চোর সন্দেহে হামলা, মালদহে পিটিয়ে খুন যুবক, আহত আরও এক

কেন রাতে আম বাগানে জড়ো হয়েছিল, অপরাধের কোনও উদ্দেশ্য ছিল কিনা, তা নিয়ে তদন্ত শুরু করেছে রতুয়া থানার পুলিশ ।

কেন রাতে আম বাগানে জড়ো হয়েছিল, অপরাধের কোনও উদ্দেশ্য ছিল কিনা, তা নিয়ে তদন্ত শুরু করেছে রতুয়া থানার পুলিশ ।

  • Share this:

#মালদহ: চোর সন্দেহে এক যুবককে পিটিয়ে খুনের অভিযোগ উঠল গ্রামবাসীর বিরুদ্ধে । আহত অবস্থায় মালদা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আরও একজন । শুক্রবার গভীর রাতে মালদহের রতুয়া থানার দেবীপুর পশ্চিমপাড়া এলাকায় ঘটনা । মৃত যুবক সেখ ঘিসু  (৩৬) । আহত যুবক সেখ সদাগর চিকিৎসাধীন মালদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে । তাদের বাড়ি রতুয়া থানারই পশ্চিম দেবীপুর এলাকায় ।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, রাতে তিন বন্ধু সেখ সদাগর, সেখ ঘিসু ও সেখ সাজ্জাদ আম বাগানে ঘোরাফেরা করছিল । সেইসময় গ্রামবাসীরা সন্দেহবশত তিনজনকে ধরে ফেলেন । শুরু হয় গণধোলাই । ঘটনাস্থল থেকে কোনোক্রমে সেখ সাজ্জাদ পালিয়ে যায় । গ্রামবাসীদের গণধোলাই এর জেরে দুইজন ঘটনাস্থলে গুরুতর আহত হন । তাদের চিকিৎসার জন্য আনা হয় মালদা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে । সেখ ঘিসুকে মৃত বলে ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা । আহত অবস্থায় চিকিৎসাধীন সেখ সদাগর । তার মাথায় গুরুতর আঘাত রয়েছে । রাতের ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় রতুয়া থানার পুলিশ । জখমদের উদ্ধার করে মালদহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠায় পুলিশ । নতুন করে গোলমাল ঠেকাতে এলাকায় শুরু হয় পুলিশি টহলদারি ।

আহত যুবক সেখ সদাগরের দাবি,তাঁরা কোনও চুরি করার উদ্দেশ্যে জড়ো হয়নি । রাতে তাঁরা আমবাগান এলাকায় একসাথে গল্প করছিলেন । সেই সময় গ্রামবাসীরা তাদের উপর মারধর শুরু করে চোর সন্দেহে ।তবে ওই যুবকরা কেন রাতে আম বাগানে জড়ো হয়েছিল, অপরাধের কোনও উদ্দেশ্য ছিল কিনা, তা নিয়ে তদন্ত শুরু করেছে রতুয়া থানার পুলিশ । পুলিশ জানিয়েছে, মৃতের পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে মামলা রুজু করা হচ্ছে । গণপিটুনির ঘটনায় যারা জড়িত তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ পদক্ষেপ নেওয়া হবে । অপরাধের সঙ্গে জড়িতরা কেউই ছাড় পাবে না।

Published by:Pooja Basu
First published: