Mamata Banerjee to Visit Mathabhanga: পেরোচ্ছে ৭২ ঘণ্টা, শোকের মাথাভাঙায় বুধেই পা নাছোড় মমতার!

Mamata Banerjee to Visit Mathabhanga: পেরোচ্ছে ৭২ ঘণ্টা, শোকের মাথাভাঙায় বুধেই পা নাছোড় মমতার!

মাথাভাঙায় যাচ্ছেন মমতা

জানিয়েছিলেন, ৭২ ঘণ্টা কাটলেই তিনি পৌঁছে যাবেন অসহায় মানুষগুলোর কাছে। বুধবার সেই সময় অতিক্রান্ত হচ্ছে।

  • Share this:

    #কোচবিহার: ঘটনার পরপরই মাথাভাঙা ছুটে যেতে চেয়েছিলেন তিনি। কিন্তু কেন্দ্রীয় বাহিনীর গুলিতে মাথাভাঙায় (Mathabhanga Firing) চার গ্রামবাসীর মৃত্যুর পরপরই গোটা শীতলকুচি তথা মাথাভাঙায় সমস্ত রাজনৈতিক নেতা-নেত্রীদের প্রবেশ ৭২ ঘণ্টার জন্য নিষিদ্ধ করেছিল নির্বাচন কমিশন (Election Commission)। তা নিয়ে ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)। কিন্তু নিয়ম মেনে মাথাভাঙা না যেতে পারলেও মৃতদের পরিবারের সঙ্গে ভিডিও কলে কথা বলেছিলেন তৃণমূল নেত্রী। জানিয়েছিলেন, ৭২ ঘণ্টা কাটলেই তিনি পৌঁছে যাবেন অসহায় মানুষগুলোর কাছে। বুধবার সেই সময় অতিক্রান্ত হচ্ছে। আর বুধবার সকালে মাথাভাঙায় পা রাখছেন তৃণমূল সুপ্রিমো।

    গত ১০ এপ্রিল চতুর্থ দফা ভোটের দিন শীতলকুচির ১২৬ নম্বর বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনীর গুলিতে মারা যান চারজন যুবক, আহত হন আরও তিনজন। সেই আহত মানুষদের দেখতেই বুধবার সকালে মাথাভাঙা যাচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ওই ঘটনায় আহতরা এখন ভর্তি রয়েছেন মাথাভাঙা সাব ডিভিশন হাসপাতালে। সেখানেই যাবেন মমতা। তবে, মৃতদের পরিবারের সঙ্গে তিনি দেখা করবেন কিনা, তা এখনও স্পষ্ট নয়।

    প্রসঙ্গত, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রচারের উপর ২৪ ঘণ্টার নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে নির্বাচন কমিশন। সোমবার রাত আটটা থেকে মঙ্গলবার রাত আটটা পর্যন্ত নির্বাচনী প্রচার করতে পারবেন না মমতা। কিন্তু তাতেও রোখা যায়নি তাঁকে। প্রচার না করলেও কমিশনের সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ জানাতে কলকাতায় গান্ধীমূর্তির পাদদেশে একাই ধর্নায় বসেন তৃণমূল নেত্রী। ছবি আঁকেন তিনি।

    রাত আটটার পরই তিনি ফের সভা করতে শুরু করবেন। রাত আটটায় নিষেধাজ্ঞা ওঠার পরই সওয়া আটটাতেই তিনি সভা করবেন বারাসাতে। আর রাত নটায় তাঁর সভা রয়েছে বিধাননগরে। এরপরই আগামীকাল থেকে উত্তরবঙ্গে প্রচারে যাবেন তিনি। আর উত্তরবঙ্গের প্রচারের শুরুতেই তিনি যাচ্ছেন মাথাভাঙা।

    এরপর উত্তরবঙ্গে বুধবার একাধিক সভা করবেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রাজনৈতিক মহলের মতে, মমতা আসলে দেখাতে চাইছেন, রাজ্যের মানুষের জন্য তিনি সমস্ত রকম সংঘাতে যেতে রাজি। তাতে নির্বাচন কমিশনকেও চ্যালেঞ্জ জানাতে পিছপা হবেন না তিনি। মঙ্গলবারের ধর্না, আর বুধবার কথামতো সেই মাথাভাঙায় পৌঁছে গিয়ে নিজের কথা রেখে তৃণমূল নেত্রী বার্তা দেবেন, তিনি আছেন মানুষের সঙ্গেই।

    Published by:Suman Biswas
    First published: