ছেলেমেয়েদের সামনেই বিয়ে বাবা-মায়ের, চোখে জল পাত্রপাত্রীর

ছেলেমেয়েদের সামনেই বিয়ে বাবা-মায়ের, চোখে জল পাত্রপাত্রীর

বিয়ের আসরে দেখা মিলল ৬৫ বছরের বর, আর ৫০ বছরের কনের৷ সরকারি গনবিবাহের উদ্যোগে খুশী মালদহের নব-বিবাহিত আদিবাসী দম্পতিরা।

  • Share this:

মালদহ:-কারো যোগাযোগ চার থেকে ছয় বছরের। কেউ একসাথে বসবাস করছেন সাত থেকে আট বছর। বৃহস্পতিবার মালদহে গনবিবাহের আসরে ছেলেমেয়েদের সামনে আনুষ্ঠানিক ভাবে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হলেন এমন অনেকে যারা কখনও ভাবেননি সামাজিক বিয়ে হবে। বিয়ের আসরে দেখা মিলল ৬৫ বছরের বর, আর ৫০ বছরের কনের৷ সরকারি গনবিবাহের উদ্যোগে খুশী মালদহের নব-বিবাহিত  আদিবাসী দম্পতিরা।

কোলে তিন বছরের ছেলেকে সঙ্গে নিয়ে বিয়ে করতে হাজির দিদিময়ী হাঁসদা আর অনাথ হেমরম। চার বছরের ছেলের হাত ধরে বর-কনে সেজে হাজির তালু মার্ডি, সাহেলী মুর্মু। তবে সকলকে অবাক করে দিয়ে বিয়ের আসরে নজর কাড়লেন ৬৫ বছরের প্রবীন সুরেশ ভুইমালী আর বছর ৫০-এর হোপনী হেমরম। মালদহের আদিবাসী গন বিবাহের আসরে এমন অনেক যুগলকে দেখা গেল যারা দীর্ঘকাল সংসার করলেও আর্থিক প্রতিবন্ধকতা-সহ আর নানা কারণে এতদিন বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হতে পারেননি।

এমন আদিবাসী যুগলদের সামাজিক স্বীকৃতিকে গনবিবাহের সাফল্য হিসেবে মনে করছেন প্রশাসনিক কর্তাদের একাংশ। বৃহস্পতিবার মুখ্যমন্ত্রীর উপস্থিতিতে গাজোল কলেজ মাঠে ৩০০ জোড়া আদিবাসী যুগলের গনবিবাহ সম্পন্ন হয়েছে। মালদহের আদিবাসী অধ্যুষিত ছয়টি ব্লক থেকে আদিবাসী বর-কনেরা হাজির হন গনবিবাহে। ছেলে-মেয়েদের সামনে বিয়ে করা, পাকা চুলে বর সাজা, বেশ উপভোগই করলেন আদিবাসী যুগলেরা। প্রত্যেকেই জানালেন জীবনসঙ্গী বেছে নিলেও মূলত আর্থিক কারণেই কখনও বিয়ে করায় হয়নি। সরকার এগিয়ে আসায় অবশেষে সাধ পূরন হয়েছে।

এদিন মালদহে আদিবাসী গনবিবাহের আসরের উদ্যোক্তা ছিল জেলা পুলিশ। এই বিয়েতে সকাল থেকেই বর ও কনেকে নিয়ে একসঙ্গে হাজির হন বরযাত্রী ও কনে যাত্রীরা। সারা বছর আইন শৃঙ্খলার দায়িত্বে থাকা খাকি পোশাকের পুলিশেরা এই প্রথম ছিলেন কোনো বিয়ের অতিথি আপ্যায়নের দায়িত্বে। দক্ষ হাতে ভিড় সামাল থেকে বিয়ের তদারকি। এমনকি বিয়ে শেষে নব দম্পতির হাতে উপহারও তুলে দেন পুলিশ ও প্রশাসনের কর্তারা। বিয়ের পরে আদিবাসীদের চোখে মুখে যে খুশি দেখা গিয়েছে তাতেই আয়োজনের সার্থকতা,বলেছেন মালদহের পুলিশ সুপার অলোক রাজোরিয়া।

 সেবক দেবশর্মা

First published: March 5, 2020, 8:25 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर