মালদহে বিজেপি- বিরোধী তরজা চরমে, নেপথ্যে নাড্ডার 'সহভোজ' আর 'মেগা রোড শো'

মালদহে বিজেপি- বিরোধী তরজা চরমে, নেপথ্যে নাড্ডার 'সহভোজ' আর 'মেগা রোড শো'
নাড্ডার ট্যাবলো। সঙ্গে দিলীপ ঘোষ।

নাড্ডার শো-কে বাড়তি গুরুত্ব দিতে নারাজ মালদহে শক্তিধর কংগ্রেস অথবা শাসকদল তৃণমূল। তাঁদের পাল্টা দাবি, বিজেপি গত লোকসভা ভোটের লিডও ধরে রাখতে পারবে না মালদহে।

  • Share this:

    মালদহ; বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জে পি নাড্ডার 'সহভোজ' আর 'মেগা রোড শো' ঘিরে বিজেপি আর বিরোধীদের তরজা চরমে মালদহে। নাড্ডার এই সফর আগামী বিধানসভায় মালদহে কতটা প্রভাব ফেলবে তা নিয়েই শুরু রাজনৈতিক চাপানউতোর। বিজেপি বলছে, এদিনের কর্মসূচি বিজেপির পালে বাড়তি হাওয়া জোগাবে। যার প্রভাবে বিধানসভায় পদ্মময় হবে মালদহ। যদিও নাড্ডার শো-কে বাড়তি গুরুত্ব দিতে নারাজ মালদহে শক্তিধর কংগ্রেস অথবা শাসকদল তৃণমূল। তাঁদের পাল্টা দাবি, বিজেপি গত লোকসভা ভোটের লিডও ধরে রাখতে পারবে না মালদহে।

    আগামী বিধানসভায় 'মালদহ জেলা' বাড়তি নজর বিজেপির পরিকল্পনায়। জেলার ১২টি বিধানসভার মধ্যে ছটিতে লোকসভায় এগিয়েছিল গেরুয়া শিবির। আগামী বিধানসভায় এরসঙ্গে আরও কিছু আসন যুক্ত করতে মাঠে নেমে পড়েছে বিজেপি। লোকসভায় এগিয়ে থাকা দক্ষিণ মালদহের ইংরেজবাজার বিধানসভা আর উত্তর মালদহ লোকসভার অন্তর্গত মালদহ বিধানসভাকে এদিন নাড্ডার কর্মসূচির জন্য বেছে নেওয়া হয়। মালদহের সাহাপুরে সহভোজের আসরে প্রায় তিন হাজার কৃষকের সঙ্গে পাত পেড়ে বসে খেয়ে গ্রামীণ মানুষের মন পাওয়ার চেষ্টার কোনও ত্রুটি রাখেননি জে পি নাড্ডা।

    সরাসরি বিভিন্ন কৃষকদের সঙ্গেও কথা বলেন তিনি। এরপর ইংরেজবাজারে গিয়ে বিপুল জমায়েতকে সঙ্গে নিয়ে রোড-শো করেন তিনি। বর্তমানে মালদহ জেলার বৈষ্ণবনগর ও হবিবপুর এই দুটি বিধানসভা কেন্দ্র বিজেপির দখলে রয়েছে। বাকি যে আসনগুলিকে বিজেপি এবার নিশ্চিত জয়ের তালিকায় রেখেছে তারমধ্যে অন্যতম হলো এই ইংরেজবাজার ও মালদহ বিধানসভা। নাড্ডার সফরে সাধারণ মানুষের উপস্থিতি ও আবেগ দেখে আরও আত্মবিশ্বাসী গেরুয়া শিবির। বিজেপি সাংসদ খগেন মুর্মুর দাবি, এদিনের কর্মসূচির পর বিজেপির কর্মীরা আরোও চাঙ্গা এবং উৎসাহিত হয়েছেন। এরফলে বিধানসভা ভোটে আরও বাড়তি উদ্যমে ঝাঁপাবেন তাঁরা। গত লোকসভা ভোটে মালদহে 'গণি মিথ' ভেঙে জিতেছে বিজেপি। আর এদিনের রোড-শো এর উপস্থিতি থেকে স্পষ্ট আগামী দিনে মালদহ জেলা বিজেপিময় হবে এমনই দাবি বিজেপি সাংসদের।


    এদিকে এদিন যে ঘণ্টা তিনেক জে পি নাড্ডা মালদহ সফরে ছিলেন, সেই পুরো সময় ধরে মালদহ শহরে গান্ধী মূর্তির চত্বরে পাল্টা প্রতিবাদ কর্মসূচি পালন করে তৃণমূল নেতৃত্ব। মূলত কৃষকদেরকে সামনে রেখে কৃষি উপকরণ সঙ্গে নিয়ে চলে তৃণমূলের প্রতিবাদ আন্দোলন। ২০১৬ বিধানসভা নির্বাচনে একমাত্র মালদহে কোনও আসনে জেতেনি তৃণমূল। জেলায় তৃণমূলের ঝুলি ছিল 'শূন্য'। এই অবস্থায় বিজেপির কর্মসূচিকে কটাক্ষ করতে ছাড়েনি তৃণমূল। দিল্লিতে আর এরাজ্যে বিজেপির কৃষকদের প্রতি অবস্থান নিয়ে দ্বিচারিতার অভিযোগ তোলেন তৃণমূল জেলা চেয়ারম্যান কৃষ্ণেন্দু নারায়ণ চৌধুরী। তিনি দাবি করেন, নাড্ডার শো মালদহে কোনও প্রভাব ফেলতে পারবে না। বরং এবার ভালো ফল করবে তৃণমূল, দাবি করেছেন কৃষ্ণেন্দুবাবু। বিজেপির কর্মসূচিকে আমল দিতে চাইছে না মালদহ কংগ্রেস।

    জেলায় গণিমিথ ভেঙে যাওয়ার যে দাবি বিজেপি নেতৃত্ব করছেন, তাকে উড়িয়ে দিয়ে বিধায়ক ঈশা খান চৌধুরির দাবি, কেন্দ্রে ক্ষমতায় থাকার সুবাদে কোটি কোটি টাকা খরচ করে এই ধরনের কর্মসূচি নেওয়া হচ্ছে। কিন্তু, নিচুতলার ভোটারদের মনে এতে কোন প্রভাব পড়বে না। বিজেপিকে কটাক্ষ করে গনি পরিবারের সদস্যের পাল্টা দাবি, বিজেপি যেভাবে মালদহে জেতার কথা বলছে তাতে লোক হাসবে।

    Published by:Arka Deb
    First published: