বাড়ল বুথের সংখ্যা, ভোট ঘোষণা হতেই শিলিগুড়িতে পৌঁছে গেল আধাসেনা

শিলিগুড়িতে পৌঁছে গেল আধাসেনা৷

করোনা কালে নির্বাচন, তাই কোভিড বিধির কথা মাথায় রেখে জেলায় এবারে ৩০৬ টি বুথ বাড়ানো হয়েছে।

  • Share this:

#কলকাতা: শুক্রবারই বেজেছে ভোটের ঘন্টা। উত্তরের জলপাইগুড়ি ও কালিম্পংয়ের সঙ্গে একযোগে দার্জিলিংয়ের পাহাড় এবং সমতলেও ভোট হবে ১৭ এপ্রিল। নির্বাচনের দিন ঘোষণা হতেই তৎপর জেলা প্রশাসন।

আজ দার্জিলিংয়ের জেলাশাসক শশাঙ্ক শেঠি জানান, জেলায় পুরুষ ভোটার সংখ্যা হল ৬০ লক্ষ্য় ৯ হাজার ৯৩৩ ও মহিলা ভোটার সংখ্যা ৬১ লক্ষ্য় ২ হাজার ২৪৩ জন। অর্থাৎ মোট ভোটার সংখ্যা ১ কোটি ২২লক্ষ্য় ২ হাজার ১৯০ জন। গোটা জেলায় মোট বুথের সংখ্যা ১৭১৯টি। ভোট পরিচালনার দায়িত্বে থাকবেন ৯ হাজার ভোট কর্মী।

করোনা কালে নির্বাচন, তাই কোভিড বিধির কথা মাথায় রেখে জেলায় এবারে ৩০৬ টি বুথ বাড়ানো হয়েছে। এদিন জেলাশাসক আরও বলেন, জেলায় প্রতিটি ভোট কর্মীর টিকাকরণ শুরু হয়ে গিয়েছে। ইতিমধ্যেই কমবেশি ৪ হাজার ভোটকর্মী কোভিড প্রতিরোধক টিকা নিয়েছেন। এমন কি. পুলিশ কর্মীদেরও টিকা দেওয়া হচ্ছে। এছাড়াও ভোটে কোভিড গাইডলাইনকে মান্যতা দিয়ে ভোট করানো হবে। জেলার প্রতিটি বুথে সব ভোটকর্মীকেই মাস্ক ও স্যানিটাইজার ব্যবহার করতে হবে। এমন কি মিটিং মিছিলও করোনা বিধি মেনেই করতে হবে।

বাড়ি বাড়ি প্রচারে প্রার্থী সহ ৫ জন যেতে পারবেন। ইন্টারনেট পরিষেবা নেই, এমন বুথের সংখতা ৩০টি। এগুলির বেশিরভাগই পার্বত্য এলাকায়। সেইসব দুর্গম বুথে ওয়্যারলেসের সাহায্য়ে যোগাযোগ করা হবে। সেই সঙ্গে আশির ঊর্ধ্বে ভোটারদের ভোট দানে বিশেষ ব্যবস্থা নেওয়া হবে। অন্যদিকে এদিন জেলা শাসক শশাঙ্ক শেঠি আরও বলেন, চলতি বছর বিধানসভা ভোটে মূলত জেলার সীমান্তবর্তী এলাকাগুলিতে বিশেষ নজরদারির ব্যবস্থা করা হয়েছে। বিশেষ করে ভারত-,নেপাল সীনান্ত লাগোয়া এলাকা এবং ইন্দো-বাংলাদেশ সীমান্তে বাড়ানো হবে নজরদারি।

নির্বাচনের দিন সীমান্ত সিলও করা হবে। পাশাপাশি বাংলা-বিহার এবং বাংলা-সিকিম সীমান্তও কড়া নিরাপত্তা বেষ্টনীতে মুড়ে ফেলা হবে। এ দিকে নির্বাচন সুসম্পন্ন করতে আজই দুই কোম্পানি আধা সেনা এসে পৌঁছয় শিলিগুড়িতে। ১ কোম্পানি আধা সেনা রয়েছে শিলিগুড়িতে। অন্যটি বিধাননগরে। ভোটারদের মনোবল বাড়াতে কাল থেকেই স্পর্শকাতর বুথগুলিতে টহলদারি শুরু করবে আধা সেনার জওয়ানরা।

Partha Pratim Sarkar

Published by:Debamoy Ghosh
First published: