'বিজেপি চায় দাঙ্গার বাংলা', শুভেন্দুদের বিঁধতে আজ মমতার অস্ত্র বেড়ালতপস্বী উপকথা...

'বিজেপি চায় দাঙ্গার বাংলা', শুভেন্দুদের বিঁধতে আজ মমতার অস্ত্র বেড়ালতপস্বী উপকথা...
মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ফাইল চিত্র

মমতার দেহভঙ্গিতে আত্মবিশ্বাসের ছাপ চোখে পড়ল এদিনও, স্পষ্ট বললেন, তৃণমূলে কাজ করলে তবেই টিকিট পাওয়া যাবে।

  • Share this:

    #রায়গঞ্জ: মুর্শিদাবাদে সভা করতে গিয়ে শুভেন্দু-রাজীবদের বিষয়ে নাম না করেই মীরজাফর-কাহিনি শুনিয়েছিলেন। আজ ‌রায়গঞ্জের সভায় মমতার তাস হয়ে উঠল বেড়ালতপস্বী কথা। মমতার দেহভঙ্গিতে আত্মবিশ্বাসের ছাপ চোখে পড়ল এদিনও, স্পষ্ট বললেন, তৃণমূলে কাজ করলে তবেই টিকিট পাওয়া যাবে।

    উত্তরের মন পেতে একই দিনে রায়গঞ্জ মালদহে সভা করছেন মমতা। এ দিন রায়গঞ্জের সভামঞ্চ খেকে তিনি টিপ্পনি কেটে শুভেন্দুদের উদ্দেশ বলেন, ইঁদুররের চেহারা নিয়ে খুব দুঃখ ছিল। ঋষি মশাইয়ের কাছে অনুরোধ করায় ইঁদুর বেড়াল হল। এরপর বেড়ালের সাধ হল বাঘ হওয়ার। ঋষির আশির্বাদে সে বাঘ হল। তারপর সেই বাঘ ঋষিকেই খেতে এল। অগত্যা ঋষির শাপে পুনর্মুষিক ভব।

    মমতা নাম না নিলেও তাঁর ইঙ্গিতেই পরিস্কার, দলত্যাগীদের আরও আরও ক্ষমতার লোভই তাঁকে বাধ্য করেছিল ডানা ছাঁটতে। আর তাতেই মুখ ফেরায় তাঁরা। উল্লেখ্য শুভেন্দু অধিকারী সাম্প্রতিক একটি সভায় নিজেও বলেছিলেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আমার সব ক্ষমতা কেড়ে নিয়েছিলেন।


    এদিন মমতা প্রায় প্রতিটি বক্তৃতার মতোই বলছিলেন, ভোগী-লোভী-ত্যাগী তত্ত্ব। তাঁর কথায় ত্যাগীরা মানুষের কাজ করবে। ভোগীদের বাদ দিন। বিজেপি নেতাদের আদর্শহীনতা প্রমাণে মমতা টেনে আনলেন মনীষীদেরও। বললেন, এখন বিজেপির কয়েকটা নেতা জুটেছে। নেতাজি গান্ধীজি আবুল কালাম আজাদ আম্বেদকার গুরু গোবিন্দ সিং নেতা ছিলেন। আর এরাও নেতা। তাঁর যুক্তি, এটা রবীন্দ্রনাথ নজরুল পঞ্চানন বর্মার বাংলা। এটা গুরুচাঁদ ঠাকুরের বাংলা। এটা চৈতন্যদেবের বাংলা। বিজেপি চায় দাঙ্গার বাংলা

    Published by:Arka Deb
    First published: