• Home
  • »
  • News
  • »
  • north-bengal
  • »
  • সভাধিপতি নেই মালদহ জেলা পরিষদের খসড়া বাজেট পেশ ঘিরে তুমুল বিতর্ক, সভা বয়কট বিজেপির

সভাধিপতি নেই মালদহ জেলা পরিষদের খসড়া বাজেট পেশ ঘিরে তুমুল বিতর্ক, সভা বয়কট বিজেপির

পাঁচ মাসেরও বেশি সময় ধরে শূন্য সভাধিপতির আসন। ৩৬৯ কোটি টাকার বাজেট পেশ।তৃণমূল পরিচালিত জেলা পরিষদের বাজেট সভা "অবৈধ" বলে দাবি জেলা বিজেপি নেতৃত্বের।

পাঁচ মাসেরও বেশি সময় ধরে শূন্য সভাধিপতির আসন। ৩৬৯ কোটি টাকার বাজেট পেশ।তৃণমূল পরিচালিত জেলা পরিষদের বাজেট সভা "অবৈধ" বলে দাবি জেলা বিজেপি নেতৃত্বের।

পাঁচ মাসেরও বেশি সময় ধরে শূন্য সভাধিপতির আসন। ৩৬৯ কোটি টাকার বাজেট পেশ।তৃণমূল পরিচালিত জেলা পরিষদের বাজেট সভা "অবৈধ" বলে দাবি জেলা বিজেপি নেতৃত্বের।

  • Share this:

#মালদহ: পাঁচ মাসেরও বেশি সময় ধরে সভাধিপতি শূন্য মালদহ জেলা পরিষদ। এবার সভাধিপতি হীন জেলা পরিষদে "খসড়া বাজেট" পেশ নিয়ে বিতর্কে জড়ালো বিজেপি ও তৃণমূল। আজ, মালদহ জেলা পরিষদের খসড়া বাজেট পেশের সাধারণ সভা ডাকা হয়। বৈঠকের বৈধতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে সভা বয়কট করে বিজেপি। শুধু তাই নয়, তৃণমূল পরিচালিত জেলা পরিষদের বাজেট সভা "অবৈধ" বলে দাবি জেলা বিজেপি নেতৃত্বের। যদিও তৃণমূলের পাল্টা দাবি, সহকারি সভাধিপতির নেতৃত্বে বাজেট প্রক্রিয়া হয়েছে। এক্ষেত্রে আইনগত কোনও সমস্যা নেই। পাল্টা বিজেপির অবস্থান নিয়ে প্রশ্ন তুলে সরব হয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস।

দীর্ঘদিন ধরেই সভাধিপতি পদ শূন্য মালদা জেলা পরিষদে। বিধানসভা ভোটের আগে তৃণমূলের টিকিটে জেতা সভাধিপতি গৌড়চন্দ্র মন্ডল যোগ দেন বিজেপি শিবিরে। বিজেপির টিকিটে মানিকচক বিধানসভা কেন্দ্রের প্রার্থী হয়ে হেরে যান জেলা সভাধিপতি। এরপর জুলাই মাসের শুরুতে তাঁর বিরুদ্ধে অনাস্থা আনে তৃণমূলের সংখ্যাগরিষ্ঠ জেলা পরিষদ সদস্য। শেষপর্যন্ত অনাস্থা নিয়ে তলবি সভার আগেই গত ৬ জুলাই নিজের পদ থেকে ইস্তফা দেন মালদহের সভাধিপতি গৌড়চন্দ্র মন্ডল। ৭ জুলাই তাঁর পদত্যাগপত্র গৃহীত হয়। কিন্তু, এরপর থেকে আর নতুন সভাপতি নির্বাচনের কোনও সভা ডাকা হয়নি।  ফলে দীর্ঘদিন সভাধিপতিহীন অবস্থায় মালদহ জেলা পরিষদ। গত ৮ ডিসেম্বর মালদহে প্রশাসনিক পর্যালোচনা বৈঠকে এসে মালদহ জেলা পরিষদের সভাধিপতি না-থাকা নিয়ে জানতে চান খোদ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শুধু তাই নয়, প্রশাসনিক বৈঠক থেকে দ্রুত মালদহ জেলা পরিষদের নতুন সভাধিপতি নির্দিষ্ট করার প্রক্রিয়াও শেষ করার কথাও বলেন মুখ্যমন্ত্রী।

কিন্তু, এরপরও  বেশ কিছুদিন কেটে গেলেও এখনও সভাধিপতি নির্বাচনের কোনও বৈঠক ডাকা হয়নি। সূত্রের খবর, তৃণমূল নেতৃত্ব এখনও পর্যন্ত মালদহ জেলা পরিষদের নতুন সভাধিপতি কে হবেন তা নিয়ে সবুজ সঙ্কেত দেয়নি। ফলে,  মালদহ জেলা পরিষদের সভাধিপতির পদ ঝুলেই রয়েছে।এই অবস্থায় আজ মালদহ জেলা পরিষদের খসড়া বাজেট পেশ ঘিরে শুরু হয় রাজনৈতিক টানাপোড়েন। সাধারণ সভায় হাজির হলেও খসড়া বাজেট পেশের আগেই সভা "বয়কট" করে বেরিয়ে যান বিজেপির জেলা পরিষদ সদস্যরা। পরে জেলা বিজেপি কার্যালয়ে সাংবাদিক বৈঠক করে বাজেট বৈঠকের বৈধতা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন বিজেপি নেতারা।এদিন মালদা জেলা পরিষদের ২০২২-২৩ আর্থিক বছরের জন্য ৩৬৯ কোটি ৪৮ লক্ষ ৯৬ হাজার টাকার খসড়া বাজেট পেশ হয়। তবে গত অর্থবছরের তুলনায় এবার বাজেট বরাদ্দ বেশ কিছুটা কম। জেলা পরিষদের সহকারি সভাধিপতি বিধায়ক চন্দনা সরকার পাল্টা দাবি করেন, পঞ্চায়েত আইন মেনেই বাজেট পেশ হয়েছে উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে বিরোধিতা করছে বিজেপি।

Sebak DebSarma

Published by:Debalina Datta
First published: