়গঞ্জ পৌরসভার কাউন্সিলররা তাদের কোন পরিষেবা দেবেন না। সোসাল মিডিয়ায় জানিয়ে দিয়েছেন ২৭ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রসনজিৎ সরকার।  যে বাসিন্দা বিজেপি সমর্থক তাদের  অনুমান করেই পরিষেবা দেওয়া বন্ধও করে দিয়েছেন ২৭ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর।

কি কারনে তাদের পরিষেবা দিচ্ছেন না তাও পরিস্কার করে জানাচ্ছেন না কাউন্সিলররা। ফলে চরম বিপাকে পড়েছেন ২৭ এবং ২১ নম্বর ওয়ার্ডের বেশ কিছু বাসিন্দা। নাগরিকদের পরিষেবা দেবেন না এতে কোন রকম ইতস্ততা বোধ করছেন না কাউন্সিলর প্রসনজিৎ সরকার। তার দাবি যাদের জন্য তিনি দিন রাত ২৪ ঘন্টা পরিষেবা দেন তারা মমতা ব্যানার্জী বা এই সরকারকে পছন্দ না করে বিজেপিকে ভোট দিয়েছেন।  যারা বিজেপিকে ভোট দিয়েছেন তাদের কোন রকম পরিষেবা তিনি দেবেন না। একই দাবি জানিয়ে সোশাল মিডিয়ায় পোষ্ট করেছেন ২১ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর কল্পিতা মজুমদার ও। নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিরা এধরনের সিদ্ধান্ত নিতে পারেন কিনা সে বিষয়ে প্রশ্ন তুলেছেন বিজেপি উত্তর দিনাজপুর জেলা সভাপতি।

এবারে বিধানসভা নির্বাচনে উত্তর দিনাজপুর জেলার নয়টি বিধানসভা কেন্দ্রে মধ্যে সাতটিতে জয়লাভ করেছে তৃনমূল কংগ্রেস। দুটিতে জয়লাভ করেছে বিজেপি।রায়গঞ্জ এবং কালিয়াগঞ্জ বিধানসভা কেন্দ্রটি বিজেপি দখলে গেছে। রায়গঞ্জ বিধানসভা কেন্দ্রে রায়গঞ্জ পৌরসভার ২৭ ওয়ার্ডের মধ্যে ২২ টিতে এগিয়ে রয়েছে বিজেপি।রায়গঞ্জ পৌর এলাকার বিজেপি প্রার্থী কৃষ্ণ কল্যানী ৯৫১৮ ভোটের ব্যাবধানে এগিয়ে আছেন। মাত্র পাচটি ওয়ার্ডে এগিয়ে শাসক দল তৃনমূল কংগ্রেস। তৃনমূল কংগ্রেস পরিচালিত রায়গঞ্জ পৌরসভা হওয়া সত্বেও বিজেপি প্রায় সমস্ত ওয়ার্ডে এগিয়ে থাকায় ব্যাপক ক্ষুব্ধ কাউন্সিলররা। করোনা আবহের মধ্যেও পৌরসভার কাউন্সিলররা জীবনের ঝুকি নিয়ে নাগরিকদের বাড়িতে বাড়িতে খাদ্য পৌছে দেওয়া, করোনা আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসার ব্যবস্থা করা সহ সরকারি একাধিক পরিষেবা পৌছে দেওয়া সত্বেও জাতি সত্যাকে গুরুত্ব দিয়ে বিজেপিকে ভোট দিয়েছেন রায়গঞ্জ পৌরসভার বাসিন্দারা।বাসিন্দাদের এই সিদ্ধান্তে দলীয় স্তরে চরম সমস্যায় পড়েছেন কাউন্সিলররা।তাই বিজেপি সমর্থিত পৌর নাগরিকদের পরিষেবা বন্ধ করে দেবার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তৃনমূল কংগ্রেস কাউন্সিলররা। সোসাল মিডিয়ায় ২৭ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রসনজিৎ সরকার এবং ২১ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর কল্পিতা মজুমদার তাদের সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছেন। ইতিমধ্যে  বিজেপি সমর্থিত ভোটারদের সরকারি পরিষেবা না দিয়ে বিজেপির নবনির্বাচিত বিধায়কের কার্যালয় ঠিকানা দেখিয়ে দিচ্ছেন কাউন্সিলররা। কেন নাগরিকদের পরিষেবা দেওয়া হবে না সেবিষয়ে নাগরিকদের খোলসা করে কিছু জানানো হচ্ছে না। কাউন্সিলর প্রসনজিৎ সরকার পরিস্কার ভাবে জানিয়েছেন, তার ওয়ার্ডে বিজেপি ২৭৫ ভোটে এগিয়ে আছে। পৌর নাগরিকদের কথা ভেবে তারা দিনরাত পরিশ্রম করেন। যারা পরিষেবা দেন তাদের ভোট না দিয়ে বিজেপিকে ভোট দেওয়ায় তারা তাদের পরিষেবা দেবেন না। এলাকার বাসিন্দা মঞ্জু রায় জানান, তিনি কাউন্সিলরের কাছে চাল নিতে এসেছিলেন।কাউন্সিলর তাকে চাল না দিয়ে রায়গঞ্জ শহরের একটি সিনেমা হলের পাশে বিজেপি বিধায়কের অফিস দেখিয়ে দিল। চাল না পেয়ে তিনি খালি হাতে যাচ্ছেন। কাউন্সিলর বিজেপি কার্যালয়ের কথা বললেও তিনি সেই কার্যালয় চেনেন না। সাংবিধানিক ব্যাবস্থায় নির্বাচিত প্রতিনিধিরা এধরনের সিদ্ধান্ত নিতে পারেন কি না তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন বিজেপি উত্তর দিনাজপুর জেলা সভাপতি বাসুদেব সরকার।

Uttam Paul

Published by:Debalina Datta
First published: