মোর্চাকে এড়াচ্ছে পাহাড়ের অন্যান্য দল, চাপে পড়ে অশান্তি জিউয়ে রাখছে মোর্চা

Dolon Chattopadhyay | News18 Bangla
Updated:Jul 01, 2017 08:32 PM IST
মোর্চাকে এড়াচ্ছে পাহাড়ের অন্যান্য দল, চাপে পড়ে অশান্তি জিউয়ে রাখছে মোর্চা
Dolon Chattopadhyay | News18 Bangla
Updated:Jul 01, 2017 08:32 PM IST

#দার্জিলিং: পাহাড়ের সব রাজনৈতিক দলকে নিয়ে আন্দোলনের ডাক দিলেও কার্যত একা হয়ে পড়ছে মোর্চা। আজ দার্জিলিঙের মিছিলে মোর্চা ছাড়া আর কোনও দলের উপস্থিতিই নজরে আসেনি। রাশ আলগা হচ্ছে বুঝে হিংসার পথেই আন্দোলনকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন বিমল গুরুংরা। সিংমারিতে ফের পুলিশকে লক্ষ করে পাথর ছোড়া হয় আজ। আগুন লাগানো হয় সরকারি অফিসেও।

পৃথক রাজ্যের দাবিতে এক হয়ে আন্দোলন চালাবে পাহাড়ের রাজনৈতিক দলগুলি। বৃহস্পতিবারের সর্বদলীয় বৈঠকে স্থির হয় তেমনটাই। তৈরি হয় গোর্খাল্যান্ড মুভমেন্ট কো-অর্ডিনেশন কমিটি। কিন্তু, চব্বিশ ঘণ্টা কাটতে না কাটতেই কেটে গেল ছন্দ। পাহাড়ের জোটবদ্ধ আন্দোলনে ভাটার টান।

শনিবার দার্জিলিঙে একাই মিছিল করে মোর্চা। তাতে অন্য কোনও রাজনৈতিক দলের পতাকাই দেখা যায়নি। কেন মোর্চাকে এড়িয়ে যাচ্ছে অন্যান্য দলগুলি?

- আন্দোলন নিয়ে মোর্চার সঙ্গে অন্যান্য রাজনৈতিক দলগুলির দ্বন্দ্ব রয়েছে

- সিপিআরএম, এবিজিএল, জিএনএলএফের দ্বন্দ্ব স্পষ্ট

- প্রশ্ন উঠেছে গোর্খাল্যান্ড মুভমেন্ট কো-অর্ডিনেশন কমিটির অস্তিত্ব নিয়েও

যৌথ মঞ্চ গড়েও অন্যান্য রাজনৈতিক দলের এড়িয়ে যাওয়া মোর্চাকে খানিকটা অস্তিত্বের সংকটে ফেলে দিয়েছে। তাতে আন্দোলনের তেজও কমেছে। আর তা আঁচ করেই তাণ্ডব জারি রেখেছে মোর্চা। শনিবার, ফের পুলিশকে লক্ষ করে পাথর ছোড়া হয়।

আগুন লাগানো হয় কার্শিয়ঙের সেরিকালচার অফিসে ও সেন্ট জন্স পঞ্চায়েত অফিসে। আগুন লাগানোর অভিযোগ অবশ্য উড়িয়ে দিয়েছে মোর্চা।

পাহাড়ে সংযম দেখাচ্ছে বাহিনী। তাতে চাপ বাড়তেই হিংসা ছড়িয়ে উসকানি দিচ্ছে মোর্চা।

First published: 08:32:05 PM Jul 01, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर