corona virus btn
corona virus btn
Loading

রাস্তার ধারে পড়ে সাইকেল, সংক্রমণের ভয় নজর নেই এলাকার ছিঁচকে চোরেরও!

রাস্তার ধারে পড়ে সাইকেল, সংক্রমণের ভয় নজর নেই এলাকার ছিঁচকে চোরেরও!
Labour cycle lies abandoned on road

স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবি সাইকেল নিয়ে ৩ পরিযায়ী শ্রমিক ফিরছিলেন৷ পুলিশ তাদের আটকে কয়ারেন্টাইন সেন্টারে পাঠিয়েছিল। সেই শ্রমিকরা আর এই সাইকেলটি নিতে আসেনি। বিগত প্রায় ৪-৫ দিন ধরে রাস্তার পাশে তালাবিহীন অবস্থায় এভাবেই সাইকেলটি দাঁড় করানো রয়েছে।

  • Share this:

#রায়গঞ্জ: চারদিন থেকে রাস্তার ধারে পড়ে থাকা সাইকেলকে ঘিরে রহস্য বাড়ছে শহরে। তালা বিহীন সাইকেলকে ঘিরে জল্পনা এখন তুঙ্গে।  রহস্যের উৎসস্থল রায়গঞ্জের শিলিগুড়ি মোড় লাগোয়া ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়ক। করোনা আবহে রাস্তার পাশে পড়ে থাকা সাইকেলের উপর নজর নেই কারোর। স্থানীয় বাসিন্দা থেকে পুলিশ, কেউই সাইকেলটিকে সরিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন না। এই বাজারে চোরেদের নজরও কী করে ওই সাইকেল এড়িয়ে গেল, তা ভেবেও অবাক হচ্ছেন স্থানীয়রা!

রায়গঞ্জ শহরের সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ এবং জনবহুল রাস্তা শিলিগুড়ি মোড়।৩৪ নম্বর জাতীয় সড়কের সংযোগস্থল হওয়ায় ২৪ ঘন্টা গাড়ি চলাচল করে সেখানে। এই রাস্তায় আগাগোড়াই সাইকেল চোরের উপদ্রব।সেই কারণে ট্রাফিক পুলিশের পক্ষ থেকে চারদিকে সিসিটিভি ব্যবস্থা করা হয়েছে। সারা দেশে লকডাউনের কারণে বিভিন্ন রাজ্যে বহু পরিযায়ি শ্রমিক আটকে পড়েছেন। নিরুপায় হয়ে কেউ সাইকেলে, কেউ আবার হেঁটে ভিন রাজ্য থেকে এই জাতীয় সড়ক ধরে নিজের বাড়িতে যাচ্ছেন।

স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবি সাইকেল নিয়ে ৩ পরিযায়ী শ্রমিক ফিরছিলেন৷ পুলিশ তাদের আটকে কয়ারেন্টাইন সেন্টারে পাঠিয়েছিল। সেই শ্রমিকরা আর এই সাইকেলটি নিতে আসেনি। বিগত প্রায় ৪-৫ দিন ধরে রাস্তার পাশে তালাবিহীন অবস্থায় এভাবেই সাইকেলটি দাঁড় করানো রয়েছে। ছিঁচকে চোরের উপদ্রব লেগে থাকা এই এলাকায় তালাবিহীন এই সাইকেলটির দিকে গত কয়েকদিনে কেউ ফিরেও তাকায়নি। স্থানীয় মানুষের দাবি করোনা আতঙ্কে পরিযায়ী শ্রমিকদের ব্যবহার করা সাইকেল ছুঁতে চাননি কেউ৷  ফলে সাইকেল এভাবে রাস্তার ধারে পড়ে আছে।

স্থানীয় বাসিন্দা বাপ্পাদিত্য পাল বলেন, '৪/৫দিন আগে শিলিগুড়ি মোড় এলাকায়  সাইকেল চেপে আসা এক পরিযায়ী শ্রমিককে পুলিশ আটকায়। সেই থেকেই সাইকেলটি পরে রয়েছে ওখানে। করোনা ভাইরাস সংক্রমণের ভয়ে পুলিশও সেটিকে সরিয়ে রাখেনি। ছিঁচকে চোরদের কাছেও সেটি ব্রাত্য হয়েই রয়েছে'।

স্থানীয় এক ব্যবসায়ী অপুর্ব চন্দ্র রায় অবশ্য সাইকেলটি ওই এলাকায় কী করে পৌঁছল তা নিয়ে কিছুই বলতে পারেননি। তবে চার-পাঁচ দিন থেকে সাইকেলটিকে একই জায়গায় পড়ে থাকতে দেখে তিনিও অবাক।

Published by: Pooja Basu
First published: May 15, 2020, 1:48 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर