উত্তরবঙ্গ

?>
corona virus btn
corona virus btn
Loading

ছয় মাস ধরে জলের তলায় মালদহের মালঞ্চপল্লি, সমাধান চেয়ে জাতীয় সড়ক অবরোধ

ছয় মাস ধরে জলের তলায় মালদহের মালঞ্চপল্লি, সমাধান চেয়ে জাতীয় সড়ক অবরোধ
জাতীয় সড়ক আটকে তখন চলছে বিক্ষোভ।

জলযন্ত্রণা দূর করার দাবিতে রাস্তায় বসে বিক্ষোভ দেখালেন মালদহ শহরের মালঞ্চপল্লীর বাসিন্দারা। শেষ পর্যন্ত মহকুমা শাসক ও জেলাশাসকের আশ্বাসে উঠে অবরোধ।

  • Share this:

মালদহ: মালদহ শহরের একাংশে নিকাশী বেহাল। আর তার রেশ ধরেই বিক্ষোভের আঁচ এসে পৌঁছল অতি গুরুত্বপূর্ন ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়কে। প্রায় আড়াই ঘন্টা ধরে ক্ষিপ্ত জনতার বিক্ষোভে অবরুদ্ধ হয়ে থাকল উত্তরবঙ্গের সঙ্গে দক্ষিণবঙ্গের সংযোগরক্ষাকারী জাতীয় সড়ক। জলযন্ত্রণা দূর করার দাবিতে রাস্তায় বসে বিক্ষোভ দেখালেন মালদহ শহরের মালঞ্চপল্লীর বাসিন্দারা। শেষ পর্যন্ত মহকুমা শাসক ও জেলাশাসকের আশ্বাসে উঠে অবরোধ।

 এদিন  দিনের ব্যস্ততম সময়ে দীর্ঘক্ষণের জন্য অবরুদ্ধ হয়ে যায় মালদহ শহর লাগোয়া ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়ক। দীর্ঘ কয়েক কিলোমিটার এলাকা ধরে যানজট। আটকে বহু দুরপাল্লার বাস, পন্যবাহী ট্রাক, আরও অসংখ্য যানবাহন। এমন দুর্ভোগের ছবির নেপথ্যে রয়েছে জল যন্ত্রণা। মালদহ শহরের শতাব্দীপ্রাচীন মালঞ্চপল্লির বেহাল নিকাশী সমস্যা।

১৯৯৮ সালের পর থেকে মালদহ শহরের মালঞ্চপল্লি এলাকা কখনও ডোবেনি।কিন্তু সমস্যার শুরুয়াত গতবছর থেকে। পরিস্থিতি আমূল বদলে গিয়েছে গত কয়েক মাসে। স্থানীয় মানুষদের অভিযোগ, বৃষ্টি হোক বা না হোক গত প্রায় ছয় মাস ধরে ডুবে রয়েছে মালদহের ইংরেজবাজার পুরসভার তিন নম্বর ওয়ার্ড।

স্থানীয়দের দাবি, কিছু অসাধু প্রোমোটার আর রাজনৈতিক প্রভাবশালীরা এলাকার জল বেরনোর বিল ভরাট করে ফেলেছে। প্রশাসনকে জানিয়েও বিল ভরাট বন্ধ করা যায়নি। এর ফলেই বন্ধ হয়ে গিয়েছে জল বের  হওয়ার পথ। ফলে বৃষ্টির জল বা নর্দমার জল কিছুই বের হতে পারছে না। কার্যত জলবন্দি আর গৃহবন্দি হয়ে পড়েছেন কয়েক হাজার বাসিন্দা। বর্ষায় জমা দূষিত ও নোংরা জলে গোটা এলাকা যেন ডোবায় পরিণত হয়েছে।

মাসের পর মাস শুকনো রাস্তা দেখেননি মালদহের মালঞ্চপল্লির বাসিন্দারা। এদিন ইংরেজবাজার পুরসভা কর্তৃপক্ষ আর স্থানীয় প্রশাসনের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগড়ে দিয়ে সকাল থেকেই মালঞ্চপল্লি সংলগ্ন ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়ক বন্ধ করে দিয়ে শুরু হয় আন্দোলন। উল্লেখ্যযোগ্য ভাবে রাজনীতিকে দূরে সরিয়ে এই আন্দোলনে পথে নামেন বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের একাধিক পরিচিত মুখ। রাজনীতির উর্ধ্বেই এই আন্দোলন বলে জানান তাঁরা সকলেই। সকলেরই ক্ষোভের কেন্দ্রে ইংরেজবাজার পুরসভা।

পুলিশের সামনেই এদিন দীর্ঘক্ষন ধরে জাতীয় সড়ক অবরোধ হয়। স্থানীয় ওয়ার্ড কো-অর্ডিনেটর বা পুরসভা কর্তৃপক্ষের কাউকেই এলাকায় দেখা যায়নি। শেষ পর্যন্ত জেলাশাসকের প্রতিনিধি হিসেবে এলাকায় আসেন মালদহের মহকুমাশাসক সুরেশকুমার রানো। বিক্ষোভ সামাল দিতে পৌঁছন  ইংরেজবাজারের প্রাক্তন পুরপ্রধান কৃষ্ণেন্দুনারায়ন চৌধুরী। আন্দোলকারীদের দ্রুত সমস্যা সমাধানে আশ্বাস দেন তাঁরা। জেলাশাসকের সঙ্গে আন্দোলনকারীদের প্রতিনিধি দলের বৈঠকের ব্যবস্থা হয়। এরপর ওঠে অবরোধ।

তবে সমস্যা না মিটলে ফের আন্দোলনের হুশিয়ারীও দেওয়া হয়েছে।

Published by: Ananya Chakraborty
First published: September 29, 2020, 8:17 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर