Home /News /north-bengal /
মালদহের একই পরিবারের ৩ জন খুন, ঘটনায় সিআইডি তদন্তের নির্দেশ

মালদহের একই পরিবারের ৩ জন খুন, ঘটনায় সিআইডি তদন্তের নির্দেশ

মালদহে ব্যবসায়ী খুনের ঘটনায় সিআইডি তদন্তের নির্দেশ দিল রাজ্য সরকার। শুক্রবার সকালে এলাকার পরিচিত ও প্রতিষ্ঠিত রামরতন আগরওয়ালের বাড়ি থেকে তাঁর এবং তাঁর স্ত্রী মঞ্জু আগরওয়ালের রক্তাক্ত দেহ উদ্ধার হয় ৷

  • Pradesh18
  • Last Updated :
  • Share this:

    #মালদহ:  মালদহে ব্যবসায়ী খুনের ঘটনায় সিআইডি তদন্তের নির্দেশ দিল রাজ্য সরকার।  শুক্রবার সকালে এলাকার পরিচিত ও প্রতিষ্ঠিত রামরতন আগরওয়ালের বাড়ি থেকে তাঁর এবং তাঁর স্ত্রী মঞ্জু আগরওয়ালের রক্তাক্ত দেহ উদ্ধার হয় ৷ বাড়ির কেয়ারটেকার গণেশেকেও নৃশংসভাবে খুন করা হয়েছে ৷ ঘটনাটি ঘটেছে মালদহের বিবেকানন্দপল্লিতে ৷

    একই কায়দায় খুন ব্যবসায়ী, তাঁর স্ত্রী ও বাড়ির কেয়ারটেকার। বাড়ির বিভিন্ন জায়গা থেকে মিলেছে ব্যবসায়ী রামরতন আগরওয়াল, স্ত্রী মঞ্জু আগরওয়াল ও বাড়ির কেয়ারটেকার গণেশ রামের রক্তাক্ত দেহ। পরিকল্পনা করে খুন বলে প্রাথমিক অনুমান পুলিশের। তদন্তের কথা জানিয়েছেন এডিজি আইন শৃঙ্খলা অনুজ শর্মা।

    পুলিশের প্রাথমিক অনুমান, বৃহস্পতিবার গভীর রাতে গুলি করার পর ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে ওই তিনজনকে হত্যা করা হয়েছে ৷ ব্যবসায়ী ও সমাজসেবী হিসেবে পরিচিত রামরতন আগরওয়ালের খুনের ঘটনায় উত্তেজনা ছড়ায় এলাকায় ৷ পুলিশের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ দেখান এলাকাবাসীরা ৷ ব্যবসায়ী খুনের প্রতিবাদে ৩৪ নং জাতীয় সড়ক অবরোধ করে এলাকাবাসী ৷ ৭২ ঘণ্টার মধ্যে খুনী ধরা না পড়লে জেলা জুড়ে ব্যবসা বনধ ডাকার হুমকি দিয়েছেন ব্যবসায়ী সমিতি ৷ আগামিকাল এলাকার সব দোকান বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ব্যবসায়ী সংগঠন ৷

    প্রতিদিনের মত মালদহে বিবেকানন্দ পল্লির বাড়িতে দুধ দিতে আসেন রঘু। ধাক্কা দিতেই খুলে যায় সদর দরজা। সামনেই সিঁড়ির উপর উপুড় হয়ে পড়ে বাড়ির মালিক রামরতন আগরওয়ালের দেহ। চারদিক ভেসে যাচ্ছে রক্তে। পাশেই রামরতনের ভাইয়ের বাড়িতে খবর দেন রঘু। বাড়ির মধ্যে থেকে উদ্ধার হয় তিনজনের রক্তাক্ত দেহ।

    বাড়ির সদর দরজা দিয়ে ভিতরে ঢুকে বারান্দা ও সিঁড়ির মাঝে উপুড় হয়ে পড়ে বাড়ি মালিক, ব্যবসায়ী রামরতন আগরওয়ালের দেহ। তার ঠিক এক হাত দূরে চার চাকা একটি গাড়ির পাশেই একই কায়দায় উপুড় হয়ে পড়ে কেয়ারটেকার গণেশ রামের দেহ। সিঁড়ি দিয়ে উপরে উঠে দেখা যায় ল্যান্ডিং-য়ে পড়ে রামরতনের স্ত্রী মঞ্জু আগরওয়ালের রক্তাক্ত দেহ।

    দোতলার শোওয়ার ঘরে তখনও ঢাকা দেওয়া রয়েছে রাতের খাবার । সিঁড়ি রেলিং-য়ে ভাঁজ করে রাখা প্যান্টে লেগে রয়েছে রক্তের দাগ। শোওয়ার ঘরে ও ডাইনিং রুমে বেশ কয়েকটি আলমারি লন্ডভন্ড হয়ে রয়েছে। মাটিতে পড়ে একাধিক গয়নার বাক্স। উধাও সমস্ত গয়না।

    ডাকাতির উদ্দেশ্যে পরিকল্পনা করেই খুন বলে পুলিশের প্রাথমিক অনুমান। অথচ রামরতন আগরওয়ালের পকেটে ছিল টাকাভর্তি মানিব্যাগ ৷ হাতে ছিল দামি ঘড়ি ৷ দেহের পাশে পড়েছিল দামী মোবাইল ৷ এই ব্যাপারে তৈরি হয়েছে ধন্দ ৷ ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকায়।

    পুলিশ কুকুর এনে শুরু হয়েছে তদন্ত। ঘটনায় সিআইডি তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে রাজ্য সরকার। ব্যবসায়ীর বাড়ির উল্টোদিকের বাড়ির সিসিটিভি ফুটেজ খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

    মালদার প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ী রামরতন আগরওয়ালের একটি ইঁটভাঁটা রয়েছে ৷ সমাজসেবী হিসেবে এলাকায় সুনাম ছিল তাঁর ৷ মৃত ব্যবসায়ীর তিন মেয়ে রয়েছে ৷

    First published:

    Tags: Business Man Family Murdered, CID Investigation, Maldah, Maldah Business Man Murdered, Murdered

    পরবর্তী খবর