পাহাড়ে আন্দোলনের অভিমুখ নিয়ে দিশাহারা মোর্চা

পাহাড়ে আন্দোলনের অভিমুখ নিয়ে দিশাহারা মোর্চা

মিছিল-বিক্ষোভ জারি রাখলেও, গোর্খাল্যান্ডের দাবিতে আন্দোলন নিয়ে চাপে মোর্চা।

  • Share this:

#দার্জিলিং: মিছিল-বিক্ষোভ জারি রাখলেও, গোর্খাল্যান্ডের দাবিতে আন্দোলন নিয়ে চাপে মোর্চা। সরাসরি না বললেও, বিমল গুরুংয়ের নেতৃত্ব নিয়ে প্রশ্ন তুলে দিয়েছে জিএনএলএফ-সহ কয়েকটি দল। এখন আন্দোলনের রাশ হাতছাড়া হওয়ার ভয় তাড়া করছে মোর্চাকে। ফলে, পরিস্থিতি সামাল দিতে আত্মপ্রকাশ করতে হয়েছে মোর্চাপ্রধানকে। প্রথমে অনড় হলেও, ইদে গাড়ি চলাচলে ছাড়ের ঘোষণা করা হয়েছে।

গোর্খাল্যান্ডের দাবিতে আন্দোলন জারি রেখেছে মোর্চা। একইসঙ্গে জারি, পাহাড়ে রাজনৈতিক সমীকরণের চোরাস্রোতও। এবার বিমল গুরুংয়ের নেতৃত্ব নিয়েই প্রশ্ন তুলে দিল জিএনএলএফ। একসময় যে রাজনৈতিক দলের হাত ধরেই পাহাড়ে পৃথক রাজ্যের দাবিতে শুরু হয় আন্দোলন।

সিংমারিতে মোর্চার মিছিল থেকে হিংসা ছড়ানোর পরই আত্মগোপন করেন বিমল গুরুং। তারপর থেকেই আন্দোলনের রাশ একটু একটু করে মোর্চার হাতছাড়া হতে শুরু করে। পাহাড়ে আলাদা ভাবে মিছিল করে জিএনএলএফ, এবিজিএল ও সিপিআরএমের মতো দলগুলি।

একদিকে পাহাড়ের মানুষের আবেগ। অন্যদিকে আন্দোলনের রাশ নিজেদের হাতে রাখা। সবমিলিয়ে বেশকিছুটা দিশাহারা মোর্চা। তা স্পষ্ট হচ্ছে কর্মসূচি ঘোষণা নিয়েও। শনিবার পর্যন্ত বনধে ছাড় দেওয়া নিয়ে অনড় ছিল মোর্চা। টালবাহানার পর, রবিবার, ইদ উপলক্ষ্যে গাড়ি চলাচলে ছা়ড দেওয়া হয়েছে।

কোন পথে এগোবে আন্দোলন? কার হাতে থাকবে রাশ? কীই বা হবে রণকৌশল? উত্তর খুঁজতে আগামী ২৯ জুন ফের বসছে সর্বদলীয় বৈঠক।

First published: 04:27:34 PM Jun 25, 2017
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर
Listen to the latest songs, only on JioSaavn.com