Home /News /north-bengal /
North Bengal News: ছেলে ও মেয়েকে কীটনাশক খাইয়ে, নিজে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মঘাতী মা

North Bengal News: ছেলে ও মেয়েকে কীটনাশক খাইয়ে, নিজে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মঘাতী মা

ঘটনায় তিনজনকে ধূপগুড়ি গ্রামীণ হাসপাতালে নিয়ে আসা হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মা ও মেয়েকে মৃত ঘোষণা করেন

  • Share this:

    #ধূপগুড়ি: ছেলে ও মেয়েকে কীটনাশক খাইয়ে, নিজে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মঘাতী মা। ঘটনায় তিনজনকে ধূপগুড়ি গ্রামীণ হাসপাতালে নিয়ে আসা হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মা ও মেয়েকে মৃত ঘোষণা করেন। অন্যদিকে ছেলেটির অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে জলপাইগুড়ি সদর হাসপাতালে রেফার করা হয়েছে।

    আরও পড়ুন: উত্তরবঙ্গ সফরে মুখ্যমন্ত্রী! হামরো পার্টির সঙ্গে বৈঠক? পাহাড়ের রাজনীতি নিয়ে আগ্রহ তুঙ্গে

    জানা গিয়েছে, জলপাইগুড়ি জেলার শেষ প্রান্ত কোচবিহার জেলার মাথাভাঙ্গা মহকুমার ক্ষেতি-ফুলবাড়ি এলাকার বাসিন্দা আরতী মণ্ডল। তাঁর স্বামী রণজিৎ মণ্ডল কর্মসূত্রে ভিনরাজ্যে থাকেন। এক ছেলে ও মেয়েকে নিয়ে বাড়িতে থাকেন আরতি দেবী। তাঁদের বাড়িতে প্রায়শই আসেন পাশেই থাকা আরতি দেবীর সম্পর্কে ঠাকুমা নমিতা বালা বিশ্বাস। কিন্তু সোমবার দুপুরে নাতনির বাড়িতে এসে চক্ষু চড়কগাছ ঠাকুমার। নমিতা বালা বিশ্বাস ঘরে ঢুকে দেখেন, গলায় ফাঁস লাগিয়েছেন নাতনি আরতি। মেঝেতে পড়ে রয়েছে তাঁর দুই সন্তান। এরপর নমিতা দেবী পাড়া প্রতিবেশীদের ডাকাডাকি করলে তাঁরা এসে তিনজনকে ধূপগুড়ি গ্ৰামীণ হাসপাতালে নিয়ে যান। পরীক্ষার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক মা আরতি মণ্ডল (২২) ও ২ বছরের মেয়ে প্রিয়া মণ্ডলকে মৃত ঘোষণা করেন। ছেলে কৌশিক মণ্ডলের শারীরিক অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে জলপাইগুড়ি সদর হাসপাতালে রেফার করা হয়।

    আরও পড়ুন: প্রিয় জামাইকে বাঁধা হল গাছের সঙ্গে! বিস্ফোরক অভিযোগ তুলল শ্বশুরবাড়ি

    অন্যদিকে, ২ দিন আগেই ধূপগুড়ি সুপার মার্কেটে (Dhupguri supermarket) আচমকাই বিধ্বংসী আগুন লাগে। আগুনে ভস্মীভূত হয়ে যায় প্রায় ১২ টি দোকান। গুরুতর জখম হন ৪ জন, যার মধ্যে একজন সংবাদকর্মীও ছিলেন।  আহত সাংবাদিকের নাম কৌস্তুভ ভৌমিক। ১৯ মার্চ সন্ধ্যাবেলা আচমকাই সুপার মার্কেটে রেগুলেটেড মার্কেট কমিটির অফিসের পাশে থাকা দোকানে দাউ দাউ করে আগুন জ্বলতে দেখেন সেখানকার ব্যবসায়ীরা। প্রথমে আশপাশের বাসিন্দারা বুঝতেই পারেনি আগুনের বিষয়টি। ফাঁকা নিরিবিলি জায়গার মধ্যে দোকানগুলি ছিল। যখন এক এক করে তিনটি গ্যাসের সিলিন্ডার ফেটে বিকট শব্দে গোটা এলাকা কেঁপে ওঠে, তখন আশপাশের বাসিন্দা এবং দোকানদাররা বুঝতে পারেন, আগুন লেগেছে সুপার মার্কেটে। নিমেষের মধ্যে আগুনের লেলিহান শিখা দেখতে পান অন্যান্য বাসিন্দারা। পরে সকলে ভিড় জমান সুপার মার্কেটে (Dhupguri supermarket)। ধূপগুড়ি দমকল বিভাগের কর্মীদের দমকলের দুটি ইঞ্জিন ঘটনাস্থলে ছুটে আসে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসে ধূপগুড়ি থানার আইসি সুজয় তুঙ্গা।

    Rocky Chowdhury

    Published by:Rukmini Mazumder
    First published:

    Tags: Dhupguri

    পরবর্তী খবর