মালদহে ইংরেজবাজার পুরসভার ওয়ার্ড সংরক্ষনে বিপাকে চেয়ারম্যান

একাধিক হেভিওয়েট কাউন্সিলারের আসন সংরক্ষিত হয়ে যাওয়ায় অস্বস্তিতেও পড়েছে তৃণমূলও।

একাধিক হেভিওয়েট কাউন্সিলারের আসন সংরক্ষিত হয়ে যাওয়ায় অস্বস্তিতেও পড়েছে তৃণমূলও।

  • Share this:

    #মালদহ: মালদহে ইংরেজবাজার পুরসভার ওয়ার্ড সংরক্ষনের নতুন তালিকায় বিপাকে পড়লেন চেয়ারম্যান, প্রাক্তন চেয়ারম্যান-সহ একাধিক হেভিওয়েট কাউন্সিলার। মালদহের ইংরেজবাজার পুরসভায় চলতি বছরেই পুরসভা নির্বাচন হওয়ার কথা। শুক্রবার এর জন্য ওয়ার্ডের সংরক্ষন তালিকা প্রকাশ হয়। এই তালিকা ঘিরে হইচই পড়েছে শহরের রাজনীতিতে।

    একাধিক হেভিওয়েট কাউন্সিলারের আসন সংরক্ষিত হয়ে যাওয়ায় অস্বস্তিতেও পড়েছে তৃণমূলও। শুক্রবার প্রকাশিত হল মালদহের ইংরেজবাজার পুরসভার আসন সংরক্ষনের তালিকা। ইংরেজবাজার পুরসভায় মোট আসন অথাৎ ওয়ার্ড সংখ্যা ২৯টি। এরমধ্যে দশটি আসন এবার মহিলাদের জন্য সংরক্ষিত। এরমধ্যে রয়েছে ১,৩,৬,৯,১২,১৫,১৮,২১,২৫ ও ২৭ নম্বর ওয়ার্ড। এছাড়াও তফশীলি জাতির ওয়ার্ড হিসেবে নির্দিষ্ট করা হয়েছে ২২,২৬,২৭ নম্বর ওয়ার্ডকে।বাকী ১৭টি ওয়ার্ড সাধারনের জন্য অথাৎ অসংরক্ষিত। এই ওয়ার্ড গুলিতে যে কেউ প্রার্থী হতে পারবেন।

    নতুন এই তালিকায় সংরক্ষনের গেরোয় পড়েছেন ইংরেজবাজার পুরসভার চেষারম্যান তথা স্থানীয় বিধায়ক নিহাররঞ্জন ঘোষ। তাঁর জেতা ১৫ নম্বর আসনটি এবার মহিলাদের জন্য সংরক্ষিত হয়ে গিয়েছে। ফলে এই ওয়ার্ড থেকে আর প্রার্থী হতে পারবেন না নিহারবাবু। সংরক্ষনে বিপাকে পড়েছেন ইংরেজবাজার পুরসভার প্রাক্তন চেয়ারম্যান নরেন্দ্রনাথ তেওয়ারি এবং তাঁর স্ত্রী অঞ্জু তেওয়ারি। তাঁদের জেতা ২২ এবং ২৬ নম্বর দুটি ওয়ার্ডই এবার তফশীলি জাতি ভুক্ত প্রার্থীদের জন্য সংরক্ষিত। একই সঙ্গে বিপাকে পড়েছেন দাপুটে তৃনমূল কাউন্সিলার আশিষ কুণ্ডু। তাঁর জেতা ১৮ নম্বর ওয়ার্ডটি এবার মহিলা সংরক্ষিত।

    ইংরেজবাজার পুরসভার কাউন্সিলার দুই তৃনমূল যুব নেতা ১২ নম্বর ওয়ার্ডের প্রসেনজিৎ দাস এবং ২৭ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলার শুভদীপ সান্যালও সংরক্ষনের কারনে নিজেদের ওয়ার্ডে প্রার্থী হতে পারবেন না। সব মিলিয়ে সংরক্ষনের গেরোয় মালদহে একাধিক তৃনমূল নেতৃত্বের রাজনৈতিক ভবিষ্যৎ নিয়ে তৈরী হয়েছে অনিশ্চিয়তা।

    গতবার ইংরেজবাজার পুরসভার ২৯ টি ওয়ার্ডের মধ্যে ১৫ টি জিতে বোর্ড দখল করেছিল তৃনমূল। পরে অবশ্য আরও বেশ কিছু কাউন্সিলার বিভিন্ন দল থেকে  তৃনমূল যোগ দেন। তবে এবারের সংরক্ষন তালিকা চিন্তায় ফেলেছে শাসক দল তৃনমূলকে। সমস্যার কথা স্বীকার করেছেন জেলা  তৃনমূল সভাপতি মৌসম বেনজির  নূর।

    Sebak Das Sharma

    First published: