উত্তরবঙ্গ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

ছোট্ট পাহাড়ী গ্রামের অসহায় পরিবারের সদস্যদের হাতে পুজোর উপহার তুলে দিলেন শিলিগুড়ির মানবিক মুখেরা

ছোট্ট পাহাড়ী গ্রামের অসহায় পরিবারের সদস্যদের হাতে পুজোর উপহার তুলে দিলেন শিলিগুড়ির মানবিক মুখেরা

শারোদৎসব শেষ। এবারে আসছে আলোর উৎসব দীপাবলী। উৎসবের দিনগুলিতে যেখানে শহরের বেশীরভাগ মানুষেরই গায়ে উঠেছে নতুন জামা, শাড়ি।

  • Share this:

#শিলিগুড়ি:  শারোদৎসব শেষ। এবারে আসছে আলোর উৎসব দীপাবলী। উৎসবের দিনগুলিতে যেখানে শহরের বেশীরভাগ মানুষেরই গায়ে উঠেছে নতুন জামা, শাড়ি। উলটো দিকে চা বাগান, বন বস্তি এলাকায় তা ছিল দুঃস্বপ্ন। জেলার পিছিয়ে থাকা দিন আনি দিন খাই মানুষদের পাশে দাঁড়ালো শিলিগুড়িরই একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন "মানবিক প্রয়াস"। মানবিকতার খাতিরেই সংগঠনের এগিয়ে আসা। সারা বছরই সমাজসেবায় নিয়োজিত থাকে সংগঠনের সদস্য, সদস্যারা। লকডাউনের দিনগুলিতেও জীবনের ঝুঁকি নিয়ে রাস্তায় ছিল ওরা। অসহায় রেলের কুলি পরিবারদের পাশেও দাঁড়িয়েছে ওরা। কেননা ৬ মাসের বেশী সময় অতিক্রান্ত হয়ে গিয়েছে। এখোনো ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক হয়নি। আর্থিক সংকটে কুলি পরিবারেরা। এবারে ওরা হাজির শহর থেকে কিছুটা দূরের পাহাড়ী গ্রাম রংটংয়ে। চা বাগান ঘেঁষা ছোট্ট গ্রামটির নাম নরবং। কয়েকশো পরিবারের বসবাস। নুন আনতে পান্তা ফুরোনর মতো অবস্থা এখানকার বাসিন্দাদের। তাদের মুখে হাসি ফোটাতে হাজির মানবিক মুখেরা। পুজোয় নতুন জামা কাপড় গায়ে ওঠেনি তো কি হয়েছে, আলোর উৎসবে রঙীন সাজে সেজে উঠবে ওরা। পাহাড়ী গ্রামের বাসিন্দাদের হাতে তুলে দেওয়া হয় নতুন শাড়ি, জামা, প্যান্ট। এক এক করে লাইনে দাঁড়িয়ে সংগ্রহ করে নতুন পোশাক। যা পেয়ে অনেকেরই চোখে আনন্দাশ্রু চলে আসে। তাদের কথায়, এর থেকে ভালো দিন সাম্প্রতিককালে আসেনি। লকডাউনের সময়ে খুব কষ্টে কেটেছিল দিন। পুজোয় ইচ্ছে থাকলেও নতুন পোশাক কেনার ক্ষমতা ছিল না। শুধু কি পোশাক? না, সাধ্যমতো শিশু খাদ্যও তুলে দেওয়া হয় সংগঠনের পক্ষ থেকে। সংগঠনের আহ্বায়ক মিঠুন ভট্টাচার্য জানান, আমাদের আহ্বানে সাড়া দিয়েছেন অনেক সহৃদয় ব্যক্তি। তাদের দেওয়া সামগ্রী একত্রিত করেই আজ তুলে দেওয়া হল অসহায় পরিবারের হাতে। এভাবে আরো পাঁচ জন সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিলে আগামী দিনে আরো প্রত্যন্ত গ্রামীণ এলাকায় বঞ্চিত মানুষদের হাতে পৌঁছে দেওয়া হবে নতুন বস্ত্র সহ অন্যান্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী।

Published by: Akash Misra
First published: November 1, 2020, 8:48 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर