তৃণমূলে ফিরতে চেয়ে আবেদন মালদহের আরও এক জেলা পরিষদ সদস্যের, ক্ষমা চেয়ে দলকে চিঠি

মালদহ জেলা পরিষদে আরও বিপাকে বিজেপি। জেলা পরিষদ সদস্যকে ফিরিয়ে নেওয়া হলে সদস্য সংখ্যা বাড়বে তৃণমূলের।

মালদহ জেলা পরিষদে আরও বিপাকে বিজেপি। জেলা পরিষদ সদস্যকে ফিরিয়ে নেওয়া হলে সদস্য সংখ্যা বাড়বে তৃণমূলের।

  • Share this:

#মালদহ: ফের তৃণমূলের ফিরতে চেয়ে আবেদন। এবার দলে ফেরার লিখিত আবেদন জানালেন মালদহ জেলা পরিষদের সদস্য ডলি রানী মন্ডল। "ভুল বুঝে বিজেপিতে যোগ দিয়েছিলাম। আমার এই সিদ্ধান্ত চরম ভুল ছিল। আমাকে ক্ষমা করে পুনরায় দলে ফিরিয়ে মানুষের জন্য কাজ করার সুযোগ দিন", আবেদন পত্রে লিখলেন বিজেপি থেকে তৃণমূলে ফিরতে আগ্রহী মালদহ জেলা পরিষদের সদস্য।

মালদহের মানিকচকের ভূতনিতে জেলা পরিষদের ২৩ নম্বর আসনে তৃণমূলের টিকিটে জেতেন ডলি রানী মন্ডল। এরপর গত ৮ মার্চ মালদহ জেলা পরিষদের সভাধিপতি গৌড় চন্দ্র মন্ডলের নেতৃত্বে কলকাতায় বিজেপির সদর দফতরে গিয়ে গেরুয়া শিবিরের যোগ দেন। এখন দলে ফিরতে চেয়ে আবেদন করেছেন তিনি। জেলা সভাপতি এবং মানিকচকের দলীয় বিধায়ককে আবেদনপত্র পাঠিয়েছেন, দাবি  জেলা পরিষদ সদস্যের। বিজেপিতে যোগ দেওয়ার জন্য ক্ষমাও চেয়েছেন জেলা পরিষদ সদস্য।

এর ফলে মালদহ জেলা পরিষদে আরও বিপাকে বিজেপি। জেলা পরিষদ সদস্যকে ফিরিয়ে নেওয়া হলে সদস্য সংখ্যা বাড়বে তৃণমূলের। তৃণমূলের মালদা জেলা সভাপতি রাজ্যসভার সাংসদ মৌসম বেনজির নূর জানান, ডলি রানী মন্ডলের আবেদনপত্র জমা পড়েছে। যাঁরা দলে ফিরে আসতে চান তাঁদের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেবে রাজ্য নেতৃত্ব।

আরও পড়ুন "বিজেপি ছেড়ে কেউ ফের তৃণমূলে যোগ দিলে কোনও প্রভাব দলে পড়বে না," সায়ন্তন বসু

উল্লেখ্য, দিন কয়েক আগেই বিজেপি থেকে তৃণমূলে ফিরতে চেয়ে আবেদন জানান মালদা জেলা পরিষদের সদস্য সরলা মুর্মু। একে একে বিজেপিতে যোগ দেওয়া সদস্যরা প্রত্যাবর্তনের ইচ্ছা প্রকাশ করায় মালদা জেলা পরিষদের সংখ্যাগরিষ্ঠতার দিকে এগোচ্ছে তৃণমূল । সরকার বদল হয়েছে, তৃণমূল চাপ সৃষ্টি করছে। আর এজন্যই ডলি রানী মন্ডলের মতো নেতারা তৃণমূলে যাওয়ার কথা লিখছেন। এটা ওদের স্বতঃস্ফূর্ত মত নয়। জেলা পরিষদে অনাস্থা এলে আমরা সময়মতো সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রমাণ করে দেখাবো, পাল্টা বললেন বিজেপি মালদা জেলার সভাপতি গোবিন্দ চন্দ্র মন্ডলের। জেলা পরিষদ বিজেপির দখলে থাকবে বলে এদিন ফের একবার দাবি বিজেপির ।

Published by:Pooja Basu
First published: