নদীর জলে চোখরাঙানি, উত্তরবঙ্গে বন্যা পরিস্থিতি ঘোরালো

নদীর জলে চোখরাঙানি, উত্তরবঙ্গে বন্যা পরিস্থিতি ঘোরালো

নদীর জলে চোখরাঙানি, উত্তরবঙ্গে বন্যা পরিস্থিতি ঘোরালো

  • Share this:

#জলপাইগুড়ি: বৃষ্টি কমলেও, নদীর জলের তোড়ে উত্তরবঙ্গে বন্যা পরিস্থিতি ঘোরালো। দক্ষিণ দিনাজপুর, রায়গঞ্জ ও মালদহে বন্যা পরিস্থিতি আচমকা খারাপ হয়েছে। বিধ্বংসী চেহারা নিয়েছে এলাকার নদীগুলি। আচমকা বাঁধ ভেঙে নতুন করে বেশ কিছু এলাকায় জল ঢুকেছে। বন্যার দোসর হিসেবে মালদহে ভয়াবহ চেহারা নিয়েছে গঙ্গার ভাঙন। এর মধ্যেই অবশ্য আলিপুরদুয়ার, জলপাইগুড়ি ও কোচবিহারে পরিস্থিতির উন্নতি হয়েছে।

দক্ষিণ দিনাজপুর

গোটা জেলা জুড়ে বন্যা পরিস্থিতি। বাংলাদেশে বৃষ্টির জেরে ভয়ঙ্কর চেহারা নিয়েছে আত্রেয়ী। জল বাড়ছে টাঙন নদীরও। একইসঙ্গে বিপজ্জনক চেহারা পুনর্ভবা নদীরও। ফলে বালুরঘাট, গঙ্গারামপুর, কুমারগঞ্জ, হরিরামপুর, বংশিহারী, কুশমণ্ডি এলাকার পরিস্থিতি খারাপ হয়েছে। বাইশ বছর পর জেলায় বন্যা পরিস্থিতি দেখা দিয়েছে। ইতিমধ্যেই চার জনের মৃত্যু হয়েছে। বংশীহারীতে টাঙন নদীর বাঁধ ভেঙে কুড়িটি গ্রাম প্লাবিত। গঙ্গারামপুরের বেলবাড়ি এলাকায় ক্ষতিগ্রস্ত রেলপথ। ত্রাণ না পেয়ে ক্ষোভ ছড়ায় বিভিন্ন এলাকায়।

উত্তর দিনাজপুর

তিস্তা ও মহানন্দার জলে ফুঁসছে কুলিক নদী। চরম বিপদসীমার ওপর দিয়ে বইছে গামারি ও নাগর নদী। তার জেরে রায়গঞ্জ মহকুমায় বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হয়েছে। কুলিক নদীর ওপর এলেঙ্গা বাঁধ ভেঙে যাওয়ায় নতুন করে প্লাবিত বিস্তীর্ণ এলাকা। জল ঢুকেছে রায়গঞ্জ শহরেও। ইসলামপুরে অবশ্য পরিস্থিতির উন্নতি হয়েছে। করণদিঘিতে নিখোঁজ তিন জনের দেহ উদ্ধার হয়েছে।

Loading...

মালদহ

মালদহে বন্যা পরিস্থিতির সঙ্গে বিপজ্জনক হয়ে উঠেছে গঙ্গার ভাঙন ৷ মানিকচকের রাজকুমারটোলা, কেশবটোলায় তীব্র হয়েছে ভাঙন সমস্যা। ভূতনিতে গঙ্গার রিং বাঁধের কাছে বইছে গঙ্গা নদী। কালিয়াচক ৩ নম্বর ব্লকের পার লালপুরে আড়াই কিলোমিটার এলাকা জুড়ে ভাঙন দেখা দিয়েছে। প্রাচীন গোবিন্দ মন্দির ও বিদ্যালয় ভাঙনের মুখে। অনুপনগরেও ভয়াবহ আকার নিয়েছে ভাঙন। শুরু হয়েছে ভাঙন রোধের কাজ।

বিহারে বৃষ্টির জেরে বিধ্বংসী চেহারা নিয়েছে ফুলহার। তার জেরে প্লাবিত হরিশ্চন্দ্রপুর ১ ও ২ নম্বর ব্লকের বিস্তীর্ণ এলাকা। কয়েকটি জায়গায় বাঁধ ভেঙে পরিস্থিতি আরও খারাপ হয়েছে।

মহানন্দার জলে প্লাবিত চাঁচোল ১ ও ২ নম্বর ব্লকের বহু এলাকা। প্লাবিত হয়েছে ইংরেজবাজার ও পুরাতন মালদহের বেশ কয়েকটি ওয়ার্ডও।

দক্ষিণ দিনাজপুর লাগোয়া বামনগোলার কয়েকটি এলাকায় বন্যা পরিস্থিতি দেখা দিয়েছে। ত্রাণ নিয়ে ক্ষোভ ছড়িয়েছে এলাকায়।

আলিপুরদুয়ার

এলাকায় সার্বিকভাবে পরিস্থিতির উন্নতি হয়েছে। তবে চরতোর্সা নদীর সেতু ভেসে যাওয়ায় আলিপুরদুয়ার ও ফালাকাটার মধ্যে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন।

জলপাইগুড়ি

সার্বিক ভাবে এলাকার পরিস্থিতির উন্নতি হয়েছে। তবে কুমলাই নদীর বাঁধ ভেঙে প্লাবিত ধূপগুড়ির বারোঘরিয়ার দক্ষিণ ডাঙাপাড়া। এলাকার তিনটি গ্রাম বিচ্ছিন্ন। আতঙ্কে বহু মানুষ ঘর ছাড়ছেন।

কোচবিহার

তোর্সা, মানসাই, কালজানি, রায়ডাক নদীর জল কমতে শুরু করেছে। ফলে, কোচবিহারের পরিস্থিতির অনেকটা উন্নতি হয়েছে। এক এক করে ঘরে ফিরছেন বহু মানুষ।

First published: 06:16:49 PM Aug 15, 2017
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर