নানা রঙে রঙীন ভারতবর্ষ, থ্রি-ডি এফেক্টে সেজে উঠছে আলিপুর সর্বজনীন

রঙের আমি রঙের তুমি । রঙ দিয়ে যায় চেনা । তা হয়ত আদপে নয়। তবে রঙ দিয়ে বেশ চেনা যায় আমাদের এই রঙীন দেশকে।

রঙের আমি রঙের তুমি । রঙ দিয়ে যায় চেনা । তা হয়ত আদপে নয়। তবে রঙ দিয়ে বেশ চেনা যায় আমাদের এই রঙীন দেশকে।

  • Share this:

    #আলিপুরদুয়ার: রঙের আমি রঙের তুমি । রঙ দিয়ে যায় চেনা । তা হয়ত আদপে নয়। তবে রঙ দিয়ে বেশ চেনা যায় আমাদের এই রঙীন দেশকে। এককথায়, বিশ্বের ক্ষুদ্র সংস্করণ। সেই দেশ এবার সত্তর পেরিয়ে একাত্তরতম বছরে পা দিল। সে কথা মাথায় রেখে সত্তরতম বছরে আস্ত ভারতবর্ষকেই থিম হিসেবে বেছে নিয়েছে আলিপুর সর্বজনীন দুর্গোৎসব কমিটি।

    গেরুয়া , লাল বা সবুজ। এ ধরণের রঙ নয়। এ রঙ প্রাণের। এ রঙ প্রেমের। ঐক্য ও সাম্যের রঙ। যে রঙকে কেন্দ্র করে আজ এত হানাহানি , এত অশান্ত পরিবেশ সেই রঙেই সমস্ত দেশ ও দেশবাসীকে এক চিলতে মুক্ত আকাশের স্বপ্ন দেখাচ্ছেন শিল্পী অনির্বাণ ।

    কাপড়ের কোলাজে কখনও উঠে আসছে রাজস্থান। কখনও বেনারসের গঙ্গার ঘাট। কখনও তাজমহল। তো কখনও জগন্নাথধাম। কোথাও শান্তি বাণী নিয়ে থাকছেন স্বয়ং গৌতম বুদ্ধ। তো কখনও যোদ্ধারূপী রাবণরাজ। বিবিধের মাঝে এভাবেই মিলন ঘটেছে এই ভারতেই । সেটাই তুলে ধরা হচ্ছে আলিপুরের পুজোর সাজে। সবেতেই থাকছে থ্রিডি এফেক্ট।

    প্রতিমা সাবেকি। দুর্গাপুজো শুধুই অসুর নিধন নয়। দুর্গাপুজোর সঙ্গে জড়িত রামায়ণও। এ কথা মাথায় রেখেই পঞ্চাশ ফুটের দশানন বিরাজমান মণ্ডপ প্রাঙ্গনে।

    এ দেশ আমাদের শিক্ষা দেয় সহলশীলতার। শিক্ষা দেয় ঐক্যের। বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন উপায়ে কখনও ধর্মে, কখনও জাতি, কখনও আবার ভাষার নিরিখে ভাগ করার চেষ্টা হয়েছে বিচিত্র এই ভূমিকে। তবে এই প্রাণের রঙ-ই হতে দেয়নি সেই বাটোয়ারা। আলিপুর সর্বজনীন এবার সেই ভাবনার রঙেই রআদ্যন্ত রঙীন।

    First published: