corona virus btn
corona virus btn
Loading

হাততালি দিয়ে কেন্দ্রীয় দলকে স্বাগত জানাল পরিযায়ী শ্রমিকরা   

হাততালি দিয়ে কেন্দ্রীয় দলকে স্বাগত জানাল পরিযায়ী শ্রমিকরা   

পরিযায়ী শ্রমিকদের তরফ থেকে যে রকম প্রশংসা মিলেছে তাতে খুশি কেন্দ্রীয় দল।

  • Share this:

#জলপাইগুড়ি: হাততালি দিয়ে কেন্দ্রীয় দলকে স্বাগত। স্বাগত জানালেন পরিযায়ী শ্রমিকরা। জলপাইগুড়ি জেলার রাণীনগর গ্রামের ঘটনা। এদিন কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দলের সদস্যরা জলপাইগুড়ির রাণীনগর গ্রামের রাণীনগর স্কুলে যান। সেখানে দিল্লি থেকে আসা ৫৪ জন আটকে আছেন। এই দলে রয়েছে ২০টি শিশু। লকডাউনের আগে, এই দলটি রাজ্যে আসেন। কোচবিহার থেকে দিল্লি ফেরার পথে তারা আটকে যান। এই দলটি মুলত চাটাই তৈরি ও আয়ুর্বেদ ওষুধ বিক্রি করে। আপাতত তাদের রাখা হয়েছে রাণীনগর স্কুলে। এদিন সেখানেই পৌছে যান কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দলের ৫ সদস্য। দলের প্রধান বিনীত যোশী জানতে চান, তারা যে মাস্ক ব্যবহার করছেন সেগুলি কে দিয়েছে? খাবার যথাযথ পাচ্ছেন কিনা? সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে তারা থাকছেন কিনা? যদিও ৫৪ জন ব্যক্তি সামাজিক দুরত্ব মেনে আদৌ চলতে পারছেন কিনা তা নিয়ে দ্বিমত অবশ্য থাকছে।

তবে পরিযায়ী শ্রমিকদের তরফ থেকে যে রকম প্রশংসা মিলেছে তাতে খুশি কেন্দ্রীয় দল। অন্যদিকে জলপাইগুড়ির রাস্তায় লোকজনের ভিড় দেখে অসন্তুষ্ট কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দল। এদিন বিনীত যোশী বলেন, "একাধিক জায়গায় আমরা গিয়ে দেখছি, মানুষজন লকডাউন যথাযথ ভাবে মানছেন না। বহু জায়গায় দেখা যাচ্ছে মানুষ মাস্ক পড়ছেন না। মানুষ সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখছেন না।"

এদিন সকাল থেকেই রাস্তায় নামেন কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দলের সদস্যরা। প্রথমেই পৌছে যান ফুলবাড়ি ট্রাক টারমিনালে। সেখানে গিয়ে কথা বলেন চালক ও খালাসিদের সাথে। বিনীত যোশীর সাথে কথা বলছেন এমন একজন, যার মাস্ক ছিলনা। বিনীত যোশী সাথে সাথে তাকে মাস্ক পড়ে আসতে বলেন। ওই অঞ্চলে থাকা অনেক লরি চালক ও খালাসি মাস্ক ব্যবহার যে করেনি তার ছবি তুলে রাখা হয়। এরপর প্রতিনিধি দল যায় শিলিগুড়ির জ্যোতিনগরে। এখানেই সন্ধান মিলেছিল চার করোনা রোগীর। যদিও ওই এলাকার রাস্তা সব বন্ধ। সিল করে দেওয়া হয়েছে। এদিন রাস্তায় দাঁড়িয়ে থাকা পুলিশের সাথে ওই এলাকা সম্বন্ধে জিজ্ঞাসা করেন। লোকজন কি করে যাতায়াত করছেন। তাদের ঢোকা বেরনোর সময়ে কোনও চেকিং হয় কিনা তা জানতে চাওয়া হয়। এরপরে কেন্দ্রীয় দল চলে যায় জলপাইগুড়ি রাজগঞ্জের কোয়ারেনটাইন সেন্টারে। সেখানে গিয়ে কথা বলেন।

ABIR GHOSHAL

Published by: Ananya Chakraborty
First published: April 27, 2020, 4:34 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर