৬৫ বছরের বৃদ্ধাকে ধর্ষণের চেষ্টা, জলপাইগুড়িতে যুবকের জিভ কামড়ে ছিঁড়লেন বৃদ্ধা!

৬৫ বছরের বৃদ্ধাকে ধর্ষণের চেষ্টা, জলপাইগুড়িতে যুবকের জিভ কামড়ে ছিঁড়লেন বৃদ্ধা!
প্রতীকী চিত্র ।

স্থানীয়রা গিয়ে দেখতে পান ঘরের এক পাশে রক্তাক্ত মুখে দাঁড়িয়ে রয়েছে ওই যুবক । পায়ের কাছে পড়ে রয়েছে কাটা জিভ ।

  • Share this:

#জলপাইগুড়ি: ধর্ষণ করতে গিয়ে বৃদ্ধার কামড়ে জিভ খোয়ালো যুবক।যদিও যুবকের পাল্টা মারে আহত হয়েছেন বৃদ্ধা। চিৎকার শুনে এলাকাবাসী ছুটে এসে যুবককে আটক করে জলপাইগুড়ি জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। বৃদ্ধাকে সুপার স্পেশ্য়ালিটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। ঘটনায় অভিযুক্ত আরও এক যুবকের খোঁজ চলছে। পুলিশ এবং স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, জলপাইগুড়ি শহর সংলগ্ন পাতকাটার শাখের পাড়া এলাকার বাসিন্দা বছর ৬৫-র ওই বৃদ্ধা ভিক্ষা বৃত্তি করে দিনযাপন করেন। রেল লাইনের পাশে একটি ঝুপড়ি ঘরে একাই থাকেন তিনি। রবিবার রাতে জনতা কার্ফুর কারণে দিনভর শুনশান ছিল এলাকা। রাত সাড়ে আটটা নাগাদ বৃদ্ধার চিৎকার শুনে ছুটে আসেন আশপাশের মানুষজন। দেখতে পান ঘরের একপাশে পরে রয়েছেন বৃদ্ধা।আর এক কোনে রক্তাক্ত মুখ নিয়ে দাড়িয়ে রয়েছে রকি মহম্মদ (২৪) নামে স্থানীয় এক যুবক। তার পায়ের কাছে পরে রয়েছে কাটা জিভ। অভিযোগ, একা থাকার সুযোগে বৃদ্ধার ঘরে ঢোকে রকি এবং ছটু মহম্মদ নামে স্থানীয় দুই যুবক। বৃদ্ধাকে ধর্ষনের চেষ্টা চালায় তারা।ছটু বৃদ্ধার দুপা চেপে ধরে। বৃদ্ধা চিৎকার করার চেষ্টা করলে রকি মুখ দিয়ে মুখ চেপে ধরার চেষ্টা করলে কামড়ে জিভ কেটে নেন বৃদ্ধা।সেই অবস্থায় দুজনে মারধর শুরু করলে চিৎকার করেন বৃদ্ধা। ছুটে আসেন এলাকার লোকজন।সেই অবস্থায় পালিয়ে যায় ছটু মহম্মদ। স্থানীয় বাসিন্দা অনিল রায়ের অভিযোগ, এলাকায় বখাটে ছেলে হিসেবে পরিচিত রকি আর ছটু মহম্মদ। দিনভর নেশা করে থাকে। নেশার ঘোরেই এই জঘন্য কাজ করতে গিয়েছিলো বলে তাদের অনুমান।

স্থানীয় গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান অনিতা রাউত জানান, একজন অসহায় বৃদ্ধার একা থাকার সুযোগ এভাবে কেউ নিতে যাবে ভাবাই যায় না। এলাকার লোকজন বৃদ্ধাকে উদ্ধার করে সুপার স্পেশ্য়ালিটি হাসপাতালে ভর্তি করেছে। যুবককে আটক করে পুলিশের হাতে তুলে দিয়েছেন তাঁরা। পুলিশ রক্তাক্ত অবস্থায় যুবককে সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। যদিও তার কাটা জিভ জোড়া লাগাতে পারেননি চিকিৎসকরা। সোমবার ধর্ষণের অভিযোগে অভিযুক্ত যুবক রকি মহম্মদকে মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়েছে। সুপার স্পেশ্য়ালিটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন বৃদ্ধা। ঘটনায় অভিযুক্ত আর এক যুবকের খোঁজ চলছে বলে পুলিশ জানিয়েছে।

First published: March 24, 2020, 4:18 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर