Home /News /north-bengal /
Malda News: শিশুর জন্মের দু-ঘণ্টা পরেই উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা দিলেন মা! পাশে শুয়ে সদ্যোজাত!

Malda News: শিশুর জন্মের দু-ঘণ্টা পরেই উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা দিলেন মা! পাশে শুয়ে সদ্যোজাত!

Malda News: সদ্যোজাতকে পাশে শুইয়ে রেখেই পরীক্ষা দিয়ে অবাক করলেন মা!

  • Share this:

    মালদহ: সন্তান জন্ম দেওয়ার দুই ঘণ্টার মধ্যে শারীরিক অসুস্থতা কে উপেক্ষা করে উচ্চ মাধ্যমিকের ইতিহাস পরীক্ষার দিলেন পরীক্ষার্থী। হাসপাতালের বেডে সদ্য জন্ম দেওয়া পুত্রসন্তানকে পাশে রেখে প্রশ্নপত্র হাতে নিয়ে টানা তিন ঘন্টা ধরে পরীক্ষা দিলেন। সন্তান কেঁদে উঠলে পরীক্ষার মাঝে মায়ের ভূমিকাও পালন করলেন। মালদহের গাজোল গ্রামীণ হাসপাতালের ঘটনা।

    টানা তিন ঘণ্টা পরীক্ষার পর প্রসূতি পরীক্ষার্থী মৌসুমী বর্মণ বলেন, 'পরীক্ষা ভাল দিলাম। আগে থেকে পরীক্ষার প্রস্তুতি নিয়েছিলাম। আগের পরীক্ষা গুলি ভাল দিয়েছি। আমি চাইনি মাঝে পরীক্ষা বাদ দিতে। তাই এদিন সকালে সন্তানের জন্ম দেওয়ার পরেই পরীক্ষা দেওয়ার ইচ্ছে প্রকাশ করি।' পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, মৌসুমী বর্মণ গাজোলের শ্যামসুখী গার্লস হাইস্কুলের ছাত্রী। বাবার বাড়ি গাজোলের ছোটকান্দর গ্ৰামে।বিয়ে হয়েছে বামোনগোলা থানার পাকুয়াই। স্কুলে পড়াশোনা চলাকালীন পরিবারের লোকেরা তার বিয়ে দিয়ে দেয়। বিয়ের পরেও পড়াশোনা চালিয়ে যাচ্ছেন। এবার উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী। বাবার বাড়ি থেকে পরীক্ষা দিচ্ছে।

    আরও পড়ুন: কালো মনোকিনিতে মোহময়ী ক্যাটরিনা! রণবীর-আলিয়ার বিয়ের মাঝেই ঝড় তুললেন ক্যাট !

    শনিবার ভোর থেকে প্রসব যন্ত্রণা শুরু হয়। পরিবারের লোকেরা তড়িঘড়ি তাকে গাজোল গ্রামীণ হাসপাতালে ভর্তি করে। চিকিৎসাধীন অবস্থায় সকাল আটটা নাগাদ একটি পুত্র সন্তানের জন্ম দেয়। চিকিৎসকেরা জানান সদ্যজাত ও মা দুই জনেই সুস্থ। গাজোল গ্রামীণ হাসপাতালে পরীক্ষা সুব্যবস্থা করা হয় জেলা শিক্ষা দপ্তর ও স্কুলের পক্ষ থেকে। সকালে পুত্রসন্তান জন্ম দেওয়ার পর পরীক্ষার্থী মৌসুমী পরীক্ষায় বসার ইচ্ছা প্রকাশ করেন। তারপরেই স্কুল কর্তৃপক্ষ জেলা শিক্ষা দপ্তরের সাথে যোগাযোগ করে। স্কুল ও জেলা শিক্ষা দপ্তরের যৌথ উদ্যোগে তড়িঘড়ি হাসপাতালে বেডে পরীক্ষার ব্যবস্থা করা হয়। একজন শিক্ষিকা ও পুলিশি পাহারার মধ্যে হাসপাতালের বেডে বসে টানা তিন ঘণ্টা পরীক্ষা দিয়ে গেলেন। শারীরিক অসুস্থ কে উপেক্ষা করে তার এমন উদ্যোগকে সাধুবাদ জানাচ্ছেন স্কুলের শিক্ষক শিক্ষিকারা।

    Harashit Singha

    Published by:Piya Banerjee
    First published:

    Tags: Malda, Malda News

    পরবর্তী খবর