Home /News /north-bengal /

Mamata Banerjee: বিড়ি শ্রমিকদের জন্য হাসপাতাল, মুর্শিদাবাদে বিশেষ ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রীর

Mamata Banerjee: বিড়ি শ্রমিকদের জন্য হাসপাতাল, মুর্শিদাবাদে বিশেষ ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রীর

Special Health arrangements for beedi workers: বুধবার বহরমপুর রবীন্দ্র সদনে প্রশাসনিক বৈঠকে বিড়ি শিল্প মন্দার কারন জানতে পেরে উদ্বিগ্ন মুখ্যমন্ত্রী কেন্দ্রীয় সরকারকে তীব্র ভাষায় কটাক্ষ করেন।

  • Share this:

#বহরমপুর: বুধবার বহরমপুর (Mamata Banerjees meeting in Murshidabad) রবীন্দ্র সদনে প্রশাসনিক বৈঠকে বিড়ি শিল্পে মন্দার (Beedi Workers) কারণ জানতে পেরে উদ্বিগ্ন মুখ্যমন্ত্রী কেন্দ্রীয় সরকারকে তীব্র ভাষায় কটাক্ষ করলেন। পিছিয়ে পড়া মুর্শিদাবাদ জেলাতে সেই ভাবে কোনও শিল্প গড়ে ওঠেনি। কেবলমাত্র মুর্শিদাবাদ জেলার জঙ্গিপুর মহকুমা বিড়ি শিল্পের উপরে লক্ষাধিক মানুষ নির্ভরশীল, কিন্তু সেই শিল্পে আঁধার নেমে এসেছে। তাই নিয়েই উদ্বীগ্ন মুখ্যমন্ত্রী।

বুধবার বহরমপুর রবীন্দ্র সদনে প্রশাসনিক বৈঠকে বিড়ি শিল্প মন্দার কারন জানতে পেরে উদ্বিগ্ন মুখ্যমন্ত্রী কেন্দ্রীয় সরকারকে তীব্র ভাষায় কটাক্ষ করেন। দলের সাংসদ আবু তাহের খানকে সংসদ ভবনে এই নিয়ে সরব হওয়ার নির্দেশ দেন। এর পরেই বিড়ি শিল্পপতি ও তৃণমূল বিধায়ক জাকির হোসেনের কাছে বিড়ি শিল্প দুর্দশার কথা জানতে চান, জাকির হোসেন মুখ্যমন্ত্রীকে বলেন, বিভিন্ন ভাবে বিড়ি শিল্পের উপর অন্যায় ভাবে কর বসানো হচ্ছে। জিএসটি বসানো ফলে শিল্পগুলি ধুঁকছে, শুধু তাই নয় কেন্দ্রীয় সরকারের শ্রম দফতরের যে হাসপাতাল রয়েছে তারাপুরে, সেই হাসপাতালে কোনও চিকিৎসক ও নার্স নেই। বিড়ি শ্রমিকরা কোনও পরিষেবা পান না।

আরও পড়ুন: স্থানীয় ভাষা না জানলে জেলায় কাজ করা যাবে না, সরকারি অধিকারিকদের বাংলা জানায় জোর দিতে চান মমতা

এতেই প্রচন্ড ক্ষুদ্ধ হন মুখ্যমন্ত্রী। এর পরেই মুখ্যসচিব কে নির্দেশ দিয়ে বলেন, "রাজ্যের পক্ষ থেকে আমরা বিড়ি শ্রমিকদের জন্য আলাদা হাসপাতাল তৈরি করব জঙ্গিপুর মহকুমাতে।" এর জন্য শ্রম দফতরের শ্রম সচিবকে জাকির হোসেনের সঙ্গে বৈঠক করে খুব তাড়াতাড়ি কাজ শুরু করার নির্দেশ দেন, সহযোগিতা করার নির্দেশ দেন মুর্শিদাবাদের জেলাশাসক শরদ কুমার দ্বিবেদীকেও।

আরও পড়ুন: 'পড়ুয়ারা অপেক্ষা করে আছে! স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ডের কাজে ঢিলেমি নয়', বার্তা মুখ্যমন্ত্রীর...

মুর্শিদাবাদ জেলাতে জঙ্গিপুর মহকুমা ফরাক্কা সামশেরগঞ্জ সুতি ও রঘুনাথগঞ্জ সাগরদিঘী প্রভৃতি ব্লকে বেশিরভাগ মানুষই বিড়ি শিল্পের সঙ্গে যুক্ত, পরিবারের পুরুষ থেকে মহিলা সকলেই, বিড়ি বেঁধেই জীবিকা নির্বাহ করেন। বিধায়ক জাকির হোসেন বলেন, "যেভাবে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিড়ি শ্রমিকদের জন্য আলাদা হাসপাতাল তৈরি করার কথা দিলেন, তাতে বিড়ি শ্রমিকরা অনেক উপকৃত হবেন। আমাদের মুখ্যমন্ত্রী মানবিক, এর ফলে জঙ্গিপুর মহকুমা কয়েক লক্ষ মানুষ সুফল পাবে।"

প্রণবকুমার বন্দ্যোপাধ্যায়

Published by:Uddalak B
First published:

Tags: Mamata Banerjee

পরবর্তী খবর