উত্তরবঙ্গ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

বন সহা‍য়কের, অষ্টম মানের অস্থায়ী চাকরির জন্য এমএ, বিএএসসি পাশ ছাত্রদের লাইন

বন সহা‍য়কের, অষ্টম মানের অস্থায়ী চাকরির জন্য এমএ, বিএএসসি পাশ ছাত্রদের লাইন

মাসিক সাম্মানিক দেওয়া হবে দশ হাজার টাকা করে। আর এতেই যেভাবে উচ্চ শিক্ষিতরাও হামলে পড়েছে তাতে অবাক বন দফতরের আধিকারীকেরাই।

  • Share this:

#মালদহ প্রতিদিনই ভোর থেকেই লাইন পড়ছে মালদা শহরে। দূর-দূরান্ত থেকে "বন সহায়ক" পদে নিয়োগ এর ইন্টারভিউ দিতে আসছেন চাকরিপ্রার্থীরা। বন দফতর সূত্রে খবর, মালদহে চুক্তিভিত্তিক ২০টি শূন্য পদে নিয়োগের সম্ভাবনা। সেখানে আবেদনকারীর সংখ্যা ৩২ হাজার ৬০০ জন। প্রতিদিন এক হাজার করে চাকরিপ্রার্থীকে ইন্টারভিউয়ে ডাকা হচ্ছে মালদহে বন দফতরের অফিসে। ন্যূনতম অষ্টম শ্রেণী পাশ নিয়োগের জন্য আবেদনকারীদের তালিকায় এমএ , বিএড, এমফিল, পিএইচডি ডিগ্রিধারীরাও।

এদিকে এই ইন্টারভিউয়ে উধাও করোনা বিধি। ভিড়ে গাদাগাদি করে ঠাসাঠাসি করে দিনভর লাইনে পুরুষ ও মহিলা চাকরি প্রার্থীরা। মাঝেমধ্যেই লাইনে দাঁড়ানো নিয়ে রীতিমতো বচসা, তর্কাতর্কি,  ধাক্কাধাক্কি পর্যন্ত চলছে। লাইনে দাঁড়ানো অনেকের মুখে মাস্ক পর্যন্ত পড়ছেন না। অনেকে আবার ভয়ে, আতঙ্কে লাইনে ব্যাগ রেখে দূরে দাঁড়িয়ে থাকছেন। করোনা আবহে সামাজিক দূরত্ব বিধি মানা সম্ভব হচ্ছে না বলে স্বীকার করেছে বন দফতর।

এদিকে চাকরিপ্রার্থীদের লাইনের ফলে দিনভর যানজট হয়ে থাকছে মালদা শহরের ব্যস্ততম নজরুল সরনি এলাকা। বন দফতরের এই চাকরি আপাতত এক বছরের জন্য চুক্তি ভিত্তিক। মাসিক সাম্মানিক দেওয়া হবে দশ হাজার টাকা করে। আর এতেই যেভাবে উচ্চ শিক্ষিতরাও হামলে পড়েছে তাতে অবাক বন দফতরের আধিকারীকেরাই। অনেকে বলছেন উচ্চ শিক্ষিতদের নিয়োগ করলে তুলনায় অল্প শিক্ষিতরা বঞ্চিত হবেন। আবার উচ্চ শিক্ষিতরা বিকল্প কর্ম সংস্থান পেলে মাঝ পথে বন সহায়কের কাজ ছেড়ে দেবেন এটাও বাস্তব। কিন্তু যেহেতু উচ্চ শিক্ষিতরাও এক্ষেত্রে অষ্টম মানের সমান হিসেবে গন্য হবেন সেক্ষেত্রে উচ্চ শিক্ষিতরা চুক্তি ভিক্তিক এই কাজ করতে চাইলে  তাঁদের দাবিও অনায্য নয়। ফলে তাঁদেরই বা খারিজ করা হবে কোন যুক্তিতে।

SEBAK DEB SARMA

Published by: Piya Banerjee
First published: October 10, 2020, 8:06 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर