প্রতিবছর লক্ষ মানুষের ভিড় হয়! করোনার জন্য ইদে জড়ো হয়ে নামাজ বন্ধ রাখলেন মালদহের সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মানুষ

মালদহে কোনও মসজিদেই ইদের নামাজের জমায়েত করা হবে না। পরিবর্তে বাড়িতে ছাদে অথবা খোলা জায়গায়, বাগানে শারীরিক দূরত্ব বিধি মেনে ইদের নামাজ পড়বেন সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মানুষ।

মালদহে কোনও মসজিদেই ইদের নামাজের জমায়েত করা হবে না। পরিবর্তে বাড়িতে ছাদে অথবা খোলা জায়গায়, বাগানে শারীরিক দূরত্ব বিধি মেনে ইদের নামাজ পড়বেন সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মানুষ।

  • Share this:

#মালদহ: মালদহের সুজাপুরে নয়মৌজা ইদগাহ ময়দানে লাখো লোকের ইদের (Eid) নামাজ এবার বন্ধ রাখা হচ্ছে। শুধু তাই নয়, মালদহে কোনও মসজিদেই ইদের নামাজের জমায়েত করা হবে না। পরিবর্তে বাড়িতে ছাদে অথবা খোলা জায়গায়, বাগানে শারীরিক দূরত্ব বিধি মেনে ইদের নামাজ পড়বেন সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মানুষ। কালিয়াচকে বিভিন্ন মসজিদ কমিটি, ইমাম, পুলিশ ও প্রশাসনের কর্তাদের উপস্থিতিতে বৈঠকে এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

জেলার সমস্ত মসজিদ থেকে মাইকে নামাজ সংক্রান্ত এই নির্দেশিকা প্রচারের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। করোনা (Corona) পরিস্থিতিতে যাতে কোনও ভাবে সংক্রমণ ছড়াতে না পারে তার জন্যই এমন সিদ্ধান্ত। মালদহের সুজাপুরের নয়মৌজা মাঠে একসঙ্গে প্রায় লক্ষ মানুষ জড়ো হয়ে ইদের নামাজ পড়েন। রাজ্যের অন্যতম বৃহৎ নামাজ হয় মালদহের সুজাপুরে। করোনা পরিস্থিতিতে ইদের নামাজ বন্ধের কথা জানিয়েছেন নয়মৌজা ইদগাহ কমিটির সম্পাদক হামিদুর রহমান।

তিনি জানিয়েছেন, ইদের নামাজের সময় কোথাও যাতে জমায়েত না হয় সেজন্য প্রচার কর্মসূচি নেওয়া হচ্ছে। খোলা জায়গায় কোথাও ইদের নামাজ হলেও কোনও অবস্থাতেই ৫০ জনের বেশি জমায়েত করা হবে না। নামাজ পাঠের সময়ে কঠোরভাবে শারীরিক দূরত্ব বিধি মেনে চলার জন্য সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। একই সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছেন মালদহের জেলা ইমাম জাহাঙ্গীর আলম।

কালিয়াচকের সমস্ত মসজিদ কমিটির সঙ্গে বৈঠকের পর বিডিও গোলাম হাবিব সর্দার জানিয়েছেন, কোনও রকম জমায়েত ছাড়াই ইদের নামাজ পাঠ করা হবে। গ্রামের বিভিন্ন ফাঁকা জায়গায়, বাড়ির ছাদে, বাগানে ৫০ জনের কম লোকের উপস্থিতিতে নমাজের সর্বসম্মত সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। করোনা পরিস্থিতিতে কীভাবে ইদের নামাজ পাঠ হবে তা নিয়ে কালিয়াচকে পুলিশ ও প্রশাসনের উদ্যোগে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। করোনা আবহে গত বছরও মালদহে প্রকাশ্যে জমায়েত করে ইদের নমাজ হয়নি। ভিড়ে যাতে কোনও ভাবেই করোনা ছড়িয়ে পড়তে না পড়ে সেই ভাবনা থেকেই এবারও সজাগ সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মানুষ।

সেবক দেবশর্মা

Published by:Swaralipi Dasgupta
First published: