corona virus btn
corona virus btn
Loading

২৫কেজি চাল, ১০কেজি ডাল আর ৫কেজি মাংসের খিচুড়ি রোজ পথকুকুরদের খাওয়াচ্ছেন ইনি

২৫কেজি চাল, ১০কেজি ডাল আর ৫কেজি মাংসের খিচুড়ি রোজ পথকুকুরদের খাওয়াচ্ছেন ইনি
  • Share this:

Uttam Paul

#রায়গঞ্জ: দীর্ঘ একমাসের উপর সারমেয়দের খাওয়া দিচ্ছেন রায়গঞ্জ উকিলপাড়ার বাসিন্দা বাবু সাহা। রাত্রি আটটা বাজতে বাজতে না রায়গঞ্জ শহরের সারমেয়রা অস্থির হয়ে পড়ে। কারণ তারা জেনে গিয়েছে, এই সময় তাদের খাবার দিতে হাজির হবে কয়েকজন যুবক। লকডাউন চলাকালীন রাত ৮টা নাগাদ টোটো চলাচলের  সংখ্যা অনেক কমে যায়। সারমেয়দের খাবার আসে যে টোটোতে সেটি দাঁড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে সমস্ত সারমেয় একজায়গায় হয়ে যায়। তাদের খাবার দেওয়ার সঙ্গে সঙ্গে অভুক্ত সারমেয়রা গোগ্রাসে খেতে শুরু করে দেয়।

রায়গঞ্জ উকিলপাড়ার বাসিন্দা বাবু সাহা। পেশায় ঠিকাদারি করেন।লকডাউন শুরু থেকেই  রায়গঞ্জ শহরের সারমেয়দের খাবার সরবরাহ করে চলেছেন।২৫ কেজি চাল  ১০ কেজি ডাল এবং ৫ কেজি মাংস প্রতিদিন রান্না করে সারমেয়দের খাওয়াচ্ছেন। দুপুর থেকে রান্না শুরু হয়। সন্ধ্যার মধ্যে খিচুড়ি রান্না শেষ করেন। রান্না হবার পর খিচুড়ি গুলো বড়পাত্রে ঢেলে ঠান্ডা করে সাত থেকে রায়গঞ্জ শহরে বেরিয়ে পড়েন। একটি টোটোতে তিনটি গামলায় এই খিচুড়ি নিয়ে কসবা মোড় থেকে শিলিগুড়ি মোড় পর্যন্ত যত সারমেয় আছে প্রত্যেকেই খাবার যোগান দিয়ে চলছেন বাপ্পাবাবু। বাপ্পাবাবু দুই একদিন এই কাজে যুক্ত থাকলেও এখন তার তিন কর্মী এই কাজ করছেন। রাত্রি দশটা পর্যন্ত তাঁরা এই কাজ করে বাড়িতে ফিরে যান। তটন দাস নামে এক ব্যাক্তি জানালেন, সারমেয়দের খাবার দেওয়াটা যে কি আনন্দের বিষয় তা ভাষায় প্রকাশ করা যায় না। লকডাউনের কারণে শহরে সমস্ত দোকানপাট বন্ধ। রাস্তার সারমেয়রা সারাদিন অভুক্তই থাকে। তাদের জন্য খাওয়ার দেবার সঙ্গে সঙ্গে অভুক্ত থাকা সারমেয়রা খেয়ে নিচ্ছে।বাপ্পাবাবু তাদের জানিয়ে দিয়েছেন লকডাউন যতদিন চলবে ততদিন এই কাজ চালিয়ে যাবার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।

First published: April 29, 2020, 5:13 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर