লটারিতে কোটি টাকা জিতে রাতারাতি তারকা মালদহের হবিবপুরের অসিম সমাদ্দার

লটারিতে কোটি টাকা জিতে রাতারাতি তারকা মালদহের হবিবপুরের অসিম সমাদ্দার
representative image

নাওয়া, খাওয়া, ঘুম উধাও বছর ত্রিশ-এর অসিম সমাদ্দারের

  • Share this:

Sebak DebSarma

#মালদহ: সকাল থেকে পুরো পৃথিবীটাই যেন বদলে গিয়েছে। তাঁকে দেখতে গ্রামে উপচে পড়ছে ভিড়। দূরদুরান্ত থেকে লোকজন এক ঝলক দেখতে আসছেন তাঁকে। দুর থেকে কাউকে জিজ্ঞাসা করলে, এক কথায় দেখিয়ে দিচ্ছেন তাঁর বাড়ি। লটারিতে কোটি টাকা জিতে রাতারাতি তারকা মালদহের হবিবপুরের অসিম সমাদ্দার।

একবার ভাবছেন সবটাই স্বপ্ন। পরক্ষণেই পকেটে হাত দিয়ে দেখছেন লটারির টিকিট তো তাঁর কাছেই। কিন্তু, নিজের চোখকেই যেন বিশ্বাস করতে পারছেন না। ফের একবার ভাবছেন, এসব কি সত্যি ?  এভাবেই দুদিন ধরে কার্যত নাওয়া, খাওয়া, ঘুম উধাও বছর ত্রিশ-এর অসিম সমাদ্দারের।

মালদহের হবিবপুরের বাংলাদেশ সীমান্ত ঘেঁষা গ্রাম দাল্লা। প্রত্যন্ত বা অজগ্রাম বললে ভুল হবে না। গ্রামের সিংহ ভাগ মানুষের জীবিকা চাষবাস। এই গ্রামে কৃষক পরিবারের শিক্ষিত ছেলে অসিম সমাদ্দার। ২০১৬ সালে বিএ পাশ করার পর চাকরি জন্য পরীক্ষা দেওয়ার পাশাপাশি বাবা মায়ের সঙ্গে চাষবাস করেন।

২১ ডিসেম্বর নিতান্তই 'শখে' লটারির টিকিট কিনেছিলেন অসিম। আর তাতেই বাজিমাত। প্রতিবেশী রাজ্যের লটারিতে প্রথম পুরস্কার অথাৎ কোটি মিলেছে তাঁর কেনা টিকিটেই। এরপর থেকে একরকম ঘোরের মধ্যেই রয়েছে নিতান্ত দরিদ্র অসিম ও গোটা সমাদ্দার পরিবার। কোটি টাকা পেয়ে কি করবেন ? কিছুই যেন ভেবে উঠতে পারছেন না।

মালদহের কেউ লটারিতে কোটি টাকা জিতেছেন, এই খবর চাউর হয়েছিল দুদিন আগেই। গত ২১ ডিসেম্বর থেকেই 'সেই' ভাগ্যবানের খোঁজে হন্যে হয় পুলিশও। শেষ পর্যন্ত সোমবার রাতে হবিবপুর থানায় গিয়ে লটারি প্রাপ্তির কথা জানায় সমাদ্দার পরিবার।

নিতান্ত দরিদ্র পরিবার। পরিবারের সকলেই নিজেদের জমিতে নিজেরাই চাষবাস করেন। অসিমের বাবা মা জানিয়েছেন, ছেলের লটারি পাওয়ার পর প্রথমে দুশ্চিন্তা গ্রাস করেছিল। বন্ধ হয়ে গিয়েছিল খাওয়া-ঘুম। ভয়ে কোটি টাকা জেতার কথা মুখ ফুটে কাউকে বলেননি। ভয় পাচ্ছিলেন, সব জেনে কেউ ছেলের ক্ষতি করবে না তো ! শেষ পর্যন্ত পুলিশ অভয় দেওয়ায় মনে বল পেয়েছে সমাদ্দার পরিবার। বেজায় খুশি বাবা-মা, ত২আদের ছেলেকে আর মাঠে চাষ করে জীবিকা নির্বাহ করতে হবে না।

First published: 07:20:25 PM Dec 24, 2019
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर