লকডাউন ভাঙার অভিযোগে এক সবজি বিক্রেতাকে বেধড়ক মারধর চাকুলিয়া থানার পুলিশের

পুলিশের কাজে বাধা দেওয়া এবং লকডাউন ভাঙার অভিযোগে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

পুলিশের কাজে বাধা দেওয়া এবং লকডাউন ভাঙার অভিযোগে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

  • Share this:

চাকুলিয়া, উত্তর দিনাজপুর: লকডাউন না মানায় উত্তর দিনাজপুর জেলার চাকুলিয়া থানার জনতা হাটে মঙ্গলবার এক সবজি বিক্রেতাকে বেধড়ক মারধর করে  পুলিশ। পুলিশের কাজে বাধা দেওয়া এবং লকডাউন ভাঙার অভিযোগে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে রাজ্য সরকার রাজ্যে প্রায় লকডাউন ঘোষণা করেছে। সকাল ১০ টা পর্যন্ত বাজার খোলা রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। সরকারি নির্দেশ কার্যকরি করতে উত্তর দিনাজপুর জেলার পুলিশ জেলাতে সক্রিয় রয়েছে। রায়গঞ্জ জেলার পুলিশ সুপার সুমিত কুমার পুলিশ অফিসারদের নিয়ে সকালে রায়গঞ্জ শহরে রুট মার্চ করেন। ইসলামপুর পুলিশ জেলাতেও ছিল সক্রিয়। ইসলামপুর বাজারে শাটার নামিয়ে এক সোনার দোকান বেচাকেনা চালিয়ে যাবার অভিযোগে মালিক এবং দুই ক্রেতাকে গ্রেফতার করা হয়।

চাকুলিয়া থানা এলাকায় প্রতি মঙ্গলবার জনতা হাট বসে। অন্য মঙ্গলবারে মতো আজও সেখানে হাট বসার প্রস্তুতি নিয়েছিল ক্রেতা এবং বিক্রেতারা। যেখানে বেশি জমায়েত হয় যেমন হাট-সহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। চাকুলিয়ার জনতা হাট চালু হবওয়ার খবর পেয়ে চাকুলিয়া থানার পুলিশ সেখানে অভিযানে যায়। চাকুলিয়া থানার পুলিশ সেখানে পৌঁছতেই বেশ কিছু ব্যবসায়ীরা দোকানপাট গুটিয়ে ফেলার প্রস্তুতি নিলেও এক সবজি ব্যবসায়ী পুলিশের নির্দেশকে উপেক্ষা করেই দোকান খুলছিলেন।

তার মুখে ছিল না মাস্ক। পুলিশের বারণ করা সত্ত্বেও দোকান চালুর প্রস্তুতি নেওয়ায় পুলিশ তাকে আটক করে গাড়িতে তোলার চেষ্টা চালায়। পুলিশ তাকে নিয়ে যেতে গেলে বাধার সম্মুখীন হন। তখনই পুলিশ তাকে বেধড়ক মারধোর করে গাড়িতে তোলে বলে অভিযোগ। এই ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়। এদিন লকডাউন সফল করতে সকাল থেকেই পুলিশ রাস্তায় নামে। রাস্তায় বেরনো ব্যক্তিদের দাঁড় করিয়ে  জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।নির্দিষ্ট কারণ ছাড়া কেউ রাস্তায় ঘোরাঘুরি করলে তাদের বাড়ি পাঠিয়ে দেওয়া হয়।

Uttam Paul

Published by:Siddhartha Sarkar
First published: