Malda Murder Case: মালদহের সেই হাড়হিম চার হত্যাকাণ্ড মনে আছে? ৪৪ সাক্ষী যা জানাল...

আদালতে যা হল...

Malda Murder Case: মালদহের কালিয়াচকের হাড়হিম করা চার খুনের ঘটনায় মালদহ আদালতে পেশ হল চার্জশিট, মামালায় ৪৪ জন সাক্ষী।

  • Share this:

#মালদহ: কালিয়াচক খুন কাণ্ডে চার্জশিট পেশ পুলিশের । ৭০ দিনের মাথায় আজ মালদা আদালতে চার্জশিট জমা করল পুলিশ। ২৭৩ পাতার চার্জশিট পেশ পুলিশের। ৩০২,২০১,এবং ৩০৭ ধারায় খুন, তথ্য প্রমাণ লোপাট এবং খুনের চেষ্টার অভিযোগ আনা হয়েছে চার্জশিটে। মামলার চার্জশিট ৪৪ জন সাক্ষীর উল্লেখ করা হয়েছে। মামলায় গতি আনতে স্পেশাল পিপি নিয়োগে ছাড়পত্র রাজ্যের। এই মামলায় স্পেশাল পিপি নিয়োগের জন্য রাজ্যের কাছে আবেদন জানিয়েছিল জেলা পুলিশ। ওই আবেদনও মঞ্জুর হয়েছে ।

মামলার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ সাক্ষী অভিযুক্ত আসিফের দাদা মহম্মদ আরিফ। ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী আরিফ নিজেই। এছাড়া আসিফের এক মামাকেও মামলায় সাক্ষী করেছে পুলিশ। বোনের বিয়ের জন্য আসিফকে দেওয়া ১০ লক্ষ টাকা ফেরত চাওয়াতেই বাবা সহ পরিবারের সদস্যদের খুনের পরিকল্পনা করে আসিফ। চার্জশিটে উল্লেখ পুলিশের। বাড়ি তৈরির সময় আসিফকে ১০ লক্ষ টাকা দিয়েছিলেন বাবা জাওয়াদ আলী।

গত ১৯ জুন মালদহের কালিয়াচকের পুরাতন ১৬ মাইল এলাকায় পরিবারের চার জনকে খুনের ঘটনা প্রকাশ্যে আসে। ফিল্মি কায়দায় বাবা, মা , ঠাকুমা এবং বোনকে খুন করে বাড়িতেই পুঁতে রেখেছিল ১৯ বছরের যুবক মহম্মদ আসিফ। খুনের চেষ্টা করা হয় দাদা মহম্মদ আরিফকেউ। কোনোরকমে পালিয়ে প্রাণে বাঁচে আরিফ। কালিয়াচকের একসঙ্গে চার জনকে এই খুনের ঘটনা গোটা রাজ্যে হইচই ফেলে। মামলার তদন্তে জেলা পুলিশ সুপারের তদারকিতে স্পেশাল টিম গঠন করা হয়। আগামী ১০ সেপ্টেম্বর মামলার পরবর্তী শুনানির দিন।

মালদহের পুলিশ সুপার অলোক রাজোরিয়া জানিয়েছেন, এই মামলার চার্জশিট পুলিশের কাছে বড় চ্যালেঞ্জ ছিল । কারন এই ঘটনা নিয়ে সাধারন  মানুষের মধ্যে কৌতুহল ও ভয় ছিল। তাই অতযন্ত গুরুত্ব দিয়ে এই মামলার তদন্তে এগোনো হয়। এই মামলায় বেশ কিছু ডিজিট্যাল এভিডেন্স অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ন।  স্পেশাল পি পি নিয়োগ হওয়ায় মামলার কাজের গতি আসবে।

Published by:Suman Biswas
First published: