জে পি নাড্ডাকে মাখনা উপহার দিলেন মালদহের কৃষকরা, তৃণমূল বলছে ভিড় করতে বাইরের লোক...

জে পি নাড্ডাকে মাখনা উপহার দিলেন মালদহের কৃষকরা, তৃণমূল বলছে ভিড় করতে বাইরের লোক...
কৃষকদের সঙ্গে ভোজনে জেপি নাড্ডা।

কৃষকদের দুর্দশার কথা দিল্লি সীমান্তে স্মরণ করিয়ে পাল্টা প্রতীকী অবস্থানে বসলেন তৃণমূল কংগ্রেসের মালদহ জেলার কর্মীরা।

  • Share this:

#মালদহ: কৃষকদের সাথে সহভোজনে ব্যস্ত থাকলেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জে পি নাড্ডা। তখনই কৃষকের ট্রাক্টরে উঠে বসে পড়লেন মালদহের তৃণমূল কংগ্রেসের নেতা কৃষ্ণেন্দু নারায়ণ চৌধুরী। দলনেত্রীর নির্দেশ ইঞ্চিতে ইঞ্চিতে লড়াই হবে। আর সেটা পূরণ করতেই একদিকে যখন মালদহ শহরে জে পি নাড্ডা মিছিল করলেন, তখন পাশের রাস্তায় কৃষকদের দুর্দশার কথা দিল্লি সীমান্তে স্মরণ করিয়ে পাল্টা  প্রতীকী অবস্থানে বসলেন তৃণমূল কংগ্রেসের মালদহ জেলার কর্মীরা।

শনিবার মালদহের মাঠে বসে খিচুড়ি খেলেন বিজেপি সর্ব ভারতীয় সভাপতি জেপি নড্ডা। একা নন, রাজ্য নেতাদের নিয়ে হাজার তিনেক কৃষকের সঙ্গে এক পঙ্ক্তিতে বসে নড্ডার মধ্যাহ্নভোজের ব্যবস্থা করেছিল রাজ্য বিজেপি। গেরুয়া শিবির সেই গণভোজ কর্মসূচির নাম দিয়েছে ‘সহভোজ’।এর আগে বঙ্গসফরে এসে আদিবাসী, বাউল, বস্তিবাসী থেকে কৃষক-সহ সমাজের বিভিন্ন স্তরের পরিবারে গিয়ে মধ্যাহ্নভোজ সেরেছেন নড্ডা, অমিত শাহ।

বিজেপি-র রাজ্য নেতারাও নিয়মিত এই জনসংযোগ করে চলেছেন। কিন্তু এই প্রথম হল গণভোজ কর্মসূচি। তা নিয়ে গতকাল সকাল থেকে শুরু হয়েছে প্রস্তুতি। ব্যবস্থাপনার দায়িত্বপ্রাপ্ত বিজেপি-র ওবিসি মোর্চার রাজ্য সভাপতি অজিত দাস বলেছেন, ‘‘শনিবারের মেনুতে ছিল খিচুড়ি আর একটা পাঁচমিশালি তরকারি। সকলের জন্যই এক পদ। মাঠে এক সঙ্গে হাজার তিনেক কৃষক পরিবারের মানুষ খেতে বসেছিলেন। সকলের জন্য কার্পেটের আসন পাতা ছিল। শালপাতার থালা আর মাটির ভাঁড়ের ব্যবস্থা ছিল। বিজেপি কর্মীরা খাবার পরিবেশন করলেন। এই সহ-ভোজনে কৃষকদের বাইরে থেকে আনা হয়েছে বলে অভিযোগ করেছে তৃণমূল কংগ্রেস। কৃষ্ণেন্দু নারায়ণ চৌধুরী  এ দিন অভিযোগ করে বলেছেন যাদের নিয়ে আসা হয়েছে তাদের অধিকাংশ জনকেই বাইরের জেলা থেকে নিয়ে আসা হয়েছে।


তবে বিজেপি এই অভিযোগ মানতে নারাজ। তাদের বক্তব্য মানুষ স্বতঃস্ফূর্ত ভাবেই যোগ দিয়েছেন এই সভায়। এদিন কৃষকদের জন্য যে স্টল বানানো হয়েছিল সেখানেও ঘুরে দেখেন জে পি নাড্ডা। কৃষকদের তরফ থেকে দেওয়া হয় উপহার হিসাবে দেওয়া হয় মাখনা।

Published by:Arka Deb
First published: