চা বাগানের খালে পড়ে মৃত্যু বাড়ছে হাতিদের, চিন্তা বিশেষজ্ঞদের

চা বাগানের খালে পড়ে মৃত্যু বাড়ছে হাতিদের, চিন্তা বিশেষজ্ঞদের

শুধু আসামে এক বছরে প্রায় 100 টার কাছাকাছিি হাতির অস্বাভাবিক মৃত্যুু হয়। তার মধ্যে অন্যতম কারণ হলো এই খালগুলি

  • Share this:

#শিলিগুড়ি:  চা বাগান যেন মারণফাঁদ ৷ উত্তরবঙ্গে চা বাগানের ঢালে পড়ে মৃত্য়ু বাড়ছে হাতিদের ৷ চিন্তা বাড়ছে প্রাণী বিশেষজ্ঞদের ৷

দেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চলে পাহাড়ের ঢাল বরাবর রয়েছে প্রচুর চা বাগান ৷ চা উৎপানের প্রথম স্থানে চিন ৷ তারপরেই রয়েছে ভারত ৷  গাছের গোড়ায় যাতে জল জমতে না পারে, সেজন্য় চা গাছের জন্য় দরকার পড়ে ঢালু জমির ৷ পাশাপাশি চা বাগানের কর্মীরা বাগানের বিভিন্ন জায়গায় ট্রেঞ্চ বা খাল কেটে রাখেন, যাতে বাগানের জমিতে কোনওভাবেই জল না জমে ৷

কিন্তু সেই বাগানই ক্রমেই বিপদের কারণ হচ্ছে উত্তরবঙ্গের হাতিদের জন্য় ৷  কোথায় চা বাগান, কোথায় রাস্তা ৷ সেটা তাদের পক্ষে বোঝা সম্ভব নয় ৷  কোথাও তাড়া খেয়ে ৷ আবার কখনও দলছুট হয়ে চা বাগানে ঢুকে পড়ছে হাতির দল ৷ তখনই পালাতে গিয়ে বেকায়দায় পড়ছে খালের মধ্য়ে ৷ খালে আটকে থাকা হাতিকে কখনও উদ্ধার করা প্রায় অসম্ভব হয়ে উঠছে ৷ চা বাগান কর্মীরা তো বটেই ৷ হাতি উদ্ধার করতে গিয়ে রীতিমতো নাজেহাল হচ্ছে বন দফতর ৷ তখন প্রায় অসহায়  হয়ে মৃত্য়ু হচ্ছে হাতির ৷

বন্যপ্রাণী বিশেষজ্ঞ জয়দীপ কুণ্ডু বলেছেন "শুধু অসমে এক বছরে প্রায় ১০০-র কাছাকাছি হাতির মৃত্য়ু হয়েছে ৷ মৃত্য়ুর অন্যতম কারণ এই খালগুলি।" আপাতত উদ্য়োগের তাকিয়ে বিশেষজ্ঞরা ৷ সরকারি-বেসরকারি ৷ দুই উদ্য়োগকেই স্বাগত জানাচ্ছেন তাঁরা ৷ আর্জি একটাই, বাঁচাতেই হবে হাতি ৷

SHALINI DUTTA

First published: January 28, 2020, 8:25 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर