Home /News /north-bengal /
Dhupguri News|| তুমুল বৃষ্টিতে রাস্তায় কাতরাচ্ছেন মহিলা, এগিয়ে এলেন না কেউ! ধূপগুড়িতে যে পরিণতি হল মহিলার...

Dhupguri News|| তুমুল বৃষ্টিতে রাস্তায় কাতরাচ্ছেন মহিলা, এগিয়ে এলেন না কেউ! ধূপগুড়িতে যে পরিণতি হল মহিলার...

রাস্তায় এভাবেই পড়েছিলেন মহিলা।

রাস্তায় এভাবেই পড়েছিলেন মহিলা।

Mentally challenged woman fallen ill amid heavy rain in dhupguri: মুষলধারে বৃষ্টির মধ্যে জাতীয় সড়কের ধারে শুয়ে কাতরাচ্ছে মানসিক ভারসাম্যহীন এক মহিলা। সাহায্যের জন্য এগিয়ে এল না কেউ! চরম অমানবিকতার ছবি ধূপগুড়িতে।

  • Last Updated :
  • Share this:

#ধূপগুড়ি: মুষলধারে বৃষ্টির মধ্যে জাতীয় সড়কের ধারে শুয়ে কাতরাচ্ছে মানসিক ভারসাম্যহীন (Mentally Challenged) এক মহিলা। সাহায্যের জন্য এগিয়ে এল না কেউ! চরম অমানবিকতার ছবি ধূপগুড়িতে (Dhupguri)। অভিযোগ, রাস্তার পাশ দিয়ে হেঁটে  বহু মানুষ, ছুটছে একের পর এক গাড়ি, তবে সাহায্যের জন্য কেউ এগিয়ে আসেননি। এলাকাবাসীর অভিযোগ, পৌরসভা থেকে শুরু করে প্রশাসনের কর্ম-কর্তা কেউ সাহায্যের জন্য এগিয়ে আসেনি। অথচ অনেকেই এই মহিলার পাশ দিয়ে চলে গিয়েছেন।

মঙ্গলবার রাত দশ'টা থেকে টানা  মায়ের থান সংলগ্ন এসটিএস ক্লাবের পাশে ফুটপাতের ওপরে শুয়ে কাতরাতে দেখা যায় এই মানসিক ভারসাম্যহীন মহিলাকে। স্থানীয়দের দাবি, ধূপগুড়ি সুপার মার্কেট মোড় সংলগ্ন ৩১ নম্বর জাতীয় সড়কের পাশেই সব সময় ঘুরে বেড়াতে দেখা যায় এই রকম বেশ কয়েজিন মানসিক ভারসাম্যহীন মহিলাকে। আশেপাশের দোকান থেকে খাবারের সন্ধানে আসেন। কিন্তু রাতের বেলা মাথাগোঁজার কোনও জায়গা নেই তাঁদের। এ দিন যে মহিলাকে কাতরাতে দেখা গিয়েছে, সম্ভবত তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন। অভিযোগ, এলাকায় একাধিক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন থাকলেও এ দিন কেউ সাহায্যের জন্য এগিয়ে আসেনি।

বৃষ্টির সময় ধূপগুড়ি বিজেপি বিধায়ক বিষ্ণুপদ রায় বাড়ি ফিরছিলেন দলীয় কাজ করে। বাড়ি ফেরার সময় তিনি লক্ষ করেন ওই মহিলা ফুটপাথের উপরে শুয়ে কাতরাচ্ছেন। বিধায়কের নজরে আসতেই তড়িঘড়ি তিনি গাড়ি থামিয়ে গাড়ি থেকে নেমে পড়েন। বৃষ্টিতে ভিজে আশেপাশে কয়েকজন দোকানদারকে ডেকে তাদের সাহায্য নিয়ে বৃষ্টিতে ভেজা অবস্থায় টোটোতে করে হাসপাতালে পৌঁছানোর ব্যবস্থা করলেন।

এরপর শাসক দল, প্রশাসন এবং পৌরসভার বিরুদ্ধে প্রশ্ন তুলে বিধায়ক বিষ্ণু পদ রায় বলেন, 'এটা লজ্জার বিষয়। আমি নিজেও পৌরসভা এলাকার নাগরিক। এর জন্যে আমি প্রশাসনকেই দায়ী করব। বৃষ্টির মধ্যে শহরে একজন মানসিক ভারসাম্যহীন মহিলা এ ভাবে রাস্তায় পড়ে থাকলে তার মৃত্যু নিশ্চিত। আমার নজরে আসতেই মানবিকতার দিক থেকে আমি তাকে হাসপাতালে নিয়ে যাই। এখানকার পৌর প্রশাসন যে ব্যর্থ এটা তার জ্বলন্ত উদাহরণ।'

স্থানীয় বাসিন্দা মহেশ দাগা বলেন, এই মানসিক ভারসাম্যহীন মহিলা যে ভাবে রাস্তার পাশে বৃষ্টিতে পড়ে রয়েছে মৃত পারত তাঁর। আমরা আশেপাশের বিভিন্ন দোকান থেকে প্রতিদিন তাঁকে দুপুরে খাবারের ব্যবস্থা করি। রাতে খাবার দেওয়া হয়, কিন্তু রাতে ঘুমানোর জন্য তার নির্দিষ্ট কোন জায়গা নেই। আমাদের দাবি প্রশাসনের তরফে তাঁদের একটা থাকার ব্যবস্থা করা হোক।

তথ্যঃ রকি চৌধুরী 

Published by:Shubhagata Dey
First published:

Tags: Dhupguri