সরকারি চাকরি পাইয়ে দেওয়ার নামে পাঁচ লক্ষ টাকার বেশি প্রতারণা, ভুয়ো নিয়োগপত্র প্রদান মালদহে

ছেলের ভবিষ্যত গড়ার জন্য তা বিক্রি করে ধাপে ধাপে এই টাকা দিয়েছিলেন অভিযুক্তকে । বর্তমানে চরম অসহায় অবস্থায় আছেন তাঁরা ।

ছেলের ভবিষ্যত গড়ার জন্য তা বিক্রি করে ধাপে ধাপে এই টাকা দিয়েছিলেন অভিযুক্তকে । বর্তমানে চরম অসহায় অবস্থায় আছেন তাঁরা ।

  • Share this:

#মালদহ: কৃষি দপ্তরে চাকরি দেওয়ার নাম করে প্রায় ৫ লক্ষ ৪০হাজার টাকার প্রতারণা । ভুয়ো অ্যাপয়েন্টমেন্ট লেটার প্রদান করার অভিযোগ কৃষি দপ্তরের কর্মীর বিরুদ্ধে । অভিযোগ, মালদহের হরিশ্চন্দ্রপুরের তুলসিহাটা এলাকার এক যুবকের। মুখ্যমন্ত্রী, কৃষিমন্ত্রী, ও জেলা পুলিশ সুপারের দ্বারস্থ হয়েছেন প্রতারিত যুবক ।

মালদহের হরিশ্চন্দ্রপুরের তুলসিহাটা এলাকার যুবক যোগেশ দাস । তাঁর অভিযোগ,  কৃষি দপ্তরের কর্মী দীনেশ পরিহর কৃষি দপ্তরে চাকরি দেওয়ার নাম করে তাঁর কাছ থেকে ৫ লক্ষ ৪০ হাজার টাকা আত্মসাত করেছে ।তাঁকে পূর্ব মেদিনীপুরে সুতাহাটা ব্লকের চাকরি দেওয়ার জন্য ভুয়ো অ্যাপয়েন্টমেন্ট লেটার দেওয়া হয় । কিন্তু তা পরীক্ষা করার পর তিনি জানতে পারেন অ্যাপয়েন্টমেন্ট লেটারটি ভুয়ো । এরপর বারবার ওই সরকারি কর্মীর কাছে গিয়ে টাকা ফেরতের দাবি করলেও সে কোনো কর্ণপাত করেননি । বাধ্য হয়ে তিনি ইংরেজবাজার থানার দ্বারস্থ হয়েছেন । পাশাপাশি আইনজীবী মারফত সরাসরি মুখ্যমন্ত্রী, কৃষিমন্ত্রী ও জেলার পুলিশ সুপারের দ্বারস্থ হয়েছেন টাকা ফেরতের দাবিতে । প্রতারিত যুবকের বাবা অতুল দাস জানান, সামান্য কয়েক বিঘা জমি ছিল তাঁদের । ছেলের ভবিষ্যত গড়ার জন্য তা বিক্রি করে ধাপে ধাপে এই টাকা  দিয়েছিলেন অভিযুক্তকে । বর্তমানে চরম অসহায় অবস্থায় আছেন তাঁরা ।

প্রতারিতের আইনজীবী সন্টু মিঁয়া বলেন, চাকরি প্রার্থী যুবক দশটি কিস্তিতে ধাপে ধাপে ওই প্রতারককে পাঁচ লক্ষ টাকার বেশি টাকা দেন । ওই যুবক নিজে কৃষি দপ্তরের কর্মী হওয়ায় সহজে বিশ্বাস তৈরি হয়েছিল । কিন্তু টাকা হাতিয়ে নেওয়া ছাড়া অভিযুক্ত আর কিছুই করেনি।  নির্দিষ্ট জায়গায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে ।এরপরও যদি কোন ব্যবস্থা না হয় তাহলে আদালতের দ্বারস্থ হব ।   এদিকে ঘটনা প্রকাশ্যে আসতেই গা ঢাকা দিয়েছে অভিযুক্ত কৃষি দপ্তরে কর্মী দীনেশ পরিহার । ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ ।

Published by:Dolon Chattopadhyay
First published: