• Home
  • »
  • News
  • »
  • north-bengal
  • »
  • Nathu La Rail Path: এবার শিলিগুড়ি থেকে ট্রেনে চেপে যাবেন গ্যাংটক, নাথু লা-ও যাওয়া যাবে রেলপথে!

Nathu La Rail Path: এবার শিলিগুড়ি থেকে ট্রেনে চেপে যাবেন গ্যাংটক, নাথু লা-ও যাওয়া যাবে রেলপথে!

২০২৩-এ সেবক-রংপো রেলপথ চালু, পরিদর্শনের পর জানালেন উঃপূঃ সীমান্ত রেলের জেনারেল ম্যানেজার!

২০২৩-এ সেবক-রংপো রেলপথ চালু, পরিদর্শনের পর জানালেন উঃপূঃ সীমান্ত রেলের জেনারেল ম্যানেজার!

২০২৩-এ সেবক-রংপো রেলপথ চালু, পরিদর্শনের পর জানালেন উঃপূঃ সীমান্ত রেলের জেনারেল ম্যানেজার!

  • Share this:

#গ্যাংটক: এবার না থুলা'র সঙ্গে জুড়ছে রেল যোগাযোগ। ভারত-চীন সীমান্ত না থুলা। গ্যাংটক থেকে না থুলা পর্যন্ত রেল লাইন পাতার জন্যে শীঘ্রই জমি সমীক্ষায় নামবে ভারতীয় রেল।

এতে সীমান্ত সুরক্ষা বাড়তি গুরুত্ব পাবে। শনিবার সেবকে একথা জানান উত্তর-পূর্ব সীমান্ত রেলের জেনারেল ম্যানেজার অনশুল গুপ্তা। তার আগে সেবক ও রংপোর মধ্যে রেল যোগাযোগ শুরু হবে। এই রেলপথের শিলান্যাস হয়েছিল ২০০৯-এর ৩০ অক্টোবর। তৎকালীন রেলমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায় এর শিলান্যাস করেছিলেন। মাঝে কেটে গেছে ১২ বছর।

আরও পড়ুন- কু-ঝিক-ঝিক! এ বার পাকদণ্ডি বেয়ে হিমকন্যায় দার্জিলিং থেকে কার্সিয়ং

দীর্ঘদিন ধরেই প্রকল্পটি আটকে ছিল জমি জটে। সেই জমি জট কেটেছে। এখন জোর কদমে চলছে সেবক থেকে রংপো রেল লাইন বসানোর কাজ। পাহাড় কেটে তৈরী হচ্ছে রেল লাইন। সেবক থেকে রংপোর দূরত্ব ৪৫ কিলোমিটার। এর মধ্যে ৪১ কিলোমিটার দার্জিলিং জেলার আওতায়। বাকি ৪ কিলোমিটার সিকিমের অন্তর্গত।

গোটা রুটের বেশীরভাগটাই জাতীয় সড়কের বাইরে থাকবে। তিস্তার কাছাকাছি গিয়ে রেল ট্র‍্যাক দেখা যাবে। তৈরী হচ্ছে ১৪টি টানেল। এর মধ্যে একটি টানেল  ৫ দশমিক ৩ কিলোমিটার লম্বা। সব থেকে লম্বা টানেল। তারখোলায় রয়েছে সেই টানেল।

জমি জট কেটেছে। কাজ এগোবে এবার। জমি জট কেটেছে। কাজ এগোবে এবার।

সেবক থেকে রংপো পর্যন্ত থাকছে ৫টি স্টেশন। সেবকের পরের স্টেশন রিয়াং। তারপর তিস্তা। তিস্তার পরের স্টেশন মল্লি। শেষ রংপো। টানেলগুলোর কাজ চলছে। ভারী বর্ষার জেরে এবারে ব্যপক ক্ষতি হয় টানেলের। জলের তোড়ে বেশ কয়েকজন শ্রমিকেরও মৃত্যু হয়েছে। সঙ্গে ধস। দুইয়ের জেরে কাজের গতি ব্যহত হয়েছে বলে জানান জেনারেল ম্যানেজার। তবু পাহাড়কে বাঁচিয়েই তৈরী করা হবে এই রেলপথ।

একদিকে যেমন বাড়বে ব্যবসা, বাণিজ্য। তেমনি পর্যটনের প্রসারেও নতুন দিশা দেখাবে। শিলিগুড়ি থেকে সড়ক পথে ছুটতে হবে না গ্যাংটকে। ২০২৩-এর মধ্যেই এই রেলপথ তৈরীর কাজ সম্পন্ন হয়ে যাবে বলে দাবী করেছেন উত্তর-পূর্ব সীমান্ত রেলের শীর্ষ কর্তা। ইংরেজ আমলে শিলিগুড়ি থেকে সেবক হয়ে গেইলখোলা পর্যন্ত ট্রেন।

২০২৩-এ ফের সেবক থেকে সিকিমের পথে পর্যটক, যাত্রী নিয়ে ছুটবে ট্রেন। চলবে পণ্যবাহী ট্রেনও। রংপো পর্যন্ত রেললাইনের কাজ সম্পন্ন হলেই তা সম্প্রসারিত হবে গ্যাংটক পর্যন্ত। তারপরই যোগ হবে না থুলা সীমান্ত। আজ সেবক-রংপো রেললাইনের কাজের গতি খতিয়ে দেখেন রেলের পদস্থ কর্তারা।

Published by:Suman Majumder
First published: