পাহাড়কে বাদ দিয়ে বাংলা হয় না, তাই পাহাড়েই নেতাজির জন্ম জয়ন্তী পালন করলেন মুখ্যমন্ত্রী– News18 Bengali

পাহাড়কে বাদ দিয়ে বাংলা হয় না, তাই পাহাড়েই নেতাজির জন্ম জয়ন্তী পালন করলেন মুখ্যমন্ত্রী

নেতাজির ১২১ তম জন্মজয়ন্তী দার্জিলিং মলে পালন করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ৷

Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Jan 23, 2017 06:38 PM IST
পাহাড়কে বাদ দিয়ে বাংলা হয় না, তাই পাহাড়েই নেতাজির জন্ম জয়ন্তী পালন করলেন মুখ্যমন্ত্রী
Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Jan 23, 2017 06:38 PM IST

#দার্জিলিং: নেতাজির ১২১ তম জন্মজয়ন্তী দার্জিলিং মলে পালন করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ৷ নেতাজির জন্মজয়ন্তী পালন অনুষ্ঠানে দার্জিলিং মল থেকেই তাঁর ঘোষণা, আগামী মাসেই নতুন জেলা কালিম্পং-এর আনুষ্ঠানিক সূচনা।

এদিন দার্জিলিং মলে নেতাজির জন্মবার্ষিকী অনুষ্ঠানের আয়োজন করে রাজ্য তথ্য ও সংস্কৃতি দফতর ৷ সেই মঞ্চে দাঁড়িয়েই মুখ্যমন্ত্রী নেতাজি ফাইল প্রকাশ্যে আনা নিয়ে সওয়াল করেন, ‘আজ নেতাজির ১২১ তম জন্মদিন ৷ আজ পর্যন্ত নেতাজির অন্তর্ধান রহস্যের কিনারা হয়নি ৷ আমরা চাই নেতাজির সব ফাইল প্রকাশ্যে আসুক ৷ রাজ্যের সমস্ত ফাইল প্রকাশ্যে আনা হয়েছে ৷ কেন্দ্রেরও উচিত সব ফাইল প্রকাশ্যে আনা ৷ আমাদের নেতাজির অন্তর্ধান রহস্য আমরা জানতে চাই ৷ কেন নেতাজির ফাইল প্রকাশ্যে আনা হচ্ছে না? জবাব চাই আমরা ৷’

একইসঙ্গে নেতাজি অসুস্থ অবস্থায় পাহাড়ে এসে যে বাড়িতে থাকতেন, সেই বাড়ির উন্নয়নের জন্য এদিন ১০ লক্ষ টাকা বরাদ্দ করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ৷

সমতল থাকতে হঠাৎ নেতাজী জন্মজয়ন্তী পালনে পাহাড়কে কেন বেছে নিলেন মুখ্যমন্ত্রী? এ প্রশ্নের উত্তরে মমতা বলেন,‘রাজ্যের সব সরকারি অনুষ্ঠান কলকাতায় হয় ৷ নেতাজির জন্মদিনও আমাদের কাছে রাষ্ট্রীয় অনুষ্ঠান ৷ কিন্তু চার বছর ধরে আমরা এই অনুষ্ঠান পাহাড়ে করছি ৷ পাহাড়কে বাদ দিয়ে বাংলা হয় না ৷’

নেতাজি জন্মবার্ষিকী উদযাপন মঞ্চেও মোদিকে কটাক্ষ করতে ছাড়েননি মুখ্যমন্ত্রী ৷ ‘দেশনেতা’ প্রসঙ্গে মোদিকে খোঁচা মমতার ৷ তিনি বলেন, ‘নেতাজি বিভেদকামী ছিলেন না ৷ নেতাজি ভেদাভেদে বিশ্বাস করতেন না ৷ যিনি সবাইকে নিয়ে কাজ করেন তিনিই দেশনেতা ৷ সবাইকে নিয়ে নেতাজি দেশের জন্য লড়েছেন ৷ যোজনা কমিশনও নেতাজিরই ভাবনা ৷’

দার্জিলিং মলে, নেতাজির জন্মজয়ন্তীর মঞ্চে, মুখ্যমন্ত্রীকে ঘিরে পাহাড়বাসীর উচ্ছ্বাস ছিল চোখে পড়ার মতো।

First published: 06:38:32 PM Jan 23, 2017
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर