সাহসী এজেন্টকে পুরস্কার, শাসন করলে পাল্টা শাসন ,কোচবিহারে মমতা

সাহসী এজেন্টকে পুরস্কার, শাসন করলে পাল্টা শাসন ,কোচবিহারে মমতা

কোচবিহারের জনসভায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

বুথ আগলে থাকা সাহসী এজেন্টকে পুরস্কৃত করা হবে। আত্মবিশ্বাস বোঝাতে তাঁর ভোকাল টনিক, আমাকে শাসন করতে এলে আমি পাল্টা শাসন করব।

  • Share this:

    #কোচবিহার: নরেন্দ্র মোদির সভার ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই কোচবিহারের জনসভা থেকে কাজের খতিয়ান তুলে ধরলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তথ্য তুলে ধরে বললেন, নারায়ণী সেনা নিয়ে বিজেপির দাবি গোটাটাই মিথ্যে। কোচবিহারের কঠিন জমিতে ঘাসফুল ফোটাতে উদ্যত তৃণমূল সুপ্রিমোর আশ্বাস, বুথ আগলে থাকা সাহসী এজেন্টকে পুরস্কৃত করা হবে। আত্মবিশ্বাস বোঝাতে তাঁর ভোকাল টনিক, আমাকে শাসন করতে এলে আমি পাল্টা শাসন করব।

    মমতা এ দিন বলেন, তথ্যের অধিকার আইনে জিজ্ঞেস করা হয়েছিল কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের কাছে নারায়ণী ব্যাটেলিয়ান তৈরির কোনও প্রস্তাব রয়েছে কিনা। কেন্দ্রীয় সরকার কার উত্তরে স্পষ্ট  বলেছে, এমন কোনও প্রস্তাব নেই। অতএব মথ্যে কথা বলছে ওরা। আমি বাংলার পুলিশে নারায়ণী ব্যাটেলিয়ান করেছি। ভবিষ্যতে সেখানে তিন হাজার মানুষের চাকরি হবে আরও। উত্তরের মন ধরতে মরিয়া মমতা মনে করালেন, ছিটমহল তাঁরই করে দেওয়া। পদাতিক এক্সপ্রেস, উত্তরবঙ্গ এক্সপ্রেস, শতাব্দী এক্সপ্রেস, কামাখ্যা এক্সপ্রেস -এগুলি তাঁর মস্তিস্কপ্রসূত।

    বাংলায় তিনদফার ভোট শেষ। এখনও বাকি আরও চার দফা।  প্রথম দিন থেকেই মমতার দলের অভিযোগ, সিআরপিএফ-এর অপব্যবহার করা হচ্ছে।  সেই কথা স্মরণ করিয়েই জনসভায় উপস্থিত কর্মী সমর্থকদের মমতার নিদান," সিআরপিএফ যদি গণ্ডোগল করে ঘেরাও করে ভোট দিতে যাবেন।"  মনে করালেন, ভোটকেন্দ্রের ২০০ মিটার পর্যন্ত ১৪৪ ধারা। অর্থাৎ একজোট হয়ে ভোট দিতে যেতে কোনও বাধা নেই।

    বিজেপির দুই প্রার্থীকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বেছে নিলেন আক্রমণের জন্য। বললেন, বিনয় বর্মনের বিরুদ্ধে  বিজেপির হয়ে যিনি দাঁড়িয়েছেন  তিনি ২০১৬ সালে  খুনের মামলায় জেলে ছিলেন । দিনহাটায় মমতার প্রার্থী উদয়ন গুহর সঙ্গে দিল্লি থেকে নেমে এসে লড়াই করছেন  নিশীথ প্রামাণিক। নাম না করে নিশীথ প্রামাণিক সম্পর্কে তাঁর উবাচ, "এমপি থেকে এমএলএ নির্বাচনে দাঁড়িয়েছে। এরপর কাউন্সিলার নির্বাচনে দাঁড়াবে।" অন্য দিকে নাটাবাড়িতে রবীন্দ্রনাথ ঘোষের মুখোমুখি একসময়ের সতীর্থ মিহির গোস্বামী। নাম না করে মমতা গদ্দার বললেন তাঁকে।

    কোচবিহারে গত লোকসভা নির্বাচনে ধুয়েমুছে সাফ হয়ে গিয়েছিল তৃণমূল। পরিসংখ্যান মমতার মুখস্ত তা বলার অপেক্ষা রাখে না। জমিদখলের শেষ লড়াইয়ে  মমতা তাই চেষ্টার কসুর করলেন না। বাকিটা সময় বলবে।

    Published by:Arka Deb
    First published:

    লেটেস্ট খবর