corona virus btn
corona virus btn
Loading

ধীরে ধীরে স্বাভাবিক হচ্ছে এনজেপি, ঘরে ফেরায় খুশি যাত্রীরা

ধীরে ধীরে স্বাভাবিক হচ্ছে এনজেপি, ঘরে ফেরায় খুশি যাত্রীরা

ধীরে ধীরে স্বাভাবিক হচ্ছে উত্তর-পূর্ব সীমান্ত রেলের প্রবেশদ্বার নিউ জলপাইগুড়ি স্টেশন।

  • Share this:

#নিউ জলপাইগুড়ি: ধীরে ধীরে স্বাভাবিক হচ্ছে উত্তর-পূর্ব সীমান্ত রেলের প্রবেশদ্বার নিউ জলপাইগুড়ি স্টেশন। প্রায় দু'মাসের ওপর বন্ধ যাত্রীবাহী ট্রেন। পণ্যবাহী ট্রেন চলাচলের পাশাপাশি ছুটছে শ্রমিক স্পেশাল একাধিক ট্রেন। আজও চারটে শ্রমিক স্পেশাল ট্রেন আসে এনজেপিতে। চেন্নাই, গোয়া, গুজরাত থেকে কয়েক হাজার পরিযায়ী শ্রমিক এসে পৌঁছয় এনজেপি স্টেশনে। কেউ পাহাড়ের বিভিন্ন প্রান্তের।  কেউ সমতলের শিলিগুড়ি, জলপাইগুড়ির বাসিন্দা। পাশাপাশি আজ এনজেপিতে আজ এল যাত্রীবাহী ট্রেনও। শিয়ালদা থেকে এসে পৌঁছয় পদাতিক এক্সপ্রেস। তবে নির্ধারিত সময়ের তিন ঘন্টা পর। অবশেষে ঘরে ফেরায় আনন্দে আপ্লুত ওরা। কেউ গিয়েছিলেন আত্মীয়ের বাড়িতে, কেউ বেড়াতে গিয়ে আটকে পড়েন কলকাতায়। তবে লকডাউনের জেরে ঘর বন্দিই ছিলেন। অবশেষে ট্রেন ছাড়ার খবর পেতেই টিকিট কেটে দে ছুট! যাত্রীরা নিজেরাই নিজেদের কোভিড প্রোটোকলে বন্দি রাখেন। ফেস শিল্ড, মাস্ক ব্যবহার করেছেন। এমনকী ঘন ঘন ব্যবহার করেছেন হ্যাণ্ড স্যানিটাইজারও। অনেকে আবার হ্যাণ্ড গ্লাভসও ব্যবহার করেছেন। তবে ট্রেনে মেলেনি কোনও খাবার বা এক কাপ চা। এক যাত্রীর অভিযোগ, ট্রেন ছাড়বার পর একাধিক স্টেশনে থামলেও একবারের জন্যেও ট্রেনের কামরাগুলো স্যানিটাইজেশন করা হয়নি। আজ আবার এনজেপি স্টেশন থেকে যাত্রী নিয়ে শিয়ালদার পথে রওনা দেয় পদাতিক এক্সপ্রেস। দূরপাল্লার একাধিক ট্রেনও চলছে। তবে শিয়ালদা ও এনজেপির মধ্যে রেল পথে যোগাযোগে একমাত্র পদাতিকই চলবে। অন্য ট্রেনগুলো  আপাতত চলবে না বলে উত্তর-পূর্ব সীমান্ত রেল সূত্রে জানা গিয়েছে। অন্যদিকে শ্রমিক স্পেশাল ট্রেনে আসা পরিযায়ী শ্রমিকেরা জানায়, গতকাল ভাত, ডাল, সবজি মেলেনি। স্রেফ বিস্কুটের প্যাকেট আর জ্যুস! তাছাড়া আর কোনো অসুবিধে হয়নি। ভিন রাজ্যে যেখানেই ওরা কাজ করতো, আপাতত নোটিশ দিয়ে ছাড়িয়ে দিয়েছে। কর্মহীন হয়ে পড়লেও বাড়ি ফিরতে পাওয়ায় স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলেছে ওরা। আপাতত হোম কোয়ারেন্টাইনেই থাকবেন ১৪ দিন। এদিন পরিযায়ীদের স্টেশনেই থার্মাল চেকিং করা হয়।

Published by: Akash Misra
First published: June 2, 2020, 6:08 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर