• Home
  • »
  • News
  • »
  • north-bengal
  • »
  • শিলিগুড়িতে জল সমস্যা মেটাতে মেয়র অশোক ভট্টাচার্যের প্রস্তাবে সম্মতি পঞ্চায়েতমন্ত্রীর

শিলিগুড়িতে জল সমস্যা মেটাতে মেয়র অশোক ভট্টাচার্যের প্রস্তাবে সম্মতি পঞ্চায়েতমন্ত্রীর

কাজ সুষ্ঠু ভাবে শেষ হতে দু’দিনের জায়গায় চার দিনও লাগতে পারে বলে জানিয়েছেন আধিকারিকরা।

কাজ সুষ্ঠু ভাবে শেষ হতে দু’দিনের জায়গায় চার দিনও লাগতে পারে বলে জানিয়েছেন আধিকারিকরা।

কাজ সুষ্ঠু ভাবে শেষ হতে দু’দিনের জায়গায় চার দিনও লাগতে পারে বলে জানিয়েছেন আধিকারিকরা।

  • Share this:

    #শিলিগুড়ি: শিলিগুড়িতে জলকষ্ট কাটাতে উদ্যোগী পঞ্চায়েত ও জনস্বাস্থ্য কারিগরি মন্ত্রী। মেয়র অশোক ভট্টাচার্যের প্রস্তাবকে মান্যতা দিয়ে সৌজন্যের নজির সুব্রত মুখোপাধ্যায়ের। চার দিনের পরিবর্তে দু’দিনে শিলিগুড়ির জলপ্রকল্পের কাজ শেষ করার প্রতিশ্রুতি দিলেন তিনি। আজ, বৃহস্পতিবার সমস্যা সমাধানে সর্বদল বৈঠকে বসবেন শিলিগুড়ির মেয়র।

    দিন দিন বহরে বাড়ছে শিলিগুড়ি শহর। বাড়ছে লোকসংখ্যাও। কিন্তু মান্ধাতার আমলের পাম্পিং ব্যবস্থার জন্য ভুগছে শিলিগুড়ি। জল সরবরাহ ব্যবস্থার গলদের জেরে চরম সমস্যায় বাসিন্দারা।

    জল সমস্যায় শিলিগুড়ি

    ১৯৯৯ সাল থেকে ৩টি পাম্প দিয়ে ভর্তি হয় ফুলবাড়ির রিজার্ভার সেখানেই পরিশোধন করে ৪৭টি ওয়ার্ডে সরবরাহ হয় পানীয় জল সমস্যার সূত্রপাত ২০১৬ সালে ভারত-নেপাল সীমান্ত পানি ট্যাঙ্কি থেকে ভারত বাংলাদেশ সীমান্ত ফুলবাড়ি পর্যন্ত চার লেনের মহাসড়কের কাজ শুরু হয় মহা সড়ক তৈরির সময় ফুলবাড়ির পাইপ লাইনে দেখা দেয় ফাটল এরপর থেকে বন্ধ হয়ে যায় একটি পাম্প ২টি পাম্প দিয়েই কাজ চলছিল ইদানিং ফের লাইনে ফাটলের জেরে একটি পাম্প বন্ধ করে একটি দিয়েই কাজ চালানো হচ্ছে

    শিলিগুড়ি শহরে জল সরবরাহের দায়িত্ব পুরসভার হাতে থাকলেও গোটা ব্যবস্থা দেখভাল করে জনস্বাস্থ্য কারিগরি দফতর। গত ২৪ অগাস্ট জনস্বাস্থ্য কারিগরি দফতরের মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়ের সঙ্গে দেখা করেন মেয়র অশোক ভট্টাচার্য।

    সুব্রত মুখোপাধ্যায়ের সঙ্গে বৈঠকে তাই দ্রুত প্রকল্পের কাজ শেষ করার প্রস্তাব দিয়ে ছিলেন মেয়র। এবার তাঁর প্রস্তাবকে গুরুত্ব দিয়ে আধিকারিকদের দু’দিনে কাজ সম্পূর্ন করার নির্দেশ দিয়েছেন মন্ত্রী।

    কাজ সুষ্ঠু ভাবে শেষ হতে দু’দিনের জায়গায় চার দিনও লাগতে পারে বলে জানিয়েছেন আধিকারিকরা। বিতর্ক ও সমস্যা এড়াতে গোটা বিষয়টি পুরনাগরিকদের আগেই জানানোর পরামর্শ দিয়েছেন সুব্রত মুখোপাধ্যায়।

    First published: