Dhupguri Migrant Labour's Death|| কেরলের উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছিলেন, বাড়ি সংলগ্ন পুকুর থেকে পরিযায়ী শ্রমিকের দেহ উদ্ধার

Migrant Labour's Death: জলাশয় থেকে উদ্ধার পরিযায়ী শ্রমিকের (Migrant Labour) মৃতদেহ। ধূপগুড়ি (dhupguri) কলেজপাড়ার বাসিন্দা ওই যুবক শুক্রবার কেরলে (Kerala) কাজ করতে যাওয়ার জন্য বেরিয়েছিলেন।

Migrant Labour's Death: জলাশয় থেকে উদ্ধার পরিযায়ী শ্রমিকের (Migrant Labour) মৃতদেহ। ধূপগুড়ি (dhupguri) কলেজপাড়ার বাসিন্দা ওই যুবক শুক্রবার কেরলে (Kerala) কাজ করতে যাওয়ার জন্য বেরিয়েছিলেন।

  • Share this:

    #ধূপগুড়ি: জলাশয় থেকে উদ্ধার পরিযায়ী শ্রমিকের (Migrant Labour)  মৃতদেহ। ধূপগুড়ি (dhupguri) কলেজপাড়া এক নম্বর ওয়ার্ডের চাকলা পাড়ার বাসিন্দা ওই যুবক শুক্রবার কেরলে (Kerala) কাজ করতে যাওয়ার জন্য বেরিয়েছিলেন। এরপর আজ সকাল বাড়ি সংলগ্ন একটি পুকুর থেকে তাঁর মৃতদেহ উদ্ধার (Dead Body recover) করে ধূপগুড়ি থানা পুলিশ। মর্মান্তিক এই ঘটনায় রীতিমত চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে গোটা এলাকায়।

    স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছেন, শুক্রবার দুপুর বারো'টা নাগাদ বাড়ি থেকে ভিন রাজ্যে কাজ করতে যাওয়ার জন্য বেরিয়েছিল সে। স্টেশনে দিয়ে আসেন পরিবারের সদস্যরা। স্বাভাবিকভাবেই আর কোনও খোঁজখবর নেননি কেউ। এরপর আজকে সকালে এলাকার বাসিন্দারা বাড়ির পাশে এক্টির পুকুরের ওপরের কালভার্টে একটি ব্যাগ, চটি এবং চিঁড়ের প্যাকেট দেখতে পায়। সন্দেহ হওয়ায় স্থানীয় এক যুবক পুকুরে নামেন তল্লাশির জন্য। তখনই এ দিন সকালে বাড়ির পাশে এক কালভার্টের তলা থেকে উদ্ধার হয় একটি দেহ। এলাকায় খবর ছড়িয়ে পরতেই ছুটে আসেন সকলে। এরপর এই প্রতিবেশী এক ব্যক্তি শনাক্ত করেন বিকাশ রায়ের ব্যাগ, যেটি কার্লভাটের ওপরে রাখা ছিল। মৃত ব্যক্তির নাম বিকাশ রায় (৩৪)। কেরলের উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছিলেন তিনি।

    রায় পরিবারের তরফে জানা গিয়েছে, গতবছর লকডাউনে কর্মহীন হয়ে বাড়ি ফিরে আসেন বিকাশ। এরপর বাড়িতে থেকে বিভিন্ন জায়গায় দিন মজুরের কাজ করছিলেন। কখনও সুপারি পেরে দেওয়ার কাজ, কখনও হিমঘরে আলু বাছাই আবার কখনও আলু তোলার কাজ করছিলেন। কিন্তু এইভাবে সংসার চালানো দুর্বিষহ হয়ে উঠেছিল। তারপরেই কেরলে কাজ করতে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। তবে বিকাশের মৃত্যু নিছকই কোনও দুর্ঘটনা, নাকি খুন নাকি আত্মহত্যা করেছেন তিনি, তা স্পষ্টও নয়। দেহ ময়না তদন্তে পাঠানো হয়েছে। শোকে কাতর পরিবার।

    Published by:Shubhagata Dey
    First published: